শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

গ্রিসে ঠিকই পৌঁছলেন গোলাপগঞ্জের ইমরান, তবে লাশ হয়ে

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:২৭

ইমরানের মরদেহটি এখন গ্রিসের মর্গে। ছবি: সংগৃহীত উন্নত জীবনের আশায় অবৈধপথে ইউরোপের দেশ গ্রিসে পাড়ি জমিয়েছিলেন সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার যুবক ইমরান; পৌঁছলেনও। কিন্তু জীবিত নয়, লাশ হয়ে। উপার্জনের স্বপ্ন পূরণ না হওয়া এ যুবকের মরদেহটি এখন গ্রিসের আলেকজান্দ্রোপলি মর্গে রয়েছে। নিহতের ছোট ভাই সলমান আহমদ চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইমরান আহমদ চৌধুরী এবাদ গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাঘা ইউনিয়নের দক্ষিণবাঘা গ্রামের মৃত ইকবাল আহমদ চৌধুরীর ছেলে। তিনি রেইনবো গ্রুপের প্রতিষ্ঠান জাস্ট অর্ডারের পরিচালক ছিলেন।

বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি শাহনুর রিপন জানান, পাসপোর্টের ঠিকানা অনুসারে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার ইমরান নামের যুবকের মরদেহ আলেকজান্দ্রোপলি মর্গে রয়েছে।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ইউরোপে যাওয়ার উদ্দেশ্যে প্রায় ২ বছর আগে দেশ ছাড়েন ব্যবসায়ী ইমরান আহমদ চৌধুরী এবাদ। কয়েক মাস আগে সে দালালের মাধ্যমে অবৈধভাবে দুবাই থেকে ইরান হয়ে তুর্কি যায়। এরপর কয়েক মাস ইমরানের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এমন পরিস্থিতিতে তুর্কি থেকে গ্রিসে পৌঁছে দেওয়ার এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করেন নিহতের ভাই সলমান।

এতে এজেন্সির লোক তাঁকে বলে—ইমরান গ্রিসের কুমুদিনী ক্যাম্পে আছে। সবশেষ গত ৭ সেপ্টেম্বর ভাইয়ের সন্ধান চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন নিহতের ভাই সলমান। পরে বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারেন ইমরান ১৮ জুলাই তুর্কি থেকে গ্রিসে যাওয়ার পথে গ্রিসের সীমান্তে ঢুকে অসুস্থ হয়ে মারা যান।

তবে ৫-৬ দিন আগে এক সিরিয়ান নাগরিক ফেসবুকের মাধ্যমে ইমরানের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে মৃতদেহের সন্ধান দেন। মরদেহটি দেশে আনার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ইমরানের ভাই সলামান।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    যানজট কমাতে ১০ বছরে খরচ হয়েছে ৪৩ হাজার কোটি টাকা

    যানজট কমাতে ১০ বছরে খরচ হয়েছে ৪৩ হাজার কোটি টাকা

    কণ্ঠ হারিয়েছেন বাপ্পী লাহিড়ি? ছেলে বললেন, ‘একেবারেই মিথ্যে’

    কণ্ঠ হারিয়েছেন বাপ্পী লাহিড়ি? ছেলে বললেন, ‘একেবারেই মিথ্যে’

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা