বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

সেকশন

 

গাজার বেসামরিক নাগরিক হত্যা বন্ধে নেতানিয়াহুকে বাইডেনের আল্টিমেটাম 

আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:০৭

বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকে নেতানিয়াহু। ছবি: এএফপি  গাজায় বেসামরিক নাগরিক হত্যা বন্ধ করতে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে আল্টিমেটাম দিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বলেছেন, গাজার বেসামরিক নাগরিক ও ত্রাণ সহায়তাকর্মীদের হত্যা বন্ধ না হলে হামাসবিরোধী লড়াইয়ে ইসরায়েলকে আর সহায়তা দেবে না তাঁর দেশ। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল বৃহস্পতিবার নেতানিয়াহুর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপকালে বাইডেন এই আল্টিমেটাম ও হুমকি দেন। হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

বাইডেন-নেতানিয়াহুর ফোনালাপের বিষয়ে এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস বলেছে, ‘তিনি (জো বাইডেন) স্পষ্ট করেছেন যে, গাজার বিষয়ে মার্কিন নীতি নির্ধারণ করা হবে উল্লিখিত বিষয়গুলো পূরণে ইসরায়েল তাৎক্ষণিক কী পদক্ষেপ নেয় সেগুলোর বিষয়ে আমাদের মূল্যায়নের পর।’ 

হোয়াইট হাউস সরাসরি না বললেও এ বিষয়ে অনেক স্পষ্ট বক্তব্য দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। তিনি বলেছেন, ‘দেখুন, আমি শুধু এটিই বলব, আমরা যে পরিবর্তনগুলো দেখতে চেয়েছি তা যদি আমরা দেখতে না পাই, তবে (ইসরায়েলকে সহায়তা দেওয়ার বিষয়ে) আমাদের নীতিতে পরিবর্তন হবে।’ 

গাজায় বেসামরিক প্রাণহানি বন্ধে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীকে নির্দিষ্ট কোনো পরামর্শ যুক্তরাষ্ট্র দিয়েছে কি না, সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি হোয়াইট হাউস। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, এই হুমকির অর্থ হলো জাতিসংঘে ইসরায়েলের প্রতি সমর্থন কমানো ও দেশটিতে অস্ত্র সরবরাহ ধীরগতি করার মতো পদক্ষেপ নিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। 

মার্কিন থিংকট্যাংক কাউন্সিল অন ফরেন রিলেশনসের বিশ্লেষক স্টিভেন কুক নেতানিয়াহু ও বাইডেনের মধ্যকার সম্পর্কের মধ্যে পরিবর্তন ঘটছে ইঙ্গিত করে বলেন, ‘এটি অনেকটা “সরাসরি যিশুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করার মুহূর্তের”—কাছাকাছি।’ ইংরেজি ভাষায় এই বাগধারা ব্যবহার করা হয় মূলত, যখন কোনো ব্যক্তি কঠিন হলেও তাঁর আগের অবস্থান থেকে সরে এসে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেন। 

অপর এক মার্কিন থিংকট্যাংক ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউট ফর নিয়ার ইস্ট পলিসির বিশ্লেষক ও বর্ষীয়ান সাবেক মার্কিন কূটনীতিক ডেনিস রস বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট (বাইডেন) কার্যত (নেতানিয়াহুকে) বলছেন, এই মানবিক চাহিদাগুলো পূরণ করুন নতুবা আমার কাছে (সামরিক) সহায়তার ওপর শর্ত আরোপ করা ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না।’ 
 
এদিকে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাইডেন-নেতানিয়াহু ফোনালাপের কয়েক ঘণ্টা পরেই ইসরায়েলি সরকার গাজায় ত্রাণ প্রবাহ বাড়ানোর জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপের ঘোষণা করেছে, যার মধ্যে ত্রাণসহায়তা প্রবেশের জন্য আশদুদ বন্দর ও উত্তর গাজার ইরেজ ক্রসিং খুলে দেওয়া এবং জর্ডান থেকে ত্রাণ সরবরাহ বাড়ানো। তবে এই পদক্ষেপগুলো মার্কিন দাবি পূরণের জন্য যথেষ্ট কি না তা স্পষ্ট নয়।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    নেতানিয়াহুর সরকারকে উৎখাত করা সম্ভব: ইয়ার লাপিদ

    যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা ভেঙে দিলেন নেতানিয়াহু

    সৌদি আরবে প্রচণ্ড গরমে ১৯ হজযাত্রীর মৃত্যু

    গাজাবাসীর ঈদ আনন্দ কেড়ে নিয়েছে ইসরায়েল 

    আল-আকসার ঈদের জামাতে ৪০ হাজার মুসল্লি 

    গাজায় আক্রমণে ‘কৌশলগত বিরতি’ ঘোষণা ইসরায়েলের

    বাংলাদেশের সুপার এইটের ম্যাচ দেখবেন কোথায় 

    রোহিঙ্গাদের কারণে এনআইডি পেতে ৩২ উপজেলার মানুষের ভোগান্তি

    রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

    ম্যাচসেরা

    ইংলিশ সল্টের ঝাঁজ ভালোই টের পেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

    দুদিনেও উইকেটের দেখা পাননি শান্তরা

    কোটিপতি কমলেও ক্ষুদ্র হিসাব বেড়েছে