Alexa
রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

জাবিতে ফুটবল খেলা নিয়ে দুই হলের সংঘর্ষ, ফাঁকাগুলি

আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:১৬

বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা এলাকায় দুই হলের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, সংঘর্ষ, ইট পাটকেল ফাঁকাগুলি ছোড়া হয়। ছবি: আজকের পত্রিকা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর কাপ ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে দুই আবাসিক হলের ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে প্রায় ৩০ ছাত্র আহত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় আ ফ ম কামাল উদ্দীন হল এবং মওলানা ভাসানী হলের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, সংঘর্ষ ও ইট পাটকেল ছোড়াছুড়ি হয়। এ সময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম দুই হল পরিদর্শন করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা এলাকায় এই সংঘর্ষ শুরু হয়। রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত দুই হলের মধ্যে এই সংঘর্ষ চলে। এ সময় বটতলার খাবারের দোকানপাট বন্ধ থাকে।

এর আগে, বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মাঠে খেলা চলাকালীন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আ ফ ম কামাল উদ্দীন হল এবং মওলানা ভাসানী হলের মধ্যে খেলা হয়। খেলা চলাকালীন অফসাইড দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই হলের খেলোয়াড়রা বিবাদে জড়ান। পরে দুই হলের দর্শকদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। একপর্যায়ে বটতলা এলাকায় এসে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন তারা। এ সময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। 

জাবি চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রধান মেডিকেল অফিসার শামসুর রহমান বলেন, ‘আমরা ছয়জন চিকিৎসক শিক্ষার্থীদের চিকিৎসাসেবা দিয়েছি। কমপক্ষে ৩০ জনের মতো আহত হয়েছে, যার মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা খারাপ ছিল। চারজন মাথায় ইটের আঘাত লেগেছে এবং একজন মুখে ও দাঁতে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে।’ 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ফিরোজ উল হাসান বলেন, ‘বিকেলে খেলাকে কেন্দ্র করে দুই হলের শিক্ষার্থীরা বিবাদে জড়ায়। পরে বটতলা এলাকায় ছাত্ররা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। আমরা সিনিয়র শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।’ 

সংঘর্ষে আহত এক শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে নিয়ে যান সহপাঠীরা। ছবি: আজকের পত্রিকা রাত সাড়ে ৯টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম বলেন, ‘আমি সার্বক্ষণিক প্রক্টরিয়াল বডির সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি। তারা ভালোভাবেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা করেছে। সেই সঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে পুলিশকেও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে রাখা হয়েছে।’ 

আবাসিক হলে আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে উপাচার্য বলেন, ‘বিষয়টি শঙ্কার, আমরা পর্যবেক্ষণ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’ 

পরিদর্শনের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপউপাচার্য অধ্যাপক শেখ মঞ্জুরুল হক, রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল্লাহ হেল কাফি, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোতাহার হোসেন, অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ, অধ্যাপক বশির আহমেদ, অধ্যাপক আতিকুর রহমান, অধ্যাপক হোসাইন মোহাম্মদ সায়েমসহ প্রমুখ। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ‘তুর কলিজায় এতবল আসে কোত্থেকে, সামনাসামনি আয়’

    আগারগাঁওয়ের চাপ কমাতে ঢাকায় পাসপোর্ট অফিসের সীমানা পুনর্নির্ধারণ

    মধুপুরে সালিস বৈঠকে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবকের মৃত্যু

    বিদেশে পালানোর সময় বিমানবন্দরে ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

    নিপাহ ভাইরাসের চিকিৎসা নেই, নিজেদের সাবধান হতে বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

    সন্তানদের খোঁজে ঢাকায় এসে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার নারী

    ৫ ইউনিটের চেষ্টায় পাহাড়তলী বাজারের আগুন নিয়ন্ত্রণে

    ‘তুর কলিজায় এতবল আসে কোত্থেকে, সামনাসামনি আয়’

    শিবগঞ্জে ট্রাক-প্রাইভেট কারের মুখোমুখি সংঘর্ষ, ভাই-বোন নিহত

    ‘হিরোকে যারা জিরো বানাতে এসেছে, তারাই জিরো হয়েছে’

    আঙিনায় জোড়া বাঘ, বনরক্ষীদের শ্বাসরুদ্ধকর ২০ ঘণ্টা

    আগারগাঁওয়ের চাপ কমাতে ঢাকায় পাসপোর্ট অফিসের সীমানা পুনর্নির্ধারণ