বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

কাঠের গয়নাকাব্য

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০০

মডেল: জান্নাত গয়নার কথা বললে মনের কোণে ভেসে ওঠে না-দেখা এক গয়না গজমতির হার। রাজরানিদের গলায় থাকত সেসব। বইপত্রে পাওয়া যেত। থাকত সোনার বাজুবন্ধ, দুল, কাঁকন, সীতাহার আরও কত-কী! সময় বদলেছে। এখন এসেছে গয়নার উপকরণে ব্যাপক পরিবর্তন। এখন তৈরি হচ্ছে কাঠের গয়না। ট্রেন্ডই বলা চলে। গলার মালায়, কানের দুলে কাঠের পরতের ওপর বিভিন্ন আঁকিবুঁকি সেসব গয়নায়। রঙে রাঙিয়ে ফুটিয়ে তোলা হয় দারুণ কিছু। নকশায়ও থাকে বৈচিত্র্য।

রোজকার ফ্যাশনে নতুন কিছুর প্রত্যাশা করেন ফ্যাশনসচেতনরা। পোশাকের সঙ্গে গয়নায়ও চান ভিন্নতা। কাঠের গয়না এখন সে জায়গা নিয়েছে কিছুটা হলেও।
কাঠের গয়নার নকশায় রাখা হচ্ছে বিভিন্ন মোটিফ। কখনো ফুটিয়ে তোলা হয় প্রাণ ও প্রকৃতির বিভিন্ন অনুষঙ্গ। কখনো দুল-মালা-চুড়িতে শিউলি, সূর্যমুখী, কাঠগোলাপ আঁকা হয়। আবার কখনো আঁকা হয় জবা কিংবা অন্যান্য ফুল। এমনকি দুল ও মালার পুরো অবয়বই থাকে শিউলি, কাঠগোলাপ, আঙুর পাতা ইত্যাদি ঘিরেই। আবার কখনো কাঠের পরতে ফুটিয়ে তোলা হয় চুলখোলা কোনো নারীর প্রতিচ্ছবি ইত্যাদি।

মডেল: জান্নাত কাঠের গয়নায় হ্যান্ডপেইন্ট থাকে বেশি। হ্যান্ডপেইন্ট ছাড়াও গয়নায় বসানো হয় বিডস, কড়ি ও সুতার তৈরি বিভিন্ন জিনিসপত্র। গয়নার চেহারাটাই বদলে যায় এসবের কারণে। অনেকেই এখন বাণিজ্যিকভাবে কাঠের গয়না তৈরি করছেন। ‘রূপসা’র স্বত্বাধিকারী ঝুমকি বসু জানান, কাঠের গয়নায় তিনি সাধারণত নির্দিষ্ট উপলক্ষ কেন্দ্র করে মোটিভ নির্বাচন করেন। যেমন সামনে আছে দুর্গাপূজা। সে উপলক্ষে দুর্গা এবং দুর্গার সঙ্গে মানানসই বিভিন্ন উপাদান, যেমন শিউলি বা কাশফুল প্রাধান্য পাবে তাঁর বানানো গয়নায়। আবার ফাল্গুন বা বসন্তে মোটিফে আসে পরিবর্তন। বৈশাখের গয়নায় একতারা, মাছ, হাতি এসব তুলে ধরেন তিনি। এ ছাড়া তাঁর গয়নার ডিজাইনে রবিঠাকুর, লালন, হুমায়ূন আহমেদের কিছু উপন্যাস বা চরিত্রও আসে।

মডেল: সিমি, পোশাক: নীডস লাইফস্টাইল, ছবি: মারুফ হাসান ‘নয়া বায়না’র স্বত্বাধিকারী সানজানা এস পায়েল বলেন, ‘গয়না তৈরিতে কাস্টমারের চাহিদা প্রাধান্য দিই। এই গয়নার চাহিদা তরুণীদের মধ্যে, বিশেষ করে ছাত্রীদের মধ্যে অনেক বেশি। কোনো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হলে তখন হয়তো সব বয়সের মানুষই এগুলো কেনেন।’

কাঠের গয়নায় নিজের ইচ্ছেমতো রং নিয়ে খেলা যায়, অনেক কিছু ফুটিয়ে তোলা যায় নিজের মনের মাধুরী মিশিয়ে বলে জানান ‘এসটিলো’র স্বত্বাধিকারী আয়েশা আক্তার আশা। গয়না বানাতে তিনি দেশীয় কাঁচামাল প্রাধান্য দেন। কাঠের বেজগুলো চকবাজার থেকে এবং সুতা ও অন্যান্য জিনিস বিভিন্ন জায়গা থেকে সংগ্রহ করেন বলে জানান তিনি। আশা জানান, কাঠের গয়নায় রং করার ব্যাপারে বেশ সাবধান থাকতে হয়। কখনো কখনো পাকা রং পাওয়ার জন্য রোদে শুকাতে হয়।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    আরামের ভ্রমণে

    আরামের ভ্রমণে

    কাস্টার্ড চা

    কাস্টার্ড চা

    কাপড়ের দাগ নিয়ে কি করবেন

    কাপড়ের দাগ নিয়ে কি করবেন

    রূপেও আছে গুণেও আছে

    রূপেও আছে গুণেও আছে

    অ্যাকুয়ারিয়ামে গাপ্পি

    অ্যাকুয়ারিয়ামে গাপ্পি

    চকলেট ট্রাফল

    চকলেট ট্রাফল

    মাখোঁ-বাইডেনের ফোনালাপ, অক্টোবরে সাক্ষাৎ

    মাখোঁ-বাইডেনের ফোনালাপ, অক্টোবরে সাক্ষাৎ

    হাসপাতালে স্ত্রীর মরদেহ রেখে পালালেন স্বামী

    হাসপাতালে স্ত্রীর মরদেহ রেখে পালালেন স্বামী

    যৌন হেনস্তা নারীদের মস্তিষ্কের ক্ষতি করে

    যৌন হেনস্তা নারীদের মস্তিষ্কের ক্ষতি করে

    কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে আর বিনিয়োগ করবে না চীন

    কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে আর বিনিয়োগ করবে না চীন

    বিশ্বের দুই-তৃতীয়াংশ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে

    বিশ্বের দুই-তৃতীয়াংশ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে

    ভারত সীমান্তে মিয়ানমারের হাজারো নাগরিক

    ভারত সীমান্তে মিয়ানমারের হাজারো নাগরিক