শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

ঘুষ চাওয়ার অভিযোগে স্যানিটারি ইন্সপেক্টরকে গণধোলাই

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৫৩

তাড়াশে গণধোলাইয়ের শিকার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর শহিদুল ইসলাম রন্টু। ছবি: আজকের পত্রিকা সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ভেজাল পণ্যের অভিযোগ তুলে হাটের ব্যবসায়ীদের কাছে ঘুষ দাবি করায় স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও তার এক সহযোগীকে গণধোলাই দিয়ে আটকে রাখেন বাজারের ব্যবসায়ীরা। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার ধামাইচ হাটে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করেন।

পুলিশ ও ব্যবসায়ীরা জানান, তাড়াশ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত স্যানিটারি ইন্সপেক্টর এস. এম. শহিদুল ইসলাম রন্টু ও নৈশ প্রহরী গোরাচাঁদ ধামাইচ হাটে গিয়ে ভেজাল পণ্যের অভিযোগ তুলে ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে মোটা অঙ্কের ঘুষ দাবি করেন। এ সময় ব্যবসায়ীরা ঘুষ দিতে রাজি না হলে ব্যবসায়ীদের জেল জরিমানার ভয় দেখান। এতে ব্যবসায়ী ও হাটের লোকজন উত্তেজিত হয়ে তাদের গণপিটুনি দিয়ে আটকে রাখেন।

ধামাইচ হাটের হোটেল ব্যবসায়ী রায়হান আলী বলেন, স্যানিটারি ইন্সপেক্টর শহিদুল ইসলাম প্রায়ই বাজারে গিয়ে ব্যবসায়ীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষ নিয়ে থাকেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ধামাইচ হাটে এসে অনেক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে মোটা অঙ্কের ঘুষ দাবি করেন।

মসলা ও তেল বিক্রেতা আনিসুল হক বলেন, আমার দোকানে এসে স্যানিটারি ইন্সপেক্টর পণ্যে ভেজাল আছে বলে ঘুষ দাবি করেন। এ সময় কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে উত্তেজিত লোকজন তাঁদের মারধর করে জামা-কাপড় ছিঁড়ে ফেলেন। 

অভিযোগ অস্বীকার করে শহিদুল ইসলাম বলেন, পরিকল্পিত ভাবে আমাকে লাঞ্ছিত ও অপমানিত করা হয়েছে। আমি পণ্যের গুণগত মান যাচাই করতে গিয়েছিলাম। আমি কখনোই ঘুষ দাবি করিনি।

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলে আশিক জানান, খবর পেয়ে ধামাইচ হাট থেকে তাঁদের উদ্ধার করা হয়। পরে রাত আটটার সময় মুচলেকা দিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা তার জিম্মায় তাঁদের নিয়ে যান। 

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা জামাল মিয়া বলেন, খবর পেয়ে তাদের উদ্ধারের ব্যবস্থা করা হয়। তাঁদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    যানজট কমাতে ১০ বছরে খরচ হয়েছে ৪৩ হাজার কোটি টাকা

    যানজট কমাতে ১০ বছরে খরচ হয়েছে ৪৩ হাজার কোটি টাকা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    ৩০ সেপ্টেম্বর উচ্চ মাধ্যমিকের জন্য খুলছে ঢাকা কলেজের ছাত্রাবাস

    ৩০ সেপ্টেম্বর উচ্চ মাধ্যমিকের জন্য খুলছে ঢাকা কলেজের ছাত্রাবাস

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির