Alexa
রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

ইসরায়েলে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২৩, ১৩:৫৯

ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবে জড়ো হয়েছিল হাজার হাজার বিক্ষুব্ধ জনতা। ছবি: টুইটার ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু সরকারের বিচার বিভাগীয় সংস্কার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে হাজার হাজার মানুষ। গতকাল শনিবার দেশটির রাজধানী তেল আবিবে জড়ো হয়েছিল বিক্ষুব্ধ জনতা। তারা নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা বলেছেন, বিচার বিভাগীয় সংস্কার হলে আদালতের গণতান্ত্রিক ভারসাম্য হুমকির মুখে পড়বে। তবে সরকার বলছে, বিচারকদের বাড়াবাড়ি বন্ধ করার জন্য সরকার সংস্কার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

সরকারের এই সংস্কার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে মাঠে নেমেছেন আইনজীবীদের সংগঠনসহ ব্যবসায়িক নেতারা। তাঁরা বলছেন, নেতানিয়াহুর এসব উদ্যোগ ইতিমধ্যে সমাজের ভেতরে রাজনৈতিক বিভাজনকে প্রশস্ত করেছে।

ইসরায়েলের বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান আভি চিমি বলেছেন, ‘তারা দেশে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চায়, তারা গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে চায়। তারা বিচার বিভাগের কর্তৃত্বকে ধ্বংস করতে চায়। এটা হতে পারে না। কারণ বিচার বিভাগীয় কর্তৃত্ব ছাড়া পৃথিবীতে কোনো গণতান্ত্রিক দেশ নেই।’

গত বছরের নভেম্বরে ইসরায়েলে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেই নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেছেন নেতানিয়াহুবিরোধী বামপন্থীরা। নির্বাচনের পর থেকেই তারা বিক্ষোভ করছেন। ইতিমধ্যে তৃতীয় সপ্তাহে পা দিয়েছে বিক্ষোভ। এরই মধ্যে ইতিহাসের অন্যতম ডানপন্থী সরকার গঠন করেছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সরকার গঠনের পর তিনি বিচার বিভাগ সংস্কারের ঘোষণাও দিয়েছেন। ফলে বামপন্থীদের বিক্ষোভে এবার যোগ দিয়েছেন আইনজীবী, ব্যবসায়ীসহ হাজার হাজার সাধারণ মানুষ।

বিক্ষোভকারীরা বলছেন, সরকারের পরিকল্পনা যদি সফল হয়, তাহলে বিচারক নিয়োগের ওপর রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ কঠোর হবে। একই সঙ্গে সরকার বা নেসেট (সংসদ) সুপ্রিম কোর্টের ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করবে। বিচারকদের স্বাধীনতা হুমকির মুখে পড়বে। সংখ্যালঘুদের অধিকার ক্ষুণ্ন হবে এবং দুর্নীতির দরজা অবারিত হবে। সব মিলিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাটাই ধসে পড়বে।

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ৬৪ বছর বয়সী আমনন মিলার বলেছেন, ‘আমি ৩০ বছর সেনাবাহিনীতে কাজ করেছি। দেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছি। এখন এই সরকার আমাদের স্বাধীনতা কেড়ে নিতে চাইছে। আমরা তা হতে দেব না। আমরা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছি।’

কয়েক দিন আগে ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে নেতানিয়াহু সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরিয়েহ দেরিকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। ফলে প্রতিবাদ বিক্ষোভের সঙ্গে যোগ হয়েছে এই আইনি চাপ। এতে দেশের বিচারব্যবস্থা এবং আদালতের ক্ষমতা নিয়ে গভীর এক বিভক্তি দেখা দিতে পারে।

গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে বিচার চলছে। বিক্ষোভকারীদের ধারণা, নিজেকে আইনি শাস্তির হাত থেকে বাঁচাতেই তিনি বিচার বিভাগের সংস্কার করতে চাইছেন। তবে নেতানিয়াহু এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘সরকারের তিনটি বিভাগের মধ্যে ভারসাম্য আনতেই এই সংস্কার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের মৃত্যু: মেমফিস পুলিশের ‘স্করপিয়ন’ ইউনিট বিলুপ্ত 

    জেরুজালেমে ফের গুলি, ১৩ বছরের ফিলিস্তিনি আটক

    রাজতন্ত্রের সমালোচনা: থাইল্যান্ডে কাপড় ব্যবসায়ীর ২৮ বছরের জেল

    পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযানে ১০ ফিলিস্তিনি নিহত

    প্রতারণা ও কারসাজি: এক দিনে আদানি হারাল ৬৪০ কোটি ডলার

    নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ক্রিস হিপকিন্স

    রাজশাহীর জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

    রাস্তা পার হওয়ার সময় অটোরিকশার ধাক্কায় শিশু নিহত 

    দুই দিনের কর্মবিরতিতে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টরা 

    ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে গ্যাস ট্যাবলেট সেবন, চিকিৎসাধীন যুবকের মৃত্যু

    চট্টগ্রামে আসবাব মেলা শুরু ১ ফেব্রুয়ারি

    নির্জন স্থানে ডেকে নিয়ে মুক্তিপন আদায় করতেন তাঁরা