Alexa
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

ইজারা ছাড়াই ঘাটে টোল পকেট ভারী হচ্ছে কার

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩:৩৫

হিজলার ধুলখোলায় ডুবে যাওয়া পন্টুন। ছবি: আজকের পত্রিকা বরিশালের মেঘনাবেষ্টিত হিজলা ও মেহেন্দীগঞ্জে খেয়া পারাপারে ঘাটে ঘাটে চাঁদাবাজি ও হয়রানির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা। কোথাও ইজারা না থাকলেও ঘাট ভাড়া নেওয়া হচ্ছে, আবার কোথাও যাত্রীরা বাড়তি ভাড়া না দিলে পিটিয়ে আহত করার ঘটনাও ঘটছে। এ নিয়ে নদীতীরবর্তী ওই সব এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

হিজলার ধুলখোলায় পন্টুন ডুবে যাওয়ায় নৌ স্টেশন বন্ধ হয়ে গেছে। তাই লঞ্চঘাটের ইজারাও দেয়নি বিআইডব্লিউটিএ। তারপরও বিআইডব্লিউটিএর রাজস্বের নামে ট্রলারযাত্রীদের কাছ থেকে জনপ্রতি ১০ টাকা করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যের বিরুদ্ধে।

ধুলখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল হোসেন ঢালী বলেন, নদীতে পানি কমে যাওয়ায় ধুলখোলা লঞ্চঘাটের পন্টুনটি প্রায় এক বছর আগে ডুবে যায়। নাব্যতা-সংকটের কারণে লঞ্চঘাটটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। চলতি অর্থবছরে ঘাট ইজারা দেয়নি বিআইডব্লিউটিএ। মেঘনাবেষ্টিত ধুলখোলার এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে যাওয়ার যাত্রীবাহী ট্রলার চলাচল করছে এই ঘাট থেকে। ১ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বর লিটন রাঢ়ী প্রতিজন যাত্রীর কাছ বিআইডব্লিউটিএর নিয়ম অনুযায়ী ১০ টাকা করে আদায় করছেন বলে তিনিও অভিযোগ পেয়েছেন।

এলাকাবাসী জানায়, ধুলখোলা খেয়াঘাট থেকে একই ইউনিয়নের প্রধান বন্দর আলীগঞ্জ হয়ে পাশের ইউনিয়ন উলানিয়া পর্যন্ত যাত্রীবাহী ইঞ্জিন নৌকা চলাচল করে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা পরপর অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ট্রলার আসা-যাওয়া করছে। যাত্রীরা জানান, লঞ্চঘাটটি বন্ধ হওয়ার আগে ইজারার মাধ্যমে বিআইডব্লিউটিএ এই রাজস্ব আদায় করত। এখন ইজারা ছাড়াই ইউপি সদস্য লিটন রাঢ়ী প্রতিদিন হাজার হাজার টাকা আদায় করছেন। এ বিষয়ে কেউ কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে ইউপি সদস্য লিটন রাঢ়ীর মোবাইল ফোনে বারবার কল দেওয়া হলে ধরেননি।

এদিকে ইজারা থাকা বিভিন্ন ঘাটে বাড়তি টোল আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। যাত্রীরা দাবি করেছেন, বিআইডব্লিউটিএর নির্ধারিত ৫ টাকার স্থলে ১০ টাকা করে টোল নেওয়া হচ্ছে পুরাতন হিজলা খেয়াঘাটে।

বিআইডব্লিউটিএর বরিশাল নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপপরিচালক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ধুলখোলা লঞ্চঘাটের পন্টুন প্রত্যাহার করে চাঁদপুরে নেওয়া হয়েছে। ওই লঞ্চঘাট এ বছর ইজারা দেওয়া হয়নি। বিআইডব্লিউটিএর টিকিট ব্যবহার করে কারও টাকা আদায় করার নিয়ম নেই। ধুলখোলায় এ ধরনের অভিযোগ পাওয়ার পর আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য হিজলা থানায় চিঠি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে গত সোমবার মেহেন্দীগঞ্জের আলিমাবাদের গাগুরিয়া স্লুইসগেট গেট থেকে শ্রীপুর হয়ে লাহারহাট নৌপথের এক যাত্রীকে মারধর করে মাঝি। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সফিকুল ইসলাম জানান, ওই ঘাটে যে যাত্রীকে মারধর করা হয়েছে, তাঁর খোঁজ আর পাওয়া যায়নি।

মেহেন্দীগঞ্জের পাতারহাট বন্দরে লঞ্চ ভিড়তে না পারায় কিছুদিন ধরে মাঝ নদীতে নৌযান ভেড়াতে হচ্ছে। এ অবস্থায় ট্রলার কিংবা নৌকায় করে লঞ্চে উঠতে হয় যাত্রীদের।

এখানেও দিনের পর দিন ঝুঁকি নিয়ে পারাপারে হয়রানির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা।

এ ব্যাপারে বিআইডব্লিউটিএর বরিশাল নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপপরিচালক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, পাতারহাট ঘাটে ড্রেজিং করতে স্থানীয় প্রশাসন আপত্তি জানিয়েছে। এ বিষয়ে প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা চলছে। শিগগির পরিদর্শন করে ঘাটে যাতে নৌযান ভিড়তে পারে সে ব্যবস্থা করবেন।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ইসির সেই জয়নাল এখনো তৎপর

    কে হচ্ছেন নতুন রানি

    গোলরক্ষক বাবার স্ট্রাইকার ছেলে

    ফকিরাপুলের হোটেলগুলো ‘আদমের হাট’

    সায়েদ আলীর পরম মমতা

    শাহরুখ ফিরলেন রাজার মতোই

    ‘বৌদ্ধ সন্ত্রাসের মুখ’: মিয়ানমারের ভিক্ষু উইরাথু ফের আলোচনায়