Alexa
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৩২

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশনে বাংলায় ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়তে অস্ত্র প্রতিযোগিতা, যুদ্ধ ও নিষেধাজ্ঞা বন্ধ করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি সংকট ও বিরোধ নিরসনে সংলাপের ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে বলেছেন। গতকাল শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের স্থানীয় সময় বিকেলে (বাংলাদেশ সময় রাত ৩টা ২৭ মিনিট) সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশনে বাংলায় দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বিশ্ববিবেকের কাছে আমার আবেদন, অস্ত্র প্রতিযোগিতা, যুদ্ধ ও স্যাংশন বন্ধ করুন। শিশুকে খাদ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও নিরাপত্তা দিন। শান্তি প্রতিষ্ঠা করুন।’

যুদ্ধের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যুদ্ধ বা একতরফা জবরদস্তিমূলক অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা, পাল্টা নিষেধাজ্ঞার মতো বৈরী পন্থা কখনো কোনো জাতির মঙ্গল বয়ে আনতে পারে না। পারস্পরিক আলাপ-আলোচনাই সংকট ও বিরোধ নিষ্পত্তির সর্বোত্তম উপায়।’

সংঘাতের মূল কারণগুলো সমাধান না করে শান্তি বজায় রাখা সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেছেন, ‘আমরা ইউক্রেন ও রাশিয়ার সংঘাতের অবসান চাই। নিষেধাজ্ঞা, পাল্টা নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে একটি দেশকে শাস্তি দিতে গিয়ে নারী, শিশুসহ গোটা মানবজাতিকেই শাস্তি দেওয়া হয়। এর প্রভাব কেবল একটি দেশেই সীমাবদ্ধ থাকে না, বরং সব মানুষের জীবন-জীবিকা মহাসংকটে পতিত হয়। মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়। মানুষ খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হয়। বিশেষ করে শিশুরাই বেশি কষ্ট ভোগ করে। তাদের ভবিষ্যৎ অন্ধকারে হারিয়ে যায়।’

কোভিড-১৯ মহামারি প্রাদুর্ভাবের পর এই প্রথম ১৯৩টি সদস্য দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের সশরীরে উপস্থিতির মাধ্যমে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশন ১৩ থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে সংস্থার সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এই অধিবেশন এমন এক সময়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে, যখন খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার সঙ্গে বিশ্বজুড়ে জলবায়ু পরিবর্তন, সহিংসতা ও সংঘাত, কোভিড-১৯ মহামারির মতো একাধিক জটিল ও বহুমাত্রিক প্রতিকূলতায় পৃথিবী নামক আমাদের এই গ্রহ আজ জর্জরিত। মানবিক চাহিদা গভীর হচ্ছে, জলবায়ু লক্ষ্যগুলো মূলত অপূর্ণ থেকে যাচ্ছে, বৈষম্য আরও প্রকট হচ্ছে।’

শেখ হাসিনার ভাষণে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, শান্তি ও স্থিতিশীলতা, জলবায়ু পরিবর্তন, খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা, কোভিড-১৯ মহামারি, ফিলিস্তিন এবং অভিবাসনবিষয়ক বৈশ্বিক ও বাংলাদেশের দৃষ্টিভঙ্গি উল্লেখযোগ্যভাবে স্থান পেয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘গত আড়াই বছরে বিশ্ব যখন করোনাভাইরাস মহামারির বিধ্বংসী প্রভাব থেকে পুনরুদ্ধার পেতে শুরু করেছে, তখন রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাত বিশ্বকে একটি সম্মিলিত অনিশ্চয়তায় নিমজ্জিত করেছে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের ক্ষেত্রে সহায়তাপ্রার্থী ঝঁকিপূর্ণ দেশগুলো এখন আরও প্রতিকূলতার মুখে পড়েছে। বর্তমানে আমরা এমন একটি সংকটময় সময় অতিক্রম করছি, যখন অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে অধিক পারস্পরিক সংহতি প্রদর্শন করা আবশ্যক।’

জাতিসংঘকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমাদের প্রমাণ করতে হবে, সংকটেরমুহূর্তে বহুপাক্ষিক ব্যবস্থার মূল ভিত্তি হলো জাতিসংঘ। তাই সর্বস্তরের জনগণের বিশ্বাস ও আস্থা অর্জনের জন্য জাতিসংঘকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে সবার প্রত্যাশা পূরণে কাজ করতে হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন ১৪০ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী

    বেসরকারিভাবে জ্বালানি আমদানির চিন্তা করছে সরকার: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

    বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই সমাবেশ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

    দেশকে যাতে কখনই দুর্ভিক্ষের কবলে পড়তে না হয়: সচিবদের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

    অতিরিক্ত ব্যয়ের কারণে গঠন হচ্ছে না পদ্মা-মেঘনা বিভাগ

    বঙ্গবন্ধু টানেলের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে: প্রধানমন্ত্রী

    অস্ত্র মামলায় ভারতীয় দম্পতির কারাদণ্ড

    স্কুলছাত্রীর আপত্তিকর ভিডিও ফেসবুকে, যুবক গ্রেপ্তার

    ‘নারী নির্যাতন বন্ধে চাই সহমর্মিতা ও আইনের প্রয়োগ’

    ককটেল বিস্ফোরণ: আ. লীগ নেতার মামলায় বিএনপির ৫ জন গ্রেপ্তার

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    যে পরিবর্তন নিয়ে টিকে থাকার লড়াইয়ে নামছে আর্জেন্টিনা

    ইসলামে জুতা পরার আদব