বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

সেকশন

 

২৮ অক্টোবরের মহাসমাবেশে গুন্ডা নামালে, জনগণ গামছা বেঁধে আপনাদের নামাবে: জোনায়েদ সাকি

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২৩, ১৯:১৬

সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের একদফার যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে গণসমাবেশ করে গণতন্ত্র মঞ্চ। ছবি: আজকের পত্রিকা আগামী ২৮ অক্টোবরের মধ্যে সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে অন্যথায় গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা। 

আজ বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের একদফার যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে গণতন্ত্র মঞ্চ আয়োজিত গণসমাবেশে তাঁরা এ হুঁশিয়ারি দেন। 

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘সরকারকে সময় দিচ্ছি, আপনারা মনস্থির করেন কীভাবে পদত্যাগ করে সুষ্ঠু নির্বাচন করবেন। আগামী ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে বিরোধী দলগুলো মহাসমাবেশ করবে। এই সমাবেশের আগেই মনস্থির করেন কীভাবে পদত্যাগ এবং অন্তর্বত্নীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন করবেন।’ 

জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘২০১৪ সালের মতো একতরফা নির্বাচন করতে চাইলে জনতা প্রস্তুত নিচ্ছে ৯০-এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের মতো গণ-অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে আপনাদের বিদায় করবে।’ 

দেশের মানুষ আর ভয় পায় না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জনগণ আগামী ২৮ অক্টোবর মহাসমাবেশ করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবে। এতে গুন্ডা আর পুলিশ বাহিনী নামিয়ে দিলে জনগণ গামছা বেঁধে আপনাদের ক্ষমতা থেকে নামাবে।’ 

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতাদের পাখা গজাচ্ছে। ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিরোধীদের রাস্তা দখল করতে দেবে না। আমরা এখানে রাস্তা দখল করেছি। বিজয়নগরে অন্যান্যরা সমাবেশ করছে, নয়াপল্টনে বিএনপির লাখো মানুষ। আর উনি বলছেন, রাস্তা দখল করতে দেবে না।’ 

এই সরকার আর ক্ষমতায় থাকতে পারবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তলে তলে সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে, ভারতের সঙ্গে কথা হয়েছে কিন্তু কিচ্ছু নাই, সব খালি। এরা ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। সারা দেশ, বিশ্ব আমাদের পক্ষে। আমরা জানি, আমরা জিতব।’ 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন উল্লেখ করে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শাপলা চত্বরে হেফাজতের ওপর যেভাবে আক্রমণ করা হয়েছে বিরোধীদের ওপর এর চেয়ে বড় আক্রমণ হবে। এই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে উনি স্বীকার করে নিয়েছেন শাপলা চত্বরে সরকার মানুষ খুন করেছে।’ 

মানুষ পালটা ধাওয়া দেওয়া শুরু করেছে উল্লেখ করে সাইফুল হক বলেন, ‘সরকারের মন্ত্রীরা বলছে, আগামী তিন মাস দেশকে পাহারা দিয়ে রাখতে হবে। লুটের টাকা রক্ষা করতে তারা পাহারা বসাতে চায়। আরেকটা হচ্ছে, ক্ষমতায় থাকা মানে বেহেশতে থাকা তাই আজকে বেহেশত থেকে বের হয়ে যেতে হয় কিনা সে জন্য পাহারা। কোনো পাহারা দিয়ে এই সরকারের পতন ঠেকানো যাবে না।’ 

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সিনিয়র সহসভাপতি তানিয়া রব বলেন, ‘এই দেশে আর রাতে বাক্স ভরাটের ভোট হবে না। দেশে কতজন জনগণের ভোটে নির্বাচিত? এরা আরেকবার ক্ষমতায় এলে মানুষকে কি পরিমাণ অত্যাচার, নির্যাতন করবে তার সীমা নাই।’ 

সরকারবিরোধী দলগুলোকে সহিংসতার দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘সরকার বলে আন্দোলন হয় না। আপনারা কেমন আন্দোলন চান? লগি-বইঠার মারামারি চান? আমরা সহিংসতা চাই না।’ 

সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ মিছিল করেন মঞ্চের নেতা-কর্মীরা। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন—ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সাংগঠনিক সমন্বয়ক ইমরান ইমন, নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ্ কায়সার, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন প্রমুখ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    ঈদ সাধারণ মানুষের জন্য আনন্দের বার্তা আনেনি: মির্জা ফখরুল

    যেকোনো সময় সরকারের পতন ঘটতে পারে: শামসুজ্জামান দুদু

    নিজে সুফল পাবে না বলে বিএনপিকে নির্বাচনে যেতে দেয় না তারেক: কাদের

    ঢাকা-চট্টগ্রাম-বরিশাল মহানগর বিএনপি ও যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত

    এমন কোনো কথা বলবেন না, যাতে ঐক্য বিনষ্ট হয়: শরিকদের উদ্দেশে ফখরুল 

    জাতীয় নির্বাচনে কোনো খরচ হয়নি: ইসির চিঠির জবাবে কাদের সিদ্দিকী

    দুদিনেও উইকেটের দেখা পাননি শান্তরা

    কোটিপতি কমলেও ক্ষুদ্র হিসাব বেড়েছে

    শুধু শান্ত নয়, অন্য দলের টপ অর্ডারও ভুগছে: হাথুরু

    সিলেটসহ পাঁচ জেলায় পানিবন্দী ১৪ লাখ মানুষ

    চামড়াশিল্প নগরীর সিইটিপি পুরো প্রস্তুত, পরিদর্শন শেষে শিল্পসচিব