শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

পাক সীমান্তে আটকে আছে হাজার হাজার আফগান জনগণ

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩৫

স্যাটেলাইট থেকে প্রাপ্ত চানমান সীমান্তের ছবি। সংগৃহীত   তালেবান কাবুল নিয়ন্ত্রণের পর সেখানকার বিমানবন্দর দিয়ে মরিয়া হয়ে আফগানিস্তান ছাড়ার চেষ্টা করেছেন হাজার হাজার মানুষ। তখন সেটি খবর হয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে। তবে আকাশপথ ছাড়া স্থলপথেও আফগানিস্তান ছাড়তে মরিয়া হয়ে ছুটছে আফগান জনগণ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি স্যাটেলাইট থেকে প্রাপ্ত ছবির বরাত দিয়ে এমনটি জানিয়েছে।  

স্যাটেলাইটের ছবিতে দেখা যায়, আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের স্পিন বলডাকের চানমান সীমান্তে পাকিস্তান যেতে ভিড় করেছেন হাজার হাজার আফগান জনগণ । 

স্পিন বলডাক ছাড়াও আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ সীমান্তগুলো হলো তাজিকিস্তান ঘেঁষা শির খান, ইরান ঘেঁষা ইসলাম কালা এবং পাকিস্তান ঘেঁষা তরখাম।

এর মধ্যে সবচেয়ে গত কয়েক সপ্তাহ আফগান জনগণের চাপ বেড়েছে চানমান সীমান্তে। আফগানিস্তানের কাবুল এবং অন্যান্য শহর থেকে আসা মানুষজন দেশ ছাড়ার অপেক্ষায় আছেন এই সীমান্তে।

গত ৬ সেপ্টেম্বর স্যাটেলাইট থেকে প্রাপ্ত ছবি দেখা যায়, হাজার হাজার মানুষের ভিড় আফগানিস্তানের অংশে। এরই মধ্যে পাকিস্তান ওই সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে। 

তালেবান ক্ষমতায় আসার পরই আফগানিস্তান ছাড়তে শুরু করেছে স্থানীয় জনগণ। যদিও তালেবান বলছে, তারা এবার আরও মধ্যপন্থী নীতি অবলম্বন করবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    নারী শিক্ষার্থী ছাড়াই চালু হচ্ছে আফগানিস্তানের মাধ্যমিক স্কুল

    নারী শিক্ষার্থী ছাড়াই চালু হচ্ছে আফগানিস্তানের মাধ্যমিক স্কুল

    দুর্নীতির মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন সু চি 

    দুর্নীতির মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন সু চি 

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ

    ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ

    করোনায় ব্যাংকে লাভ ছাঁটাই উভয়েই রেকর্ড

    করোনায় ব্যাংকে লাভ ছাঁটাই উভয়েই রেকর্ড

    ‘নাট্যকলায় পড়তে আমি ঘর পালাইছিলাম’

    ‘নাট্যকলায় পড়তে আমি ঘর পালাইছিলাম’

    ইমো এবং আরও কিছু

    ইমো এবং আরও কিছু

    নিজেই তো বুইসতে পাচ্ছি নাকো আপা!

    নিজেই তো বুইসতে পাচ্ছি নাকো আপা!

    ২০২৩ সাল থেকে নিশ্চিত হবে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ

    ২০২৩ সাল থেকে নিশ্চিত হবে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ