শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সেকশন

 

বরগুনায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নিঃস্ব ১২৩ ব্যবসায়ী

আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৫৪

গুরিয়ে দেওয়া হয়েছে ১২৩ ব্যবসায়ীর দোকান। ছবি: আজকের পত্রিকা ২০ কাঠা ধানী জমি ও গোয়ালের দুটি গরু বিক্রি করে দুই বছর আগে কচুপাত্রা বাজারে একটি দোকান খুলেছিলেন মো. জামাল। সরকারি জমিতে অবৈধ দোকান তোলার অভিযোগে সেই দোকান গুঁড়িয়ে দিয়েছেন বরগুনা জেলা প্রশাসন। দোকান হারিয়ে তিনি এখন পথে পথে ঘুরছেন।মো. জামাল শুধু একা নন, তার মতো এমন আরো ১২৩ জন ব্যবসায়ী ও স্থানীয়দের বাড়িঘর উচ্ছেদ করা হয়েছে। তাদের দোকান গুলো  দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এতে পুঁজি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পথে বসছেন এই ব্যবসায়ীরা।

গত বুধবার , তালতলী ইউএনও (উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা) মো. কাওসার হোসেনের নেতৃত্বে  বরগুনার তালতলী উপজেলা কচুপাত্রা বাজারের সংযোগ সড়কের দুই পাশে বাস করা ব্যবসায়ীদের ঘরবাড়ি ও দোকান উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তানভীর আহম্মদ।

দোকান হারানো ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, একটি কুচক্রী মহল এসব ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদের জন্য উঠে পড়ে লেগে ছিল। অবশেষে তারা সফল হয়েছে। তাদের এই ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৫০ কোটি টাকা। জমি বিক্রি করে ব্যাংক ও বিভিন্ন সংস্থা থেকে থেকে ঋণ নিয়ে আমরা  ব্যবসা করতেন । এই দোকানের আয় থেকেই তাদের  সংসারের যাবতীয় সব খরচ মিটতো। জীবনের শেষ সম্বল  হারানোয়  এখন তারা নিঃস্ব।

উচ্ছেদ করা হয়েছে বাড়িঘর। ছবি: আজকের পত্রিকা ১২ বছর ধরে এখানে দোকান চালিয়ে আসা মুদি ব্যবসায়ী সুমিত সাজ্জাল জানান, প্রতিবছর ১০ লক্ষ টাকায় এই বাজারের নিলাম হয়। ইজারদারকে প্রতি রবিবার ৫০ টাকা করে খাজনা দিতে হতো।সরকার এখান থেকে রাজস্বও  পায়। অথচ  ছয় মাস সময় সময় না দিয়েই  আমাদের দোকান গুলো ভেঙে ফেলা হয়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, কচুপাত্রা বাজারের খালের দুই পাড়ে কয়দিন আগেও সারি সারি দোকান ছিল। কিন্তু এখন আছে শুধু  ধ্বংসাবশেষ।  স্থানীয়দের মাঝে এ নিয়ে চাপা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তাছাড়া দ্রুত পূর্নবাসনের দাবিও জানাচ্ছেন তারা ।  

সরকারের কাছে পুনর্বাসনের দাবি জানিয়ে কচুপাত্রা বাজার কমিটির সভাপতি সেলিম মৃধা বলেন, শতবর্ষী এই বাজারের খালের দুই পাড়ের  ১২৩ টি দোকান উচ্ছেদ করা হয়েছে। এতে এখানকার ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা করা না হলে তারা না খেয়ে মরবে। 

তবে, কচুপাত্রা খালকে দূষণমুক্ত  করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তালতলীর ইউএনও মো. কাওসার হোসেন। তিনি আজকের পাত্রিকাকে বলেন, কচুপাত্রা বাজারের ১৬৮ শতাংশ ভূ‌মি দখলমুক্ত করেতেই ১২৩ টি বি‌ভিন্ন পাঁকা/কাঁচা অবৈধ স্থাপনা উ‌চ্ছেদ করা হয়।এতে খালের  স্বাভা‌বিক প্রবাহমানতা ফিরে আসবে । দখলদারদের বারবার নোটিশ দিলেও তারা এখান থেকে সরে জায়নি। তাই  অবৈধ স্থাপনাগুলো  ভেঙে ফেলা হয়েছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    মুখে অ্যাসিড ঢেলে পানিতে চুবিয়ে বড় ভাইকে হত্যা করেন রিপন

    মুখে অ্যাসিড ঢেলে পানিতে চুবিয়ে বড় ভাইকে হত্যা করেন রিপন

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    দিনাজপুরে মসজিদ আটককৃতদের মধ্যে ১১ জনের নামে মামলা

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    শিশু হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি চাচির

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    সাভারে নারী পোশাক শ্রমিকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

    মুখে অ্যাসিড ঢেলে পানিতে চুবিয়ে বড় ভাইকে হত্যা করেন রিপন

    মুখে অ্যাসিড ঢেলে পানিতে চুবিয়ে বড় ভাইকে হত্যা করেন রিপন

    কণ্ঠ হারিয়েছেন বাপ্পী লাহিড়ি? ছেলে বললেন, ‘একেবারেই মিথ্যে’

    কণ্ঠ হারিয়েছেন বাপ্পী লাহিড়ি? ছেলে বললেন, ‘একেবারেই মিথ্যে’

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    সিগারেটের আগুন না দেওয়ায় হোটেল মালিককে ঘুষি মেরে হত্যা

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    বৈরী আবহাওয়ার বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি নিখোঁজ ১

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান

    কাঁকড়া চাষ হতে পারে সুন্দরবন নির্ভর জনগোষ্ঠীর অন্যতম বিকল্প কর্মসংস্থান