বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

ট্র্যাজেডি নাকি কমেডি?

নাটক হিসেবে বিবেচনা করলে টাঙ্গাইলের কালিহাতীর ঘটনাটা ট্র্যাজেডি না কমেডি, তা এখনো বোঝা যাচ্ছে না। নাটক লেখা শুরু হয়েছে কেবল, এখনো যবনিকাপাত হয়নি। পানি উন্নয়ন বোর্ডের 

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০০

প্রকল্প বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না সাংসদের বালুর ব্যবসার কারণে। পরিকল্পনাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধারের জন্য যমুনা নদীর তীরে ৮৫ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। কিন্তু সেই অধিকৃত জায়গার একটি বড় অংশই দখল করে নিয়েছেন স্থানীয় সাংসদ ও তাঁর ব্যবসায়ের অংশীদার—অভিযোগটা এমনই। অর্থাৎ নাটকটির প্রথম অঙ্ক লেখা হয়েছে এবং ক্লাইমেক্স এখনো অনেক দূর বলেই মনে হচ্ছে।

প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ১২৫ কোটি টাকা। বেশ কয়েকটি নদীর প্রবাহ সচল হবে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্ভব হলে। এই তালিকায় আছে নতুন ধলেশ্বরী, ঝিনাই, বংশাই, তুরাগ হয়ে বুড়িগঙ্গা। তাহলে বোঝা যাচ্ছে, নাট্যকার এই সময় পর্যন্ত ঠিকভাবেই এগোতে পেরেছেন।

আমাদের নদীগুলোর যে দুর্দশা, তাতে সত্যিকার রক্ষণাবেক্ষণ করা না হলে অনেক দুর্গতিই পোহাতে হবে। আসলেই নদীকে ঠিকভাবে চলতে না দিয়ে, নদীর সঙ্গে বহু ধরনের দুর্ব্যবহার করে আমরা এরই মধ্যে বহু দুর্গতির শিকার হয়েছি। সেগুলো অন্য আলোচনার বিষয়। আমরা যদি এই একটি মাত্র নদী-নাটকের দিকে দৃষ্টি রাখি, তাহলে দেখব, একমাত্র এলাকার সাংসদ হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারীই শুধু বলছেন, তিনি কোনো ধরনের বালুর ব্যবসার সঙ্গে জড়িত নন। কেউ যদি তাঁর নাম বলে থাকে, তাহলে সে ভুল বলেছে।

সাংসদ খুবই দৃঢ়তার সঙ্গে কথাগুলো বলেছেন। কথাগুলো সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য। ‘হ্যাঁ, কথাগুলো’। কারণ, তাঁর এই কথাগুলোর সঙ্গে তিনি আরেকটি তথ্যও জুড়ে দিয়েছেন: ‘যাঁরা ব্যবসা করছেন, তাঁরা সিরাজগঞ্জ থেকে বালু কিনে এনে বিক্রি করছেন। বৈধ ব্যবসা অন্যায় কিছু নয়।’ এখানেও তো ঠিকই বলছেন তিনি! তবে আমরা অবাক হচ্ছি এই কারণে, প্রকল্পটিকে ব্যাহত করছে যে বালুর ব্যবসা, সেটা বৈধ কি অবৈধ, সে কথা বলে দিচ্ছেন সাংসদ, অথচ তাঁরই এলাকায় সারা দেশের উপকার হয়, এমন একটি প্রকল্পে বাদ সাধা হয়েছে, সে ব্যাপারে কোনো কথাই বললেন না তিনি! এই ‘বৈধ ব্যবসা’টি বড়, নাকি দেশের জনগণের উপকার হওয়ার জন্য সরকারি হাজার কোটি টাকার কাজটি বড়, সেটা কি মাননীয় সাংসদ কথা বলার সময় মাথায় রেখেছিলেন?

কথা বাড়ানোর দরকার নেই। সংশ্লিষ্ট নানা পক্ষের সঙ্গে আমাদের প্রতিবেদক যখন কথা বলেছেন, তখন সবার আঙুলই এই বালুর ব্যবসার সঙ্গে সাংসদের সম্পৃক্ততাকেই নির্দেশ করেছে। এমনকি স্থানীয় যে ইউপি সদস্য মো. আবদুল হাইকে তাঁর ব্যবসার অংশীদার বলা হচ্ছে, তিনিও কিছু রাখঢাক না করে বলেছেন সাংসদের লোকজনের সংশ্লিষ্টতার কথা।

কথা বললে কথা বাড়ে। বাড়াব না। এই জীবন-নাটকটি এখন কোন পথে এগোবে–সেটাই প্রশ্ন। নাটকটি কমিক হতে পারে, যদি প্রকল্প থেকে এই তথাকথিত ‘বৈধ’ ব্যবসায়ীদের বিতাড়ন করা যায় এবং নদীগুলোর প্রবাহ সচল হয়। নাটকটি ট্র্যাজিক হতে পারে, যদি কিছুসংখ্যক লোভী ব্যবসায়ীর কারণে হাজার কোটি টাকার প্রকল্পটি মুখ থুবড়ে পড়ে আর নদী ও নদীর অববাহিকার মানুষ অকারণ কষ্ট ভোগ করতে বাধ্য হয়। নাটকটি কীভাবে শেষ হবে, তার অপেক্ষায় থাকলাম আমরা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    ভরসার কেন্দ্রে কিন্তু জনগণই

    ভরসার কেন্দ্রে কিন্তু জনগণই

    ‘জমিদার’ ও ‘জমিচোর’ বনাম  ভারতে বিরোধী ঐক্য

    ‘জমিদার’ ও ‘জমিচোর’ বনাম  ভারতে বিরোধী ঐক্য

    বেটা তো খুব ভণ্ড!

    বেটা তো খুব ভণ্ড!

    ফ্রান্সকে চটিয়ে চীনকে হুমকি?

    ফ্রান্সকে চটিয়ে চীনকে হুমকি?

    চেনামুখ চেনাপথ কেন হয় অচেনা?

    চেনামুখ চেনাপথ কেন হয় অচেনা?

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে শক্তিশালী আইন জরুরি

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    মাগুরায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতায় ভোগান্তি শিক্ষার্থীদের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    ইভ্যালির ব্যবসায় ভুল স্বীকার রাসেলের

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    সেই গার্দিওলাকেই ফেরাতে চায় বার্সেলোনা!

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    আলীপুরে জেলেদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ

    নির্দলীয় সরকার ব্যবস্থা ছাড়া আগামী নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ