Alexa
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

আরবে ব্রিটিশ রানির শেষ পদচিহ্ন

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩৪

এডেনে রানির ভাস্কর্য ব্রিটিশ রানি হিসেবে রাজকীয় অভিষেকের এক বছরেরও কম সময় পর ১৯৫৪ সালের এপ্রিলে এডেন বন্দরে এসে নামেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ। সরাসরি ব্রিটিশ উপনিবেশে থাকা আরবের একমাত্র এলাকা এডেন, যা এখন ইয়েমেনের একটি অংশ। তখনকার একটি ছবিতে দেখা যায়, রানিকে স্বাগত জানাচ্ছেন ব্রিটিশ কর্মকর্তারা। এ সময় তাঁকে এক নজর দেখতে ভিড় করেছেন হাজার হাজার মানুষ।

ওই বছরই প্রথম ও শেষবার এডেনে নাইটহুডের অনুষ্ঠান হয়। নাইটহুড দেওয়া হয়েছিল স্থানীয় নেতা সাঈদ আবু বকর বিন শেখ আল-কাফকে। ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে রানির উদ্দেশে মাথা নত করতে অপারগতা প্রকাশ করেছিলেন তিনি।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বলছে, আরব উপদ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমের বন্দর এডেন ১৯৩৭ সালে সরাসরি ব্রিটিশের অধীনে চলে আসে। এর আগে ১৮৩৯ সালে এটি দখল করা হয়। তখন থেকে এডেন ব্রিটিশ ভারতের একটি অংশ হিসেবে শাসন করা হতো।

এডেন সরাসরি যুক্তরাজ্যশাসিত এলাকা ছিল। এখানে কোনো স্থানীয় প্রশাসন ছিল না। আধুনিক এবং সবচেয়ে ব্যস্ত শহরের তকমা লেগে ছিল এডেনের সঙ্গে। এই তকমাই আকর্ষণ করেছে ব্রিটিশদের। এডেনের মাধ্যমে তখনই তেল ও গ্যাস খাতে আরবে নিজেদের প্রভাব বিস্তার করতে চেয়েছিল তারা।

তবে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের এডেন সফরের ১৩ বছর পরই ব্রিটিশদের পালিয়ে যেতে হয় এডেন ছেড়ে। ১৯৬৩ সালে ব্রিটিশের বিরুদ্ধে শুরু হয় প্রতিবাদ।

নিজেদের স্বাধীনতার জন্য স্থানীয় বাসিন্দারা লড়াই শুরু করেন। একসময় সফল হন তাঁরা।

রানির মৃত্যুর পর আবার আলোচনায় এসেছে এই ইয়েমেন। ইয়েমেনের অভিবাসীদের মধ্যে বেশির ভাগ এখন বাস করেন যুক্তরাজ্যে। একসময় ইয়েমেনিদের একটি অংশ ব্রিটিশ নৌবাহিনীতে যোগ দিয়েছিল। থাকত লিভারপুল, শেফিল্ড ও বার্মিংহামে। এখন যাঁরা বাস করছেন, তাঁরা এঁদেরই বংশধর।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    সাটুরিয়ায় মারধরে আহত যুবকের মৃত্যু ঢাকায়

    সন্তানসহ প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনা ‘টাকায় মীমাংসা’

    মমেকে এক সপ্তাহে ৯৬ শিশু ও নবজাতকের মৃত্যু

    মৃত্যুর ব্যাপারে উদাসীনতা আল্লাহর অবাধ্যতা

    ৪৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানের পদ শূন্য

    নিহত বেড়ে ২৬৮, আটকে পড়াদের উদ্ধারে জোর চেষ্টা

    বিএনপি নেতা সোহেলসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

    কেউ নৌকায় কেউবা ঘোড়ায় চড়ে যাচ্ছেন কক্সবাজারের সমাবেশে 

    দোনেৎস্কে সড়ক দুর্ঘটনায় রুশ সৈন্যসহ ১৬ জন নিহত

    আপনারা মানুষের পর্যায়ে নেই: শ্যামলী-এনআর ট্রাভেলসের এমডিকে হাইকোর্ট

    শীর্ষ পদপ্রত্যাশীদের নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ

    ‘ঘুষ নেওয়ায়’ দুই বনপ্রহরী বরখাস্ত ৫ জনকে শোকজ