Alexa
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

শুভ বিজয়া দশমী

আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৯:০২

শুভ বিজয়া দশমী আজ বিজয়া দশমী। পাঁচ দিনের দুর্গোৎসবের শেষ দিন। মর্ত্য থেকে আজ কৈলাসে স্বামীগৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী মা দুর্গা। আর এর মধ্য দিয়ে শেষ হবে বাঙালি হিন্দুধর্মাবলম্বীদের অন্যতম বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। আশ্বিন মাসের শুক্লপক্ষের দশমী তিথিতে পিতৃগৃহ ছেড়ে কৈলাসে স্বামীগৃহে পাড়ি দেন দেবী। সে কারণেই এই তিথিকে ‘বিজয়া দশমী’ বলা হয়।

পৌরাণিক কাহিনি মতে, মহিষাসুরের সঙ্গে নয় দিন নয় রাত যুদ্ধ করার পর দশম দিনে তাঁর বিরুদ্ধে বিজয় অর্জন করেছিলেন মা দুর্গা। তাই এ দিনটিকে ‘বিজয়া’ বলা হয়। দেবী দুর্গা অসুরদের দলপতি মহিষাসুরকে বধ করে দেবকুলকে রক্ষা করেছিলেন। তাঁর এই জয়ের মধ্য দিয়ে অন্যায় ও অশুভর বিরুদ্ধে ন্যায় ও শুভশক্তির জয় হয়েছিল।

দুর্গাপূজার উৎসবটি এখন বৈদিক ও লৌকিক নানা প্রথাপদ্ধতির সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে। পূজা উদ্‌যাপনকারীদের আটপৌরে সংসারে হাজারো না-পাওয়ার হতাশা, ব্যর্থতা এবং বিপর্যয়ের মধ্যেও অনেক উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে দেবী দুর্গার উপাসনা করা হয় এই বিশ্বাসে যে দেবী তাঁর সব দুর্গতি মোচন করবেন।
হিন্দুশাস্ত্র মতে, দেবী দুর্গার মর্ত্যে আগমন ও গমন যে বাহনে, তার ওপর নির্ভর করে গোটা বছর পৃথিবীবাসীর কেমন কাটবে। সেদিক থেকে এবারের দুর্গাপূজা বিশ্ববাসীর জন্য শুভ। কারণ এ বছর দেবী দুর্গার আগমন গজে, যার অর্থ শস্যপূর্ণা বসুন্ধরা। কৈলাসে ফিরবেন নৌকায়, যার অর্থ শস্য বৃদ্ধি ও জল বৃদ্ধি।

দুর্গাপূজা হিন্দুধর্মাবলম্বীদের উৎসব হলেও সব ধর্মের মানুষ এর আনন্দ ভাগ করে নেয়। শত শত বছর ধরে বাঙালি হিন্দু-মুসলমান যেমন পাশাপাশি বসবাস করে আসছে, তেমনি তারা একে অপরের ধর্মীয় উৎসবে যোগ দিয়ে সেই সামাজিক সম্প্রীতি আরও সুদৃঢ় করেছে। সব ধর্মের মানুষ এতে শরিক হওয়ায় দুর্গোৎসব সর্বজনীন রূপ নিয়েছে। বাঙালি সংস্কৃতি যে অন্তর্নিহিতভাবে সর্বপ্রাণবাদী, নারী তথা মাতৃচরিত্রের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা আছে, দুর্গাপূজার মধ্য দিয়ে তা ফুটে ওঠে। এই গুণাবলি যতটা ধর্মীয় বিশ্বাস, ততটাই সংস্কৃতির প্রাণরসে ঋদ্ধ।

বিগত বছরগুলোতে যে ধরনের গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছিল, এ বছর তেমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। এটা স্বস্তির। আমরা আশা করব, ভবিষ্যতেও কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই এ দেশের সব ধর্মের ও জাতিগোষ্ঠীর মানুষ নিজ নিজ উৎসব উদ্‌যাপন করবে। উৎসবের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য আরও শক্তিশালী হবে।

তবে গত ২৫ সেপ্টেম্বর মহালয়ার এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে পঞ্চগড়ের করতোয়া নদীতে এক নৌ দুর্ঘটনায় ৬৯ জন পূজারির মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শোকগ্রস্ত করেছে। স্বাভাবিক কারণেই পঞ্চগড় জেলার পূজামণ্ডপগুলো ছিল বিষাদে ঢাকা। আমরা দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারগুলোকে জানাই সমবেদনা।

বিজয়া দশমীর উৎসবের এই শুভক্ষণে আমরা সবাইকে জানাই শারদীয় শুভেচ্ছা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    বাঙালি ইপিআর সদস্যদের কুঠিবাড়ি বিদ্রোহ

    শহীদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেন

    মতভেদ কমিয়ে মুক্তিযুদ্ধে গতি আনার সম্মেলন

    ৪৫০ টাকার চেক

    ধৈর্য ধরুন, সংযত হোন

    একাত্তরের বিজয়ের মাস ও ২০২২-এর বাস্তবতা

    ময়মনসিংহে শিশু ধর্ষণের মামলায় দোকানি গ্রেপ্তার

    চায়না কমলালেবু চাষ করে বাজিমাত শিক্ষক দম্পতির

    সাকিবদের তুলোধুনো করে ঈশানের রেকর্ড গড়া দ্বিশতক

    নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার যন্ত্রপাতি

    মাছ উৎপাদন ও বিপণনে ভিন্নমাত্রা গোয়ালন্দে

    বাস সীমিত, লঞ্চ গেল একটি