বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

৮৫ কর্মকর্তা দিয়ে ১৮ কোটি মানুষকে সেবা দেওয়া কঠিন

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৮

বাবলু কুমার সাহা ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জ, ধামাকা শপিংসহ বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। গ্রাহকদের টাকা ফিরিয়ে দিতে কী করছে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর? এসব বিষয়ে আজকের পত্রিকার সঙ্গে কথা বলেছেন ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা।  সাক্ষাৎকার নিয়েছেন অর্চি হক

আজকের পত্রিকা:  ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে এগারো শ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। গ্রাহকদের টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর কী করছে? 
বাবলু কুমার সাহা: যারা আন্দোলন বিক্ষোভ করছে, তাদের দাবির সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পর্ক নেই। আমাদের কাছে যারা অভিযোগ করেছে, তাদের যাতে সর্বোচ্চ সেবা দিতে পারি, সেটা আমরা দেখব। আমাদের সীমাবদ্ধতা আছে। প্রতিটি আইনের একটা সীমানাপ্রাচীর আছে। আমাদের আইনে আছে—এ ধরনের ঘটনায় সর্বোচ্চ শাস্তি ২ লাখ টাকা জরিমানা। এই ২ লাখ টাকা জরিমানা করলে অভিযোগকারী পাবে ৫০ হাজার টাকা। তাহলে যার ১০ লাখ, ২০ লাখ গেছে, তাদের জন্য আমার কী-ইবা করতে পারি? আরেকটা কাজ আমরা করতে পারি, সেটা হলো যারা এগুলো করছে, তাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া। আমাদের আইনে এতটুকুই আছে।
 
আজকের পত্রিকা: ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষায় এই আইনটাকে কঠোর করার ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে? 
বাবলু কুমার সাহা: এখন এই আইনটা সময়োপযোগী করার প্রক্রিয়া চলছে। আইনটা একবার ক্যাবিনেটে গেছে। ক্যাবিনেট তাদের পর্যবেক্ষণ দেওয়ার পর সেটা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এটা দেখে আবার ক্যাবিনেটে পাঠাবে। তবে আইন যত বড়ই হোক, সেটি বড় কথা নয়। এই অধিদপ্তরের ব্যাপক প্রচার-প্রসার হলেও আমাদের জনবল কিন্তু কম। সারা বাংলাদেশে আমাদের লোকবল মাত্র ২৪০ জন। কর্মকর্তা আছেন ৮৫ জন। ৮৫ জন কর্মকর্তা দিয়ে ১৮ কোটি মানুষকে সেবা দেওয়া কঠিন। তার পরও এই অধিদপ্তর সাধ্যমতো চেষ্টা করছে। যখন সারা বাংলাদেশে সাধারণ ছুটি ছিল, তখনো আমরা কাজ করেছি। ঈদের দিনেও আমাদের কাজ করতে হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি। 

আজকের পত্রিকা: ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়ে করা অভিযোগ নিষ্পত্তিতে কী করছে অধিদপ্তর? 
বাবলু কুমার সাহা: আমরা ভোক্তাস্বার্থ দেখার চেষ্টা করি। যেমন ইভ্যালির অধিকাংশ অভিযোগ আমরা নিষ্পত্তি করেছি। দুই পক্ষকে ডেকে বুঝিয়ে মীমাংসা করার এখতিয়ার আছে আমাদের। ইভ্যালির ক্ষেত্রে এটা আমরা করেছি। অভিযোগকারী হয় পণ্য, না হয় টাকা পেয়ে গেছে। কিন্তু ই-অরেঞ্জের ক্ষেত্রে বিষয়টা একেবারেই ভিন্ন। এখানে কোনো মালিকপক্ষই পাওয়া যাচ্ছে না। সে কারণে আমরা অপেক্ষা করছি। দেখা যাক কী হয়। আমাদের অধিদপ্তরের আইন তো খুব বড় নয়। দেশে প্রচলিত আরও অনেক বড় বড় আইন আছে। ভোক্তাদের উদ্দেশে আমার কথা হলো, আপনারা দয়া করে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলো দেখে বুঝে-শুনে তারপর ওদের থেকে পণ্য অর্ডার করুন। 

আজকের পত্রিকা: ই-অরেঞ্জ গ্রাহকেরা বলছেন, তাঁরা ইক্যাব সদস্যপদ দেখে এবং পাশাপাশি একজন সাংসদের কথায় আস্থা রেখে প্রতিষ্ঠানটিতে পণ্য অর্ডার করেছিলেন। 
বাবলু কুমার সাহা: অন্য কারও বিষয়ে আমি বলতে চাই না। প্রতিষ্ঠানগুলো অর্ধেক দামে পণ্য দেওয়ার নামে ক্রেতাদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। যে পণ্যগুলোর তারা উৎপাদক না, সেটা কীভাবে তারা অর্ধেক মূল্যে দেবে, এ বিষয়টা ক্রেতার উচিত ভেবে দেখে তারপর টাকাটা দেওয়া। মানুষ ২০ লাখ, ৫০ লাখ, কেউ আবার ১ কোটি টাকা দিয়েছে। এরা কি ভোক্তা, নাকি ব্যবসায়ী? একটা মানুষের কয়টা মোটরসাইকেল দরকার? আমি দেখলাম, যাঁরা অভিযোগ করছেন, ৯৯ শতাংশেরই মোটরসাইকেল অর্ডার করা। যুবক, ডেসটিনির ঘটনা আমাদের জানা। ইতিহাস থেকে তো মানুষ শিক্ষা নেয়। তাহলে আমরা কেন শিক্ষা নিচ্ছি না? মুলা ঝুলিয়ে দিল ৭ টাকার জিনিস আপনাকে ৩ টাকায় দেওয়া হবে। আর মানুষও কোটি কোটি টাকা দিয়ে দিল। অধিদপ্তরটার নাম ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ, ব্যবসায়ী অধিকার সংরক্ষণ নয়। একজনের ১৫টা মোটরসাইকেল কেন লাগবে? যুক্তিসংগত কোনো কারণ আছে? এগুলো নিয়েও বিশ্লেষণ করা উচিত। 

আজকের পত্রিকা: ভোক্তাকে সচেতন করতে অধিদপ্তর কী করছে? 
বাবলু কুমার সাহা: ভোক্তাকে সচেতন করার জন্য আমরা পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিচ্ছি। আমরা বারবার বলছি, অনলাইনে ক্রয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য শর্তাবলি যাচাই করে নিশ্চিত হয়ে ক্রয় করুন। আমরা নিয়মিতভাবে ভোক্তাদের সচেতন করার চেষ্টা করছি। কখনো সরাসরি মিটিং করে, কখনো পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এই অধিদপ্তর ভোক্তাদের সচেতন করতে কাজ করছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ডিসেম্বরেই ভিয়েতনামের চেয়ে ৫ বিলিয়ন ডলার বেশি রপ্তানি হবে

    ডিসেম্বরেই ভিয়েতনামের চেয়ে ৫ বিলিয়ন ডলার বেশি রপ্তানি হবে

    পণ্যের বৈচিত্র্যকরণ  করে এগোতে হবে

    পণ্যের বৈচিত্র্যকরণ করে এগোতে হবে

    ডেসকোর অধিকাংশ গ্রাহকের প্রিপেইড মিটার আছে

    ডেসকোর অধিকাংশ গ্রাহকের প্রিপেইড মিটার আছে

    ২০২৫ সালে বিদ্যুৎবিভ্রাট শূন্যের কোঠায় নামবে

    ২০২৫ সালে বিদ্যুৎবিভ্রাট শূন্যের কোঠায় নামবে

    ২০২৩ সাল থেকে নিশ্চিত হবে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ

    ২০২৩ সাল থেকে নিশ্চিত হবে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ

    আমানতকারীদের স্বার্থই ব্যাংকের অগ্রাধিকার হওয়া উচিত

    আমানতকারীদের স্বার্থই ব্যাংকের অগ্রাধিকার হওয়া উচিত

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ