বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

‘সাইজমতো জুতা খুঁজে পাচ্ছি না’

আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:২০

১৮ মাস পরে স্কুল খুলছে, ক্লাসে যাবে সাউথ পয়েন্ট স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ফাহিম মোসলেহিন। কিন্তু স্কুলড্রেস-জুতা তো আর গায়ে-পায়ে লাগছে না। এমন পরিস্থিতিতে স্কুল থেকে নির্ধারিত ড্রেস কিনে আনলেও একের পর এক দোকান ঘুরেও মাপমতো জুতা কিনতে পারছেন না পিতা মোসলেহ উদ্দিন।

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত পিতা মোসলেহ উদ্দিন বললেন, কাল স্কুল খুলবে। পুরাতন জুতা তার পায়ে লাগছে না। জুতা তো কিনতেই হবে। স্কুল ড্রেসও লাগে না। ওইটা স্কুল থেকে কিনে নিয়েছি।

কারণ, ওদের এই বয়সটা হলো প্রতি বছরই গ্রো করে। ফিজিক্যাল চেঞ্জ হয়। বাসায় থেকে কিছুটা বালকিও হয়ে গেছে। এতে গত বছরের কোন জামাকাপড়ই তার গায়ে লাগছে না। এখন বাধ্য হয়ে সবকিছুই নতুন করে কিনতে হচ্ছে। স্কুলের নিজস্ব টেইলার্স আছে, ড্রেসটা তারাই বিক্রি করে। স্কুল খোলার ঘোষণার পর গত সপ্তাহে কিনে এনেছি। জুতাটা বাকি।

বসুন্ধরায় বাটাতে জুতার সাইজ পাইনি। তাই বাইরে শো-রুমে খুঁজছি। সাইজ সংকট। সেলসম্যানরা বলছেন, স্যার অনেক সাইজ মার্কেট আউট হয়ে গেছে কয়েক দিন আগেই। হঠাৎ ডিসিশন, এর মাঝে প্রডাকশন হয়নি। নতুন জুতা আসতে ১-২ মাস। এখন আমিও বাধ্য হয়েই জুতা খুঁজছি, যে জুতা পায়েই লাগছে না তা দিয়া কীভাবে ছেলে স্কুলে যাবে বলেও প্রশ্ন এ বাবার।

স্কুল খোলার বিষয়ে শিশু ফাহিমেরও উচ্ছ্বাসের শেষ নেই। মোসলেহ উদ্দিনের ভাষায়, 'ডেফিনেটলি হি ইজ ভেরি মাচ এক্সাইটেড। প্রচণ্ড উচ্ছ্বাস। সে গত বছর থেকেই আমাকে অস্থির করছে। স্কুল বন্ধের পর কয়েক মাস ওকে। বাট এর পরেই বলেছে, ভাল্লাগছে না বাসায় থাকতে।’

সপ্তাহে একদিন-দুই দিন ক্লাস হবে শুনে সে বলেছে-কেন প্রতিদিন না? লাস্ট উইকে অনলাইন পরীক্ষা হয়েছে। খাতা জমা দিতে মায়ের সঙ্গে স্কুলে গেছে। স্কুল ক্যাম্পাস দেখেছে, দু-একজন বন্ধুর সঙ্গে দেখা হয়েছে, মিসের সঙ্গে কথা হয়েছে। সব মিলে খুবই এক্সাইটেড।

করোনার মাঝে হঠাৎ করে ইউনিফর্ম কেনা সবার জন্য সহজ নয় বলে স্বীকার করেন মোসলেহ উদ্দীন। তবে ১০ থেকে ১৫ বছর বয়সে ছেলে মেয়েদের শরীরে আসা পরিবর্তনের কারণে প্রতি বছরই নতুন ইউনিফর্ম লাগে বলেও তিনি মনে করেন। তাঁর মন্তব্য, বাচ্চাদের পড়াশোনা করাতে হলে এগুলো কেনা তো বাধ্যতামূলক।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    হাওয়ায় নিমেষে বিলীন হয় বলেই নাম ‘হাওয়াই মিঠাই’

    হাওয়ায় নিমেষে বিলীন হয় বলেই নাম ‘হাওয়াই মিঠাই’

    'ছেঁড়া রুটি'  বিক্রি করে সংসার চালায় ছোট্ট কামরুল

    'ছেঁড়া রুটি' বিক্রি করে সংসার চালায় ছোট্ট কামরুল

    তিনি রিকশা চালান শখে এবং সুখে

    তিনি রিকশা চালান শখে এবং সুখে

    ৫ টাকার দুঃখ

    ৫ টাকার দুঃখ

    টুলির দুঃখ ঘুচল না

    টুলির দুঃখ ঘুচল না

    পুরোনো দিনের কথা মনে পড়ে যায়

    পুরোনো দিনের কথা মনে পড়ে যায়

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ