মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

সেকশন

 

কক্সবাজারে বড় বড় গাছ কেটে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ৫টি পাহাড় 

আপডেট : ১৮ মার্চ ২০২৩, ১৮:৩১

কক্সবাজারের রামুতে রাজারকুল রেঞ্জের অধীন ভগবান টিলার আশপাশে বড় গাছ কেটে পুড়িয়ে দেওয়া পাহাড়। ছবি: আজকের পত্রিকা কক্সবাজারের রামুতে বড় বড় গাছ কেটে ৫টি পাহাড় আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। জেলার দক্ষিণ বন বিভাগের অধীন রাজারকুল রেঞ্জের ভগবান টিলার আশপাশের আনুমানিক ১০০ একরের বেশি এলাকার পাহাড়ে এই আগুন দেওয়া হয়। এতে পুড়ে গেছে অনেক গাছে। আবাস নষ্ট হয়েছে অনেক পশু পাখির। স্থানীয়দের অভিযোগ প্রায় এক মাস ধরে, নিলামে বড় বড় গাছগুলো কেটে পাহাড়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন রাজারকুল রেঞ্জের বন কর্মকর্তারা। এসব পাহাড়ে সুফল প্রকল্পের অধীনে মুজিব বর্ষের বাগান করা হবে বলে নিশ্চিত করলেও কারা আগুন দিয়েছেন তা নিয়ে বন কর্মকর্তারা দেননি কোনো সদুত্তর।

কক্সবাজারের রামুতে রাজারকুল রেঞ্জের অধীন ভগবান টিলার আশপাশে বড় গাছ কেটে পুড়িয়ে দেওয়া পাহাড়। ছবি: আজকের পত্রিকা গাছ কাঁটা ও পাহাড়ের আগুন লাগানোর বিষয়ে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে রাজারকুল রেঞ্জের কর্মকর্তা নাজমুল হাসান আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘এলাকার লোকজন বলেছে আমরা করছি? তাইলে কি কারণে আগুন লাগাইছি তাও এলাকার লোকজনের কাছে জিজ্ঞেস করেন। আমি এসবের কিছু জানি না, স্থানীয় বিট কর্মকর্তা এসব জানেন।’

রাজারকুলের বিট কর্মকর্তা জহিরুল আলম বলেন, এসব পাহাড়ে এখন সুফল প্রকল্পের অধীন মুজিব বর্ষের বাগান করা হবে। তবে কে বা কারা পাহাড়ে আগুন লাগিয়েছে তা জানি না। বিড়ির আগুন থেকে কাঁটা গাছের ডালপালাতেও আগুন লাগতে পারে।’

কক্সবাজারের রামুতে রাজারকুল রেঞ্জের অধীন ভগবান টিলার আশপাশে বড় গাছ কেটে পুড়িয়ে দেওয়া পাহাড়। ছবি: আজকের পত্রিকা আজ শনিবার সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে দেখা যায় প্রায় বিশ জন শ্রমিক পাহাড়ের গাছ কাটছেন। এ সময় কথা হয় স্থানীয়দের সঙ্গে।

সাইফুল নামের রাজারকুলের এক বাসিন্দা বলেন, ‘এই রেঞ্জের বন কর্মকর্তারা নিলামে দিয়ে গাছগুলো কেটে পাহাড়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় আরেক বাসিন্দা বলেন, ‘গাছ কাঁটা বা পাহাড়ে আগুন ধরানো তো দূরের কথা, স্থানীয়রা এখানে কোনো কিছু নিয়েই কথাই বলতে পারেন না। রাজারকুল রেঞ্জের কর্মকর্তারা শ্রমিক দিয়ে গত এক মাস ধরে গাছ কাটছেন। এরপর পাহাড়ে আগুন দিয়েছেন।’

কক্সবাজারের রামুতে রাজারকুল রেঞ্জের অধীন ভগবান টিলার আশপাশে বড় গাছ কেটে পুড়িয়ে দেওয়া পাহাড়। ছবি: আজকের পত্রিকা জেলা গ্রিন এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের সাধারণ সম্পাদক কায়সার মাহমুদ আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘গাছ কেটে আগুন দেওয়া হচ্ছে মূলত পাহাড় দখলের জন্য। এখানে এভাবে গাছ কেটে পাহাড়ে আগুন লাগাতে এর আগে আর দেখিনি। এই সব পাহাড়গুলোতে কত বিপন্ন জীবজন্তু ছিল। সব মারা পড়েছে। সরকারি টাকা মেরে দিতেই পাহাড়ে আগুন দেওয়া হয়েছে।’

 এ নিয়ে জানতে চাইলে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমিদা মুস্তফা আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে পাহাড়ের গাছ কাঁটা ও আগুন লাগানোর বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেব।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     

    মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে এল আরও ১৭ জান্তা সদস্য

    চট্টগ্রামে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

    মাদারীপুরে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু

    সড়ক কার্পেটিংয়ের সময় বিটুমিনের ড্রাম বিস্ফোরণে ছয়জন দগ্ধ

    থানায় হামলা: স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ ৯ জন ৬ দিনের রিমান্ডে

    চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় বিদেশি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

    মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে এল আরও ১৭ জান্তা সদস্য

    রহমতগঞ্জকে হারিয়ে সেমিফাইনালে বসুন্ধরা কিংস

    জমি নিয়ে বিরোধ: ভাগনেকে পিটিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ, মামা-মামি আটক

    চট্টগ্রামে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

    নতুন বছরে আমরা কেউ যেন নিরাপত্তাহীনতায় না থাকি: ড. ইউনূস

    বিশ্ববাজারে স্বর্ণ প্রতি ভরি ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা ছাড়িয়ে যাওয়ার পূর্বাভাস