Alexa
রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

শিক্ষার আলো ছড়াবেন হিরা

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ১৮:০৬

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী মিফতাহুল জান্নাত হিরা। ছবি: আজকের পত্রিকা বগুড়ায় এই প্রথম কোনো দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী নারী সরকারি চাকরিতে যোগ দিলেন। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদানকারী ওই নারীর নাম মিফতাহুল জান্নাত হিরা (২৪)। শিক্ষায় সাফল্যের কারণে ২০২১ সালে তিনি জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতা পদক পেয়েছিলেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত মিফতাহুল জান্নাত হিরা বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার পশ্চিমপাড়ার আব্দুস সাত্তারের মেয়ে। গতকাল মঙ্গলবার বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার কলেজপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেন হিরা। এ সময় বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আজমল হোসেনসহ অন্য শিক্ষকেরা তাঁকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

চাকরিতে যোগদানের পর অভিব্যক্তি জানতে চাইলে মিফতাহুল জান্নাত হিরা বলেন, প্রয়োজনীয় সহায়তার অভাবে অনেক প্রতিবন্ধী মানুষ শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। যথাযথ সহায়তা ও পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়া হলে অনেকেই স্বনির্ভর ও স্বাবলম্বী হতে পারেন।

এই চাকরি পাওয়ায় অনেক আনন্দিত উল্লেখ করে হিরা বলেন, ‘দৃষ্টিহীন মানুষ বলে যদি কোনো অবহেলার শিকার না হই, তাহলে শিক্ষকতা করা সম্ভব।’ তিনি চাকরি ক্ষেত্রে সবার সহযোগী মনোভাব প্রত্যাশা করেন।

মিফতাহুল জান্নাত হিরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৮ সালে সরকার ও রাজনীতি বিষয়ে অনার্স সম্পন্ন করেন। দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হিসেবে অনার্স করায় ২০২১ সালে জাতীয়ভাবে শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত হলে প্রধানমন্ত্রী তাঁকে পুরস্কৃত করেন।

শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার পশ্চিম পাড়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের মেয়ে হিরা। চার ভাই ও পাঁচ বোনের মধ্যে সবার ছোট তিনি। হিরার মতো তার বড় দুই বোন লাভলী খাতুন ও রেশমা খাতুনও জন্মের পর থেকে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী। চোখে না থাকলেও কারও ওপর নির্ভরশীল নন তারা। লাভলী খাতুন স্নাতক শেষে একটি প্রকাশনীর ব্রেইল পদ্ধতির বই লিখে দেন ঘরে বসে। 

মিফতাহুল জান্নাত হিরা বলেন, মাধ্যমিক পর্যন্ত তাঁর লেখাপড়ায় এবিসি নামের একটি বেসরকারি সংস্থা সহায়তা করলেও উচ্চ শিক্ষায় তারা আর এগিয়ে আসেনি। পারিবারিক উদ্যোগেই তিনি ২০১৪ সালে বগুড়া সরকারি মজিবুর রহমান মহিলা কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন জিপিএ ৫ পেয়ে। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকার ও রাজনীতি বিষয়ে অনার্স ভর্তি হন। এখন তিনি মাস্টার্সে অধ্যয়নরত।

লেখাপড়ার পাশাপাশি তিনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে চাকরির আবেদন করেন। দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হিসেবে বিশেষ ব্যবস্থায় লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হন। এরপর মৌখিক পরীক্ষার মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত নিয়োগ পেয়ে চাকরিতে যোগদান করেন।

বগুড়ার সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাবেদ আহম্মেদ বলেন, বগুড়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকদের মধ্যে মিফতাহুল জান্নাত হিরা একমাত্র দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী। তিনি গত মঙ্গলবার সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেছেন।

বগুড়া জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক এস এম কাওসার রহমান আজকের পত্রিকাকে বলেন, বগুড়ায় সরকারি কোনো অফিসে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী কর্মকর্তা-কর্মচারী এত দিন ছিলেন না। মিফতাহুল জান্নাত হিরা নামের একজন নারী এই প্রথম দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হিসেবে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি পেয়েছেন। নিঃসন্দেহে এটা অনেক আনন্দের খবর।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    সন্তানদের খোঁজে এসে ধর্ষণের শিকার নারী, গ্রেপ্তার ৫ 

    পুঠিয়ায় চালককে কুপিয়ে অটোরিকশা ছিনতাই

    গাইবান্ধায় ট্রাকচাপায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত, আহত চালক

    গাংনীতে যাত্রীবাহী বাস উল্টে আহত ৩০ 

    পাবনায় মাসব্যাপী একুশে বইমেলা শুরু

    ইছামতী নদীকে প্রবহমান করতে হবে: ডেপুটি স্পিকার

    আড়াই ঘণ্টা পর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ চলাচল স্বাভাবিক

    সন্তানদের খোঁজে এসে ধর্ষণের শিকার নারী, গ্রেপ্তার ৫ 

    পুঠিয়ায় চালককে কুপিয়ে অটোরিকশা ছিনতাই

    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি

    বিদেশে উচ্চশিক্ষা: নিড ব্লাইন্ড স্কলারশিপের আদ্যোপান্ত

    গাইবান্ধায় ট্রাকচাপায় অটোরিকশার যাত্রী নিহত, আহত চালক