বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

বৈঠকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:০৫

মির্জা ফখরুল। ফাইল ছবি বিএনপির তিন দিনের ধারাবাহিক বৈঠকের প্রথম দিন ছিল আজ। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টা থেকে সাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। গুলশানের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মির্জা ফখরুল বলেন, 'দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং সাংগঠনিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এর বাইরে এখন আর কিছু বলার নেই। আগামীকাল বুধ ও এর পরদিন বৃহস্পতিবারের বৈঠকের পর বিস্তারিত জানানো হবে।' 

আজকের এই বৈঠকে দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মিলে উপস্থিত ৬২ জনের মধ্যে ২৮ জন বক্তব্য রাখেন। বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন। 

বৈঠকে অংশ নেওয়া কয়েক জন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৈঠকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বর্তমান পরিস্থিতিতে দলের করণীয় সম্পর্কে সবার মতামত নিয়েছেন। বক্তারা আগামী নির্বাচনকে ঘিরে দলকে সুসংহত করার পরামর্শ দেন। অধিকাংশ নেতাই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবির আন্দোলনে যাওয়ার পক্ষে মত দেন। নির্বাচন কমিশন গঠনের আগেই কঠোর আন্দোলন করার পরামর্শও দেন কেউ কেউ। বৈঠকে বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে না যাওয়ার পক্ষে মত দেন নেতারা। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে অধিকাংশ নেতা আন্দোলন জোরদার করার পক্ষে মতামত ব্যক্ত করেন। কেউ কেউ দলের অঙ্গসংগঠনগুলো বিশেষ করে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্রদলের নেতৃত্ব পূর্ণগঠনের কথা বলেন। একই সঙ্গে মিত্র সংগঠন জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে ঝুলে থাকা বিষয়টি সুরাহা করার বিষয়েও পরামর্শ দেন বক্তারা। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দলের এক ভাইস চেয়ারম্যান আজকের পত্রিকাকে জানান, সাড়ে চার ঘণ্টার বৈঠকে অনেকেই কথা বলেছেন। কিন্তু বেশির ভাগ বক্তাই মতামতের চেয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের তোষামোদ করায় ব্যস্ত ছিলেন। মনে ক্ষোভ নিয়েও অনেকে পরিবেশ-পরিস্থিতি বুঝে সেই ক্ষোভ ঝাড়তে পারেননি। তবে এর ব্যতিক্রমও ছিল বৈঠকে। দলে নানাভাবে বঞ্চনার শিকার দু-একজন নেতা কিছুটা ক্ষোভ ঝেড়েছেন।

আগামীকাল বুধবার দ্বিতীয় দিনে হবে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক ও সহ সম্পাদকবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক এবং পরদিন বৃহস্পতিবার হবে দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের বৈঠক। 

উল্লেখ্য, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাবন্দী হওয়ার আগে ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সর্বশেষ বৈঠক হয়েছিল। তারেক রহমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্ব নেওয়ার পর দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি প্রথম ধারাবাহিক বৈঠক।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    শেখ হাসিনার ‘ক্রাউন জুয়েল’ অর্জনে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

    শেখ হাসিনার ‘ক্রাউন জুয়েল’ অর্জনে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

    আতঙ্ক থেকে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার: মির্জা ফখরুল

    আতঙ্ক থেকে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার: মির্জা ফখরুল

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ