Alexa
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

টিকিটসহ ধরা বুকিং সহকারী, বরখাস্ত

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৫১

প্রতীকী ছবি কালোবাজারে বিক্রির জন্য বিভিন্ন ট্রেনের প্রায় ৫০টি টিকিট অগ্রিম কেটে রেখেছিলেন চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের বুকিং সহকারী মো. গিয়াস উদ্দিন। যার বাজারমূল্য প্রায় ৩০ হাজার টাকা। হাতেনাতে ধরা পড়ার পর তাঁকে ১৮ সেপ্টেম্বর সাময়িক বরখাস্ত করেছে রেল প্রশাসন।

এ ঘটনার বিষয়ে জানতে বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ইতি ধরের মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। অভিযোগ রয়েছে, তিনি কোনো সাংবাদিকেরই ফোন ধরেন না। স্টেশনে গিয়ে তদারকও করেন না।

তবে সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, টিকিট নিয়ে অনিয়ম পাওয়ায় গিয়াস উদ্দিন নামের ওই বুকিং সহকারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তবে কী পরিমাণ টিকিট, সে বিষয়ে তিনি বলতে রাজি হননি।

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের এক বুকিং সহকারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, দীর্ঘদিন ধরে গিয়াস উদ্দিন অগ্রিম টিকিট কেটে রেখে কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিলেন। ১৮ সেপ্টেম্বর, ২২ সেপ্টেম্বরের সোনার বাংলা; সুবর্ণ ও তূর্ণা এক্সপ্রেস ট্রেনের প্রায় ৫০টি টিকিট অগ্রিম কেটে রাখেন। ওই দিন রাতে হিসাব মেলাতে গেলে প্রায় ৩০ হাজার টাকার গরমিল পাওয়া যায়। তারপর তাঁকে জিজ্ঞেসাবাদ করলে প্রায় ৫০টি টিকিট কেটে রাখার কথা স্বীকার করেন। পরে ওই সব টিকিট বাণিজ্যিক বিভাগকে ফেরত দেন তিনি।

ওই বুকিং সহকারী আরও জানান, ৫০টি টিকিটের বাজারমূল্য ৩০ হাজার টাকা হলেও গিয়াস উদ্দিন বাড়তি দামে কালোবাজারে বিক্রির জন্য রেখেছিলেন। তিনি এসব টিকিট খালাসি শফিকুল ইসলামের মাধ্যমে বিক্রি করতেন।

বাণিজ্যিক বিভাগ সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে প্রতিদিন ৯টি আন্তনগর ও ৬টি মেইল ট্রেন ছেড়ে যায়। এই স্টেশনে প্রতিদিন ৫ হাজার টিকিট বিক্রি হয়। একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রতিদিন প্রায় ৩ হাজার টিকিট কালোবাজারে যায়। প্রতিটি টিকিট থেকে যদি গড়ে ১০০ টাকাও বেশি নেওয়া হয়, তাহলে প্রতিদিন ৩ লাখ টাকা কালোবাজারিরা হাতিয়ে নেয়। মাসে দাঁড়ায় প্রায় এক কোটি টাকা।

এ বিষয়ে জানতে বুকিং সহকারী গিয়াস উদ্দিন ও খালাসি শফিকুল ইসলামের মুঠোফোনে ফোন করলে তাঁরা কল রিসিভ করেননি। খুদেবার্তা পাঠিয়েও সাড়া মেলেনি।

চট্টগ্রাম স্টেশনের টিকিটের এমন রমরমা বাণিজ্যে চুপ রেলওয়ে পুলিশ। চলতি বছরে একবারও স্টেশনে টিকিট কালোবাজারির বিরুদ্ধে অভিযান চালায়নি। চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিজাম উদ্দিন বলেন, ‘স্টেশনের ভেতরে অভিযান চালানো অনেক সেনসেটিভ বিষয়। আমরা চাইলেও অভিযান চালাতে পারি না।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ইসলামে জুতা পরার আদব

    রেলের ইয়ার্ডকে পতিত জমি দেখিয়ে ইজারা

    বাল্যবিবাহ ঠেকানো শ্রাবন্তীর সাফল্য এখন উদাহরণ

    অ্যাসিড থামাতে পারেনি অদম্য সোনালিকে

    খননের মাটি ফেলা বন্ধে মরিয়া চাষিরা

    ফুটপাতে পিঠা বিক্রির ধুম

    দুই ওভারের আক্ষেপে ম্যাচ জিততে পারল না নিউজিল্যান্ড

    বাড্ডায় শিশুকে ধর্ষণের পর খুনের মামলার একজনকে মৃত্যুদণ্ড

    অস্ত্র মামলায় ভারতীয় দম্পতির কারাদণ্ড

    স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফেসবুকে, যুবক গ্রেপ্তার

    ‘নারী নির্যাতন বন্ধে চাই সহমর্মিতা ও আইনের প্রয়োগ’

    ককটেল বিস্ফোরণ: আ.লীগ নেতার মামলায় বিএনপির ৫ জন গ্রেপ্তার