Alexa
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

যাদের সারের প্রয়োজন নেই, তারাও লাইনে দাঁড়িয়ে ঝামেলা করছে: খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:০০

নওগাঁর মহাদেবপুরে প্রস্তাবিত রাইস সাইলো নির্মাণের মাটি ভরাটকাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী। ছবি: আজকের পত্রিকা  কোথাও সারের কোনো সংকট নেই জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘যাদের সারের প্রয়োজন নেই, তারাও ডিলারের কাছে গিয়ে দীর্ঘ লাইন ধরে একটা ঝামেলা তৈরি করে অঘটন ঘটানোর চেষ্টা করছে।’

আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় নওগাঁর মহাদেবপুরে প্রস্তাবিত রাইস সাইলো নির্মাণের মাটি ভরাটকাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব বলেন মন্ত্রী।  

মন্ত্রী বলেন, ‘সারের সংকট আছে বলে মিথ্যা রটিয়ে একটি গোষ্ঠী আতঙ্ক তৈরির চেষ্টা করছে। তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়। সার নিয়ে অহেতুক অস্থিরতা তৈরি করলে কেউই রেহাই পাবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন মন্ত্রী। 

সারের বরাদ্দ কমেনি জানিয়ে  খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গত বছরের থেকে এবার সারের বরাদ্দ এক টনও কমেনি, কিন্তু জমির পরিমাণ কমেছে। এ অবস্থায় সারের সংকট হওয়ার সুযোগ নেই। এখানে সার নিয়ে প্যানিক সৃষ্টি করা হচ্ছে। এ কারণে যাদের এক বস্তা সার প্রয়োজন, তারা দুই বস্তা সার চায়।’  

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যাদের সারের প্রয়োজন নেই, তারাও ডিলারের কাছে গিয়ে দীর্ঘ লাইন ধরে একটা ঝামেলা তৈরি করে অঘটন ঘটানোর চেষ্টা করছে। নওগাঁয় সারের সংকট যাতে না হয়, এ জন্য অতিরিক্ত বরাদ্দ নেওয়া হয়েছে। কোথাও সারের কোনো সংকট নেই।’ 

সাধন চন্দ্র মজুমদার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘সার, ওএমএস ও খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির সঙ্গে কেউ অনিয়ম-দুর্নীতি করলে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে জেল-জরিমানা, ডিলারশিপ বাতিলসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ 

নওগাঁয় প্রস্তাবিত অত্যাধুনিক রাইস সাইলো সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে নওগাঁয় ১৫ একর জমিতে নির্মাণ করা হচ্ছে প্রায় ৪৮ হাজার মেট্রিক টন ধারণক্ষমতার একটি অত্যাধুনিক সাইলো। ইতিমধ্যেই সেখানে মাটি ভড়াটের কাজ শুরু হয়েছে। সাইলোটি নির্মাণ সম্পন্ন হলে খাদ্যশস্য নিরাপদ মজুতের পাশাপাশি এলাকার আর্থসামাজিক উন্নয় হবে। অনেকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। সাইলোতে দুই বছর পর্যন্ত চাল মজুত রাখলে বিবর্ণ ও গুণগত মান নষ্ট হবে না বলেও জানান তিনি। 

এ সময় রাজশাহীর আঞ্চলিক খাদ্যনিয়ন্ত্রক জি এম ফারুক হোসেন পাটোয়ারী, খাদ্যমন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. সহিদুজ্জামান, জেলা খাদ্যনিয়ন্ত্রক আলমগীর কবিরসহ স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ইইউতে যাচ্ছে সংসদের প্রতিনিধি দল

    সেনাবাহিনীর অর্জিত সুনাম আরও বৃদ্ধি করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

    ‘সুসম্পর্ক থাকলে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে কোনো কিছু বাধা হয়ে থাকবে না’

    মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন ১৪০ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী

    অবৈধ অনুপ্রবেশ বন্ধে শিগগিরই বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে যৌথ টহল

    বঙ্গবন্ধু টানেলের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে: প্রধানমন্ত্রী

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    মেসিদের নিয়ে ভাবছেন না দানি আলভেস

    ১৩৪ বিদ্যালয়ের ৫৩টিতে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য

    বন্য হাতিআতঙ্ক, রাত জেগে খেত পাহারা

    দোকানের পাশে পড়ে ছিল ব্যবসায়ীর রক্তাক্ত লাশ

    ভরা মৌসুমে পর্যটকের খরা পূর্ব সুন্দরবনে

    পিকআপসহ আন্তজেলা গাড়ি চোর চক্রের ৬ সদস্য আটক