Alexa
রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

ইসলাম

প্রস্রাবের ছিটা থেকে সাবধানতা জরুরি

আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫:৩১

প্রতীকী ছবি প্রস্রাব করার ইসলামী শিষ্টাচার রয়েছে। অনেকে তা না মেনে দাঁড়িয়ে প্রস্রাব করেন। অনেকে বসে প্রস্রাব করলেও পানি বা টিস্যু ব্যবহার করেন না। এ ক্ষেত্রে শরীর কিংবা কাপড়ে প্রস্রাবের ছিটাফোঁটা লেগে যায়। শরীর ও কাপড় হয়ে যায় অপবিত্র; ইবাদতের উপযুক্ত থাকে না। বিষয়টি আপাতদৃষ্টিতে সাধারণ মনে হলেও আসলে সাধারণ নয়। প্রস্রাবের ছিটাফোঁটা থেকে না বাঁচার কারণে কবরে আজাব হওয়ার কথা হাদিসে এসেছে।

হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, ‘নবী (সা.) দুটি কবরের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় বললেন, ‘নিশ্চয়ই এই দুই কবরের বাসিন্দাকে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে এবং তাদের কোনো কঠিন অপরাধের জন্য শাস্তি দেওয়া হচ্ছে না; একজনকে প্রস্রাবের (অসতর্কতার) কারণে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে, আর অপরজনকে পরনিন্দা করার কারণে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে।’ (ইবনে মাজাহ)

বিশুদ্ধ ইবাদতের জন্য প্রাথমিক শর্ত হচ্ছে, ভালোভাবে পবিত্রতা অর্জন করা। তাই টয়লেট সারার পর ভালোভাবে নিজেকে প্রস্রাবের ফোঁটা এবং অপবিত্রতা থেকে পবিত্র করা জরুরি।

প্রস্রাব করার পর উত্তম হচ্ছে, ঢিলা-কুলুখ কিংবা টিস্যু ব্যবহার করা এবং বাথরুমে কিছুক্ষণ পায়চারি করা। তারপর পানি ব্যবহার করা। এতে মূত্রথলি ও মূত্রনালি ভালোভাবে খালি হয়ে যায়। পরে প্রস্রাবের ফোঁটা আসার আশঙ্কা থাকে না।

টয়লেটে পর্যাপ্ত পানি ও টিস্যু পেপারের ব্যবস্থা রাখতে হবে, যাতে প্রয়োজনের সময় ব্যবহার করা যায়। প্রস্রাব করার সময় লক্ষ্য রাখতে হবে, প্রস্রাব যেন কমোডের সামনের অংশে গিয়ে না পড়ে। কারণ এতে প্রস্রাবের ছিটা উড়ে গায়ে পড়ার প্রবল আশঙ্কা থাকে। 

লেখক: শিক্ষক ও ইসলামবিষয়ক গবেষক

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    যে তিন কাজে আল্লাহ অসন্তুষ্ট হন

    রমজানের আগাম ৩ প্রস্তুতি

    শ্রেষ্ঠত্বের মানদণ্ড তাকওয়া

    সৎ ব্যবসায়ীর অনন্য মর্যাদা

    কোরআনে বাবার কর্তব্যের কথা

    কতটুকু ধর্মীয় জ্ঞান থাকা ফরজ

    একাত্তরের নৃশংসতার জন্য পাকিস্তানকে ক্ষমা চাইতে আবার বলল বাংলাদেশ 

    ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা: তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পেছাল

    সাত বছরের শিশু হত্যার দায়ে একজনের আমৃত্যু আরেক জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

    বাংলাদেশ থেকে অভিবাসন ব্যয় কমাতে চায় মালয়েশিয়া

    বেতন জটিলতার সমাধান চান প্রাথমিক শিক্ষকেরা

    রাবারকে কৃষি পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি চায় বাগান মালিকেরা