শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

পূর্ণ টিকা দেওয়া ব্যক্তিদের মৃত্যুঝুঁকি ১১ গুণ কম : যুক্তরাষ্ট্র 

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৭

প্রতীকী ছবি পূর্ণ টিকা দেওয়া ব্যক্তিদের করোনায় মৃত্যুর ঝুঁকি ১১ গুণ কম। পাশাপাশি তাদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঝুঁকিও ১০ গুণ কম। যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ স্থানীয় সময় শুক্রবার এমনটি জানিয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) পক্ষ থেকে প্রকাশিত তিনটি প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে। এই গবেষণাগুলোর মধ্যে একটি যুক্তরাষ্ট্রে ডেলটা ধরন ছড়িয়ে পড়ার পর করা হয়েছে। 

এর মধ্যে একটি গবেষণার তথ্য থেকে বোঝা যায় যে মডার্নার ভ্যাকসিন ডেলটা ধরনের বিরুদ্ধে কিছুটা উচ্চমাত্রার সুরক্ষা দিয়েছে। 

এই গবেষণা প্রকাশে আগের দিন অর্থাৎ স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, যেসব প্রতিষ্ঠানে শতাধিক লোক কাজ করে, তাদের স্টাফদের বাধ্যতামূলক করোনার টিকা দিতে হবে। একই সঙ্গে সাপ্তাহিক করোনা টেস্ট করার নির্দেশও দিয়েছেন তিনি। 

স্থানীয় সময় শুক্রবার একটি সংবাদ সম্মেলনে সিডিসির পরিচালক রোশেলি ওয়ালেনস্কি বলেন, গবেষণার পর আমরা দেখেছি যে ভ্যাকসিন কাজ করছে। 

প্রথম গবেষণাটি যুক্তরাষ্ট্রের ১৩টি জুরিসডিকশনে গত ৪ এপ্রিল থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত চালানো হয়। গবেষণাটিতে অংশ নেন লাখ লাখ মানুষ। এ সময় যুক্তরাষ্ট্রে ডেলটার প্রকোপ তেমন ছিল না। পরের গবেষণাটি করা হয় ২০ জুন থেকে ১৭ জুলাই পর্যন্ত। এ সময় যুক্তরাষ্ট্রে ডেলটার প্রকোপ দেখা দেয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সিডিসি ও খাদ্য এবং ওষুধ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, টিকার বুস্টার ডোজ লাগবে কি না, তারা এখন সে বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করছে। ধারণা করা হচ্ছে, এই মাসের পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে বয়োজ্যেষ্ঠদের টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হবে। 

একটি গবেষণায় যুক্তরাষ্ট্রের ৪০০ হাসপাতালে জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। এর মধ্যে দেখা গেছে, হাসপাতালে ভর্তি ঠেকাতে মডার্নার ভ্যাকসিন ৯৫ শতাংশ সক্ষম, ফাইজারের ভ্যাকসিন ৮০ শতাংশ সক্ষম এবং জনসনের টিকা ৬০ শতাংশ সক্ষম।

করোনার টিকাগুলো হাসপাতালে ভর্তি ঠেকাতে গড়ে ৮৬ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকর। তবে ৭৫-এর বেশি বয়স্কদের ক্ষেত্রে এই কার্যকারিতা কমে ৭৬ শতাংশে দাঁড়ায়। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    সৌদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা

    সৌদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা

    যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য-অস্ট্রেলিয়ার চুক্তিকে 'দায়িত্বজ্ঞানহীন' বলছে চীন   

    যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য-অস্ট্রেলিয়ার চুক্তিকে 'দায়িত্বজ্ঞানহীন' বলছে চীন   

    ক্যালিফোর্নিয়ায় আগুন: বিশ্বের সবচেয়ে বড় গাছের চারপাশ চাদর দিয়ে মোড়ানো হয়েছে 

    ক্যালিফোর্নিয়ায় আগুন: বিশ্বের সবচেয়ে বড় গাছের চারপাশ চাদর দিয়ে মোড়ানো হয়েছে 

    ১৪ বছর পর ফেসবুকের মাধ্যমে মায়ের কাছে ফিরলেন মেয়ে

    ১৪ বছর পর ফেসবুকের মাধ্যমে মায়ের কাছে ফিরলেন মেয়ে

    ভারতে করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়েছে

    ভারতে করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়েছে

    প্রতিবেশী দুই পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে বৃদ্ধা নিহত

    প্রতিবেশী দুই পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে বৃদ্ধা নিহত

    দুর্গাপুরে তরুণীকে আটকে রেখে দেহব্যবসা, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

    দুর্গাপুরে তরুণীকে আটকে রেখে দেহব্যবসা, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

    নারী শিক্ষার্থী ছাড়াই চালু হচ্ছে আফগানিস্তানের মাধ্যমিক স্কুল

    নারী শিক্ষার্থী ছাড়াই চালু হচ্ছে আফগানিস্তানের মাধ্যমিক স্কুল

    দুর্নীতির মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন সু চি 

    দুর্নীতির মামলায় বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন সু চি 

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    জঙ্গি নয় সেদিন নিহত হন ১০ বেসামরিক আফগান নাগরিক 

    নাটোরে যুবলীগের বর্ধিত সভায় চেয়ার ছোড়াছুড়ি

    নাটোরে যুবলীগের বর্ধিত সভায় চেয়ার ছোড়াছুড়ি