রোববার, ১৬ জুন ২০২৪

সেকশন

 

শিক্ষকের এমন নিষ্ঠুর বয়ানে আমরা হতবাক: চুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থীদের বিবৃতি

আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৯:১৯

সহযোগী অধ্যাপক (হিসাববিজ্ঞান) ড. সুমন দে। ছবি: সংগৃহীত চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কে একটি বাসের বেপরোয়া গতির কারণে দুর্ঘটনায় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) পুরকৌশল বিভাগের দুই ছাত্র নিহত হয়। এর প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন করছেন। 

চুয়েটের মানবিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক (হিসাববিজ্ঞান) ড. সুমন দে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনের বিষয়ে বিরূপ মন্তব্য করেছেন। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ২য় বর্ষের (২১ ব্যাচ) পানি কৌশল বিভাগের ক্লাস প্রতিনিধি শিক্ষককে মুঠোফোনে ক্লাস বর্জনের বিষয়টি অবগত করলে তিনি (ড. সুমন দে) বলেন, ‘সিভিলের পোলা মরসে, তোমরা কেন ক্লাস করবা না? নিজের সন্তানতুল্য ছাত্রদের মৃত্যুতে একজন শিক্ষকের এমন নিষ্ঠুর বয়ানে আমরা (চুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী) হতবাক। 

চুয়েটের সাবেক ১৩৭ জন শিক্ষার্থী এক যৌথ বিবৃতিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে বলেন, ভুলে গেলে চলবে না যে একেকজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর পেছনে রাষ্ট্রীয়, সামাজিক এবং পারিবারিক বিনিয়োগই শুধু জড়িত নয় বরং অনেক মানুষের স্বপ্ন পূরণের দায়ভার নিয়েই শিক্ষার্থীরা এখানে পড়তে আসে। 

এই কাঠামোগত হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে শুধু কিছু সম্ভাবনাময় প্রাণ ঝরে গেল তা নয় বরং একটি পরিবারের স্বপ্ন-আকাঙ্ক্ষা এবং সামাজিক নিরাপত্তারও মৃত্যু ঘটল। এই সামষ্টিক ক্ষতির পরিমাণ কোনো অর্থমূল্যেই নিরূপণ করা সম্ভব নয়। 

দুইজন শিক্ষার্থীর হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে রাস্তায় নেমে এলে একজন শিক্ষকের বিতর্কিত মন্তব্যে যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে তা প্রশমনের দায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে নিতে হবে। নিজের সন্তানতুল্য ছাত্রদের মৃত্যুতে একজন সম্মানিত শিক্ষকের এমন নিষ্ঠুর বয়ানে আমরা হতবাক! আমরা অবিলম্বে তার প্রকাশ্য ক্ষমা প্রার্থনার দৃষ্টান্ত দেখতে চাই। 

এর আগেও সাধারণ শিক্ষার্থীদের ন্যায্য অধিকার আদায়ের আন্দোলনে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্বাসবাণী শোনানো হয়েছিল কিন্তু দাবি শতভাগ কখনোই পূরণ হয়নি। চলমান আন্দোলনের প্রেক্ষিতে আমরা কোনো আশ্বাসকে আর বিশ্বাস করি না। 

এইবারের যে সংগ্রাম, সেটি হোক শতভাগ দাবি আদায়ের সংগ্রাম। আমরা, চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবর্তের সাবেক শিক্ষার্থীরা বর্তমান শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলন পূর্ণ সংহতি জানাই এবং পাশাপাশি দেশবাসীকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মাঠে নেমে আসার উদাত্ত আহ্বান জানাই। 
  
আজ বুধবার পাঠানো বিবৃতিতে তারা বলেন, বাংলাদেশের সড়কগুলোয় মৃত্যুর দীর্ঘ মিছিল দেখে এখন আর এগুলোকে দুর্ঘটনা বলার কোনো সুযোগ নেই। আমরা এসব মৃত্যুকে ‘কাঠামোগত হত্যাকাণ্ড’ বলে মনে করি। 

চট্টগ্রাম-কাপ্তাই আঞ্চলিক মহাসড়কটি হাটহাজারি, দক্ষিণ রাউজান, রাঙ্গুনিয়া এবং কাপ্তাই উপজেলার ১০ লক্ষাধিক মানুষের দৈনন্দিন যাতায়াত এবং অর্থনীতি ও পর্যটনের লাইফলাইন হলেও এই সড়কটি সব সময়ই প্রশাসনের সুদৃষ্টি থেকে বঞ্চিত। দেশের শীর্ষস্থানীয় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ-সুইডেন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, কাপ্তাই জলবিদ্যুৎকেন্দ্র এবং রাউজান তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রের মত জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা এই অঞ্চলে অবস্থিত হওয়া সত্ত্বেও এই সড়কটির দুরবস্থা এবং নৈরাজ্য আমাদের বঞ্চিত, ব্যথিত ও হতাশ করে তোলে। 

এর আগেও ২০১৬ সালে ১০ আবর্তের স্থাপত্য বিভাগের শিক্ষার্থী মোহাইমিন সিয়াম, ১৫ আবর্তের শিক্ষার্থী তাহমিদ এর মৃত্যু হয় এই সড়কে। সিয়ামের মৃত্যুর পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ৮ দফা দাবিনামা উত্থাপন করে আন্দোলন সংঘটিত করে এবং বেশ কিছু দাবি মেনে নেওয়া হয়। যদিও সেই ধারাবাহিকতা রক্ষা করা যায় নি। কিছুদিন পরেই নৈরাজ্য ফিরে আসে এবং ক্রমাগত হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হতে থাকে। শুধু বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীই নয় বরং অনেক এলাকাবাসীও এই হত্যাকাণ্ডের শিকার। এই নৈরাজ্যের পেছনে মূল অনুঘটক হচ্ছে সরু রাস্তা, ফিটনেস এবং লাইসেন্সবিহীন যানবাহন, সড়কে রাজনৈতিক চাঁদাবাজি এবং পরিবহনসংকট। 

বিবৃতিদানকারী সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে রয়েছে- জোবায়ের জ্যোতি, অটল ভৌমিক, সোহানুর রহমান সৈকত, সুজিত রঞ্জন দাশ, অনিরুদ্ধ দাশ, মনীষী রায়, মিনহাজুল ইসলাম রিয়াম, ওমর ফারুক, শেখ নাহিয়ান, মাহবুব সোবহান চৌধুরী, মাউল কাজিম আখতার, কৌশিক চন্দ্র, আহসান হাবিব আকাশ, মীর তাইমুর জুবায়ের, মুয়িদ উদ্দীন চৌধুরী, মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম, শিশির কুমার দাস, সুনান মাশরুর মিকদাত, রাহাত ইকবাল, ফাতেমা ইসলাম তানিয়া, সৌরেন পাল, মোহাম্মদ নাজমুল হাসান, মিঠুন চন্দ্র নাথ, অনিন্দ্য নন্দী, আশেকুল ইসলাম, পিয়াল দাশ গুপ্ত, এস এ সুজন, সেলিম আহমেদ, সঞ্জয় হালদার, আসিফ ইফতি, ফাহমিদা লিজা পিয়া, তুর্জয় ধর দীপ্ত, সিরাজুল ইসলাম সৈকত, আতিকুজ্জামান উল্লাস, 

পাভেল আহমেদ, কেফায়েত ইসলাম, মোহাম্মদ জাহেদ মুরাদ সানি, মোহাম্মদ ফাহিম শাহরিয়ার সাকিব, শহীদুল ইসলাম, সীমান্ত পাল, মোহাম্মদ আহসানুল ইউসূফ ইমন, শিবলি নোমান, মাহির ফয়সাল রাহাত, সুদীপ্ত ভৌমিক, পারিজাত দেবনাথ, মোহাম্মদ ওয়াসাফ সাদাত, আল আমীন, শারাহ মেহজাবীন, প্রবাল সিংহ, নাওমি সুবায়ের, মিনহাজুল আবেদীন, মো. আরিফুল ইসলাম, সালেহা ফাতেমা, রাফিউল্লাহ আরিফিন, অঙ্কুর দাশ অভি, রিকু মোহরের, প্রীতক কুণ্ডু, রিয়াদ হাসান লিখন, ঐশি সরকার দিবা,

দীপ্তনীল রায়, আরিফুল ইসলাম, মো. মোস্তাকিম মুকিত, ইমরান কবির, মো. কামরুল আনাম জয়, জাহিন দিয়ান কাব্য, জেড এম মাহিন, এস এম রিয়াজুল আলম, রাকিবুল ইসলাম, মৃত্যুঞ্জয় কর পিয়াল, মোহাম্মদ সাঈদ আনোয়ার, মির্জা আসিফ হায়দার, অংথাইচিং মারমা, আরিফ মাহমুদ শিকদার, আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল উদয়, আননূর আফসীন সিদ্দিকী, এস এম রাকিবুল ইসলাম, জয়ন্ত দাশ, রিজভী আহমেদ, মাহবুব সানি, তাসনিম আলম নিশাত, পীযূষ বিশ্বাস, সুবির সরকার, মুহতাসীন রিয়াসাদ, মোসলেহ উদ্দীন আহমেদ, মঞ্জুরুল আলম প্রান্ত, আবিদ উর রহমান, ঋত্বিক চৌধুরী, মো. রাফিউল হোসেন, ইফতিখার আজিম, মো. ফারহান শাহরিয়ার, রায়হান আল মারুফ চৌধুরী, 

মো. রিফাত আমীন, দেবজ্যোতি দাস, নয়ন চৌধুরী, মো. তৌহিদুল ইসলাম নাঈম, নাজমুল হাসান হৃদয়, মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, মো. আব্দুল্লাহ শিকদার, তানভীর মাহমুদ, তৌহিদ ধ্রুব, জনি নাথ, মো. আরিফুল হক, আকিব বিন নাসিম, মো. বায়েজিদ-বিন-ইসলাম, মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, দীপন মুখার্জি, অপু দেবনাথ, মোহাইমিন শোভন, অর্ঘ্য বিশ্বাস, সাদমান সৌমিক ইভান, সাজিদ উজ্জামান জিশান, ফাইরুজ হুমায়রা ফারিন, শারদ চৌধুরী, রেদোয়ান হোসেন, মো. সাজ্জাদ উল ইসলাম, মো. আসিফ ইকবাল, ফাহাদ বিন ফারুক, মুহাইমিনুল ইসলাম সার্থক, রোমান শেখ, মোহাম্মদ আশিকুল আলম, রাফাত হোসেন, রাতুল ইসলাম, জেবিন ফৌজিয়া, মঈনুদ্দীন শিপন, শেখ ফারাহ আদৃতা, আবরার আহমেদ চৌধুরী, তানজিদ নাহিয়ান, হাসিবুল হাসান, দাউদ ইব্রাহীম, জিসান হায়াত, ধ্রুব নাগ, জামিলুর রেজা মজুমদার, কিশোর রায়, মঈন উদ্দীন আহমেদ বাবর, জারীন তাসনিম বিদিতা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সাভারে উত্তরবঙ্গমুখী সড়কে বেড়েছে শেষ মুহূর্তের চাপ

    পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী কেরানীগঞ্জ গিয়ে নিখোঁজ

    কোরবানির জন্য লালন করা গরু নিয়ে বিপাকে খামারিরা

    টিসিবির পণ্যের সংকট, খালি হাতে ফেরত গেলেন ২ ইউনিয়নের ৭ হাজার মানুষ

    রাজধানীতে ঈদের দিন হতে পারে বৃষ্টি

    রাজধানীর মহাখালীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে বাস চালকসহ ৪ জন

    কেন্দ্রীয় কারাগারের এক আসামির ঢামেকে মৃত্যু

    সুদের টাকা দিতে না পারায় কৃষকের ষাঁড় নিয়ে গেল দাদন ব্যবসায়ীরা

    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা দশে রিশাদ

    ‘তুফান’ সিনেমার ট্রেলার, শাকিব-চঞ্চলের সেয়ানে সেয়ানে লড়াইয়ের পূর্বাভাস