Alexa
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

খুন, দুর্ঘটনা আর পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু বেড়েছে

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২৩, ২৩:৩৯

জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি ২০২২: সংবাদপত্রের পাতা থেকে’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন করে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। ছবি: আজকের পত্রিকা সদ্য বিদায়ী ২০২২ সালে পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর হার আশঙ্কাজনক মাত্রায় বেড়েছে। একই সঙ্গে বেড়েছে সড়ক দুর্ঘটনা, হত্যাকাণ্ডে শিশুর মৃত্যুর সংখ্যাও। বেড়েছে ছেলেশিশু যৌন নির্যাতনের ঘটনা।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি ২০২২: সংবাদপত্রের পাতা থেকে’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। দেশের আটটি বাংলা ও ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত খবর থেকে এ প্রতিবেদন তৈরি করেছে সংগঠনটি। 

প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ২০২১ সালে পানিতে ডুবে ৪০৫টি শিশু মারা গেছে। এক বছর পরে ২০২২ সালে এমন মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় তিন গুণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৫২-তে। গত বছর পানিতে ডুবে প্রাণ হারানো শিশুদের মধ্যে ৫২০টি মেয়েশিশু ও ৬৩২টি ছেলেশিশু।

এদিকে শিশু যৌন নির্যাতনের সংখ্যা ২০২১ সালের তুলনায় কমলেও গত বছর ছেলেশিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে বেশি। গত বছর মোট ৯৬টি শিশু যৌন নির্যাতনের ঘটনা উঠে এসেছে সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে। এর মধ্যে ছেলেশিশুর সংখ্যা ২০, যা ২০২১ সালে ছিল ৬। 

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে ধর্ষণের ঘটনা কমেছে ৩১ দশমিক ৫ শতাংশ। গত বছর সারা দেশে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ছিল ৫৬০টি। ৯৮টি শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার হয়ে মারা গেছে ১২টি মেয়েশিশু। ২০২১ সালে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ছিল ৮১৮টি। 

এ বিষয়ে এমজেএফের পর্যবেক্ষণ হলো, অধিকাংশ শিশু ধর্ষণের ঘটনা পারিবারিক পরিবেশে পরিচিতদের দিয়েই ঘটে। এ ছাড়া গত বছর প্রতিবেশীদের হাতেও উল্লেখযোগ্যসংখ্যক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষণের শিকার অধিকাংশ শিশুর বয়স ২ বছর থেকে ১২ বছর। শিশুদের লোভ দেখিয়ে পরিচিতরা ধর্ষণ করেছে। কিশোরীরা ধর্ষণের শিকার হয়েছে বন্ধুদের কাছে, কর্মক্ষেত্রে, স্কুলে যাওয়ার পথে ও পরিবারের ভেতরে। 

গত বছর ৪৪টি শিশু আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে মেয়ে ২৭ ও ১৩টি ছেলে। মূলত পরীক্ষার ফল বিপর্যয়, পরিবারের ওপর অভিমান, প্রেমে ব্যর্থ, উত্ত্যক্ত হওয়ার পরে, ধর্ষণের শিকার হওয়ায় বা ধর্ষণচেষ্টা করায় কিংবা ধর্ষণের বিচার না পাওয়ায় এবং সাইবার হেনস্তা বা ব্ল্যাকমেলের শিকার হয়েও আত্মহত্যার মতো ঘটনা ঘটেছে। 

এ ছাড়া গত বছর হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়ে শিশুমৃত্যুর হার বেড়েছে। ৩১১টি শিশু হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে এবং হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে ৪২টি শিশুকে। 

ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিয়ে আলাদাভাবে একই সময়ে মোট ১১টি এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত শিশুর সংখ্যা ১৫ এবং সবচেয়ে বেশি নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ঢাকায়। ১৫ জন গৃহকর্মী ধর্ষণসহ নানা ধরনের নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে ৫ জন নিহত, ৭ জন আহত ও ৩ জন আত্মহত্যা করেছে। নিহত গৃহকর্মীদের মধ্যে ৩ জন হত্যাকাণ্ডের শিকার। দুজনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। 

সড়ক দুর্ঘটনায়ও বেড়েছে শিশুমৃত্যুর হার। গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছে ১৯৬টি শিশু। গত বছর মোট নিখোঁজ শিশুর সংখ্যা ২০। এর মধ্যে মেয়েশিশু ৬ ও ছেলেশিশু ১৪। শিশু অপরাধে মেয়ে শিশুদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। ৩০টি শিশু অপহরণ হয়েছে বলেও জানানো হয়। 

এমজেএফের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনামসহ অন্য অতিথিরা বলেন, এমজেএফের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, শিশুরা নিজের বাসায় নিরাপদ নয়। শিশু ধর্ষণ ও শিশুকে যৌন হয়রানি বন্ধ করার জন্য সবাইকে এখনই জোটবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে, তা না হলে এই হার বাড়তেই থাকবে। শিশু সুরক্ষায় নিয়োজিত সরকারি প্রতিষ্ঠানের সবাইকে আরও বেশি হৃদয়বান হওয়ার পাশাপাশি শিশু অধিকার রক্ষায় সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তাঁরা। 

২০২১ সালের তুলনায় গত বছর বাল্যবিবাহের ঘটনা ৯৪ শতাংশ কমেছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি। তারা বলছে, ২০২১ সালে দেশের ২৩টি জেলায় ৪১ হাজার ৯৫টি বাল্যবিবাহের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে এসব পত্রিকায়। ২০২২ সালে এসে সেই সংখ্যা কমে হয়েছে ২ হাজার ৩০১টি। এর কারণ হিসেবে তারা বলছে, করোনার সময় অর্থাৎ ২০২০ ও ২১ সালে স্কুল বন্ধ থাকায় ও অভাব-অনটনের কারণে বাল্যবিবাহ বৃদ্ধি পেয়েছিল। ২০২২-এ এসে পরিস্থিতি বদলানোয় তা অনেক কমে গেছে। 

সংবাদ সম্মেলনে শিশু ও মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    বইমেলায় উচ্ছল শিশুদের চঞ্চল পদচারণে মুখর দুটি দিন

    প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অর্ধেকের বেশি স্কুলে যান না

    দেশের ৫২ শতাংশ মানুষের হাতে স্মার্টফোন, ব্যবহারে এগিয়ে নারীরা

    ঠান্ডাজনিত রোগে আরও ৪ মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৯৪৯

    দেশে দারিদ্র্যের হার নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে: এমএসএফের প্রতিবেদন

    যৌন নির্যাতন কী, তা জানেন না ‘গ্রামের অনেক শিক্ষক’

    মানিকছড়িতে শিক্ষকের মারধরে হাসপাতালে ভর্তি শিক্ষার্থী 

    পুলিশের প্রতিবেদনে ৫ আসামি নির্দোষ, কারাগারে পাঠালেন আদালত

    ‘বন্দুকযুদ্ধে’ জনি হত্যা: ১৫ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে করা মামলা খারিজ

    চাঁদপুরে ‘আত্মহত্যা’র প্ররোচনা মামলায় ১০ আসামি কারাগারে

    রমেক হাসপাতালে দুদকের অভিযান

    শাজাহানপুরে কলেজছাত্র আশিক হত্যায় ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার