শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

সেকশন

 

ফলন ভালো হলেও দাম কম থাকায় হাসি নেই গমচাষিদের মুখে

আপডেট : ২০ মার্চ ২০২৪, ১৩:৪৮

গম কেটে মাথায় করে বাড়ি নিয়ে যাচ্ছেন কৃষকেরা। ছবি: আজকের পত্রিকা যশোরের ঝিকরগাছায় এ বছর গমের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে বাজারে গমের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে কৃষকেরা হতাশ। মণপ্রতি গমের দামের চেয়ে উৎপাদন খরচ বেশি হওয়ায় বড় ধরনের লোকসানের মুখে পড়েছেন তাঁরা। কৃষকের অভিযোগ, গত বছর যে গমের দাম ছিল ২ হাজার টাকা, এবার তা ১ হাজার ৩০০ টাকা মণ দরে বিক্রি করছেন।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ১৫০ হেক্টর জমিতে গমের চাষ হয়েছে। এর মধ্যে বারি গম ৩০, ৩৩, বি-ডব্লিউএমআরআই-৩ জাতের চাষ বেশি হয়েছে। এর আগে ২০১৭ সালে ব্লাস্টের কারণে গম চাষ নিষিদ্ধের আগে এ উপজেলায় ৩৫০ হেক্টর জমিতে গমের আবাদ করা হতো। গত দুই-তিন মৌসুমে আবার কৃষকেরা এই আবাদে ফিরেছেন। 

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার অধিকাংশ মাঠে গম কাটা হয়ে গেছে। অনেকে কেটে-ঝেড়ে গম বিক্রিও করেছেন। রোজার মাস চলায় ও ঈদ ঘনিয়ে আসায় কেনাকাটার প্রয়োজনে লোকসানেই গম বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন অনেক কৃষক। বর্তমান যে বাজারদর, তাতে গত বছরের তুলনায় অনেক কম দামে গম বিক্রি করে চাষিরা লোকসান গুনছেন। 

কথা হয় উপজেলার বল্লা গ্রামের ইজহারুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এক বিঘা জমিতে গমের আবাদ করেছিলাম। খেতে চাষ দেওয়া, বীজ বপন, সেচ দেওয়া, সার প্রয়োগ, কীটনাশক দেওয়া, কাটা-বাঁধা, ঝাড়াসহ সাড়ে ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। সাড়ে ১১ মণ গম পেয়েছি। ১ হাজার ৩০০ টাকা করে মণ বিক্রি করেছি। তাতে যে টাকা হয়েছে, নিজের জমি তাই পিঠ বেঁচেছে। অথচ গতবারও ২ হাজার টাকা মণ পেয়েছিলাম।’ 

উপজেলার বোধখানা গ্রামের বেলেমাঠপাড়ার হারুন অর রশিদ বলেন, ‘২১ শতক জমিতে ১৩ মণ গম পেয়েছি, যা আগে কখনো হয়নি। কিন্তু দাম কম থাকায় বিক্রি করিনি।’ 

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মাসুদ হোসেন পলাশ আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘এ বছর তিনটি কারণে গমের ফলন ভালো হয়েছে। প্রধানত এই মৌসুমে মধ্য জানুয়ারিতে বৃষ্টিপাত হয়েছিল, তাতে গমের উপকার হয়েছে। তা ছাড়া শীত বেশি দিন পড়েছে, তাতে গমের ফলন ভালো হয়েছে এবং এ বছর অধিকাংশ কৃষক বি-ডব্লিউএমআরআই-৩ জাতের গম চাষ করেছেন। এই জাতের গম ব্লাস্ট রোগ প্রতিরোধী।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে ঘুরতে দেখে যুবকের ‘আত্মহত্যা’

    সিলেটে চিনি ছিনতাই কাণ্ডে এবার পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি গ্রেপ্তার

    রোহিঙ্গা তরুণকে জন্মসনদ দেওয়ার অভিযোগে ইউপি সচিব গ্রেপ্তার

    ‘পাঁচ টাকা কমে ধুন্দল বিক্রি’, চাচাকে পিটিয়ে হত্যা করল ভাতিজা

    বিয়েবাড়িতে উচ্চ শব্দে গান বাজানো নিয়ে সংঘর্ষ, কনেসহ আহত ১০

    ফরিদপুরে ‘রাসেলস ভাইপারের’ ছোবলে কৃষকের মৃত্যু

    রাশিয়ার শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে মাদ্রাসাছাত্র তামিম

    নবীজির রওজা জিয়ারতে আদব

    চোখের স্ট্রোক প্রতিরোধ করা সম্ভব

    ভারতের সঙ্গে চুক্তির আগে দেশের নিরাপত্তার কথা ভাবতে হবে

    বর্ষায় শাক খাওয়ায় সতর্কতা

    এ সময়ের কাঁঠাল