Alexa
মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩

সেকশন

epaper
 

অসাম্প্রদায়িকতার বার্তা দিতে মুক্তিযোদ্ধার ৩০০ কিলোমিটার পদযাত্রা

আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:০৫

বীরমুক্তিযোদ্ধা বিমল পালকে আজ ঈশ্বরগঞ্জে ফুল দয়ে শুভেচ্ছা জানান ইউএনও মোসা হাফিজা জেসমিন ও অন্যান্যরা। ছবি: আজকের পত্রিকা নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়িকতার বার্তা পৌঁছে দিতে বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে ৩০০ কিলোমিটার পথ হাঁটছেন ময়মনসিংহের বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল (৭০)। ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে গত শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে তিনি এই পদযাত্রা শুরু করেন। যাত্রাপথে আজ মঙ্গলবার তিনি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বিরতি নেন।

এ সময় তাঁকে জেলা পরিষদের ডাক বাংলো প্রাঙ্গণে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা হাফিজা জেসমিন, ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুস ছাত্তার (কমান্ডার), ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পিএসএম মোস্তাছিনুর রহমান, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুবুল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও স্থানীয় কয়েক জন কবি। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে গত শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে তিনি হাঁটা শুরু করেন। ফুলবাড়িয়া, ভালুকা, ত্রিশাল হয়ে ময়মনসিংহের ১৩টি উপজেলা এবং নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলায় তিনি হাঁটবেন। আগামী ১০ ডিসেম্বর তিনি হালুয়াঘাট থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার হেঁটে আসবেন। ওই দিন বিকেলে ময়মনসিংহ সার্কিট হাউস মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁর পদযাত্রার সমাপ্তি হবে।

এ নিয়ে জানতে চাইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল বলেন, ‘এটি তাঁর চতুর্থ পদযাত্রা। নতুন প্রজন্মসহ সব বয়সী মানুষের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়িকতার বার্তা পৌঁছে দিতে ৩০০ কিলোমিটার পথ হাঁটছি। ব্যক্তি বিমল পাল হিসেবে নয়, সব মুক্তিযোদ্ধার পক্ষ থেকে আমি হাঁটছি। যে অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে মুক্তিযুদ্ধের হয়েছিল, সেই চেতনা পুরোপুরি প্রতিষ্ঠিত হয়নি। তাই এই চেতনা ছড়িয়ে দিতে আমি হাঁটতেই থাকব।’

বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল আরও বলেন, ‘এর আগে বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে হালুয়াঘাট থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ৫০ কিলোমিটার হেঁটেছিলাম। শুধু তা-ই নয় একুশে পদকপ্রাপ্ত ময়মনসিংহের তিন গুণী ব্যক্তির সম্মানে পায়ে হেঁটে তাঁদের বাড়ি পরির্দশনেও গিয়েছি।’

এ নিয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা হাফিজা জেসমিন বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়িকতার বার্তা পৌঁছে দিতে ৩০০ কিলোমিটার পদযাত্রার উদ্যোগটি সত্যিই অনেক প্রশংসনীয় ও গর্বের বিষয়। ইতিহাসের পাতায় অমলিন হয়ে থাকবেন বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল।’ 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    চুয়াডাঙ্গায় ক্ষতিকর রং মেশানো শিশুখাদ্য বিক্রির দায়ে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

    নড়াইলে নিখোঁজের ৫ দিন পর ব্যবসায়ী লাশ উদ্ধার

    বিশ্ববিজয়ী প্রযুক্তিবিদ তৈরি হবে বাংলাদেশে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

    ঠাকুরগাঁও-৩ উপনির্বাচন: কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

    মোংলা ইপিজেডে ভিআইপি-১ কারখানায় আগুন

    রিজওয়ানা হাসানের ওপর হামলায় রাজশাহীর নাগরিক সমাজের নিন্দা

    রাবিতে রাকসু ও সিনেট কার্যকরের দাবি

    আবারও বাংলাদেশের কোচ হাথুরু, বিসিবির ঘোষণা

    চুয়াডাঙ্গায় ক্ষতিকর রং মেশানো শিশুখাদ্য বিক্রির দায়ে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

    বাণিজ্যমেলায় রপ্তানি আদেশ পাওয়া গেছে ৩০০ কোটি টাকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

    নড়াইলে নিখোঁজের ৫ দিন পর ব্যবসায়ী লাশ উদ্ধার

    কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনী সামগ্রী, কড়া নির্দেশনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী