Alexa
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 
ফুটবল বিশ্বকাপ

রোনালদোর ‘বদলি’ নামা হ্যাটট্রিককারী, কে এই রামোস

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫৯

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ হ্যাটট্রিককারী গনসালো রামোস। ছবি: এএফপি সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে গতকালের আগে পর্তুগালের হয়ে ৩৩ মিনিট খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন গনসালো রামোস। এই সময়টুকুও খেলেছেন তিনি বদলি নেমে। সেই ৩৩ মিনিটেই নজর কেড়েছিলেন পর্তুগালের কোচ ফার্নান্দো সান্তোসের। গতকাল তাই শেষ ষোলোর ম্যাচে শুরুর একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। 

শুধু পর্তুগালের নয়, বিশ্ব ফুটবলের অন্যতম সেরা ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে বেঞ্চে বসিয়ে রামোসকে নামিয়েছিলেন সান্তোস। কোচের আস্থার প্রতিদানও দিয়েছেন তিনি। প্রতিদানটা এমনই হয়েছে যে বিস্ময় ফুটবলকেই অবাক করে দিয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে সুযোগ পেয়েই হ্যাটট্রিক করেছেন উদীয়মান এই তরুণ। 

অথচ এই বিশ্বকাপে রামোসের সুযোগ পাওয়ারই কথা ছিল না। ডিয়াগো জোতার চোটে সুযোগ পেয়েছেন তিনি বিশ্বকাপের দলে। আর সুযোগ পেয়েই এবারের বিশ্বকাপের প্রথম হ্যাটট্রিককারী হয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ হ্যাটট্রিককারী এখন তিনি। ২১ বছর ১৬৯ দিনে হ্যাটট্রিকটি পূর্ণ করেছেন রামোস। আর ১৯৬২ সালের বিশ্বকাপে হ্যাটট্রিক করে এখন পর্যন্ত সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হচ্ছেন হাঙ্গেরির ফরোয়ার্ড ফ্লোরিয়ান আলবার্ট। 

শৈশব থেকেই রামোস প্রতিভার আলোয় নিজেকে আলোকিত করেছেন। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে শুধু সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন। আর গতকাল সুযোগ পেয়েই নিজের জাত চেনালেন তিনি। মাত্র ১২ বছর বয়সে ২০১৩ সালে বেনফিকার একাডেমিতে যোগ দিয়েছিলেন এই পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। একাডেমিতে নিজেকে জাত ফিনিশার হিসেবে গড়ে তুলেছেন তিনি। গোলে শট নেওয়ার ক্ষমতা তাঁর দুর্দান্ত। গতকাল ক্যারিয়ারের প্রথম গোলটিতে তাঁর প্রমাণ দিয়েছেন তিনি। দুরূহ এক কোণ থেকে যেভাবে গোলটি করলেন, তা সত্যি অবিশ্বাস্য ছিল। 

 ২০১৯ সালে পর্তুগাল অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে ইউরোপিয়ান যুব চ্যাম্পিয়নশিপে খেলেছিলেন রামোস। টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলে সর্বোচ্চ গোলদাতাও হয়েছিলেন তিনি। তখন থেকেই তাঁকে পর্তুগালের ভবিষ্যৎ তারকা বলা হচ্ছিল। বেনফিকার হয়ে এই মৌসুমেও দুরন্ত ছন্দে আছেন তিনি। ২১ ম্যাচে ১৪ গোল করেছেন এই তরুণ তুর্কি। সঙ্গে সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৬ গোল। 

এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত গতকালকেই সেরা খেলাটা খেলেছে পর্তুগাল। আর সেটিও রামোসের হ্যাটট্রিকের বদান্যতায়। নিজের প্রথম বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো একাদশে সুযোগ পেয়ে হ্যাটট্রিক করা দ্বিতীয় ফুটবলার তিনি। তাঁর আগে ২০০২ সালের বিশ্বকাপে হ্যাটট্রিক করে এমন রেকর্ড গড়েছেন জার্মানির মিরোস্লাভ ক্লোসা, যিনি বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১৬ গোলের মালিক। 

আর নিজ দেশের হয়ে প্রথম গোলে বিশ্বকাপে গোল করা দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হয়েছেন রামোস। এই রেকর্ডের শীর্ষে আছেন যাঁর বদলি নেমে গতকাল সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ৬-১ গোলের বিশাল জয় এনে দিয়েছেন পর্তুগালকে। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে পর্তুগালের হয়ে সর্বকনিষ্ঠ গোলদাতা হয়েছিলেন রোনালদো। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ডাচ ডিফেন্ডারের গোলেই ম্যাচ হেরেছে আর্সেনাল

    মেসিদের শিরোপা রক্ষার লড়াই যুক্তরাষ্ট্রে

    হাকিমি-জিয়েশদের মতো ছেলেদের গড়ার স্বপ্ন বাবা হাকিমের

    এবার আরও বড় শাস্তি সোহানের, রউফকে সতর্কতা

    টিভিতে আজকের খেলা (২৮ জানুয়ারি ২০২৩, শনিবার)

    চট্টগ্রামকে হারিয়ে শীর্ষে বরিশাল

    গিটারশিল্পী‌দের মিলন‌মেলা

    ‘পান খেলেই’ মাথা দিয়ে ধোঁয়া ওঠে রব্বানীর

    ডায়াবেটিস রোগীর সংক্রমণ প্রতিরোধে

    অস্থির ব্যথা দূর করতে

    অসাবধানতায় বাড়ে স্ট্রোকের ঝুঁকি

    বাড়ি থেকে বের হওয়ার পরদিন মিলল বৃদ্ধের গলাকাটা লাশ