Alexa
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

মন্ত্রী-এমপি থাকা অবস্থায় নির্বাচনে অংশ নিলে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড সম্ভব নয়: টিআইবি

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২০:৩৩

প্রতীকী ছবি সরকারের মন্ত্রী ও জাতীয় সংসদে এমপি পদে থাকা অবস্থায় ভোটে অংশ নিলে নির্বাচনের সময় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা সম্ভব হয় না বলে মনে করছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান। আন্তর্জাতিক গণতান্ত্রিক দিবস উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার এক ভার্চুয়াল সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি। 

টিআইবির নির্বাহী পরিচালকের মতে, ‘মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য থাকা অবস্থায় যখন ভোটে অংশ নেওয়া হয় তখন অটোমেটিক ফিল্ড নষ্ট হয়। স্থানীয় প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার মধ্যে চাপ থাকে। এ বিষয়ে খতিয়ে দেখে আইনের প্রয়োজনীয় সংস্কার দরকার।’  

‘অন্তর্ভুক্তিমূলক নির্বাচন: গণতান্ত্রিক সুশাসনের চ্যালেঞ্জ উত্তরণে করণীয়’ শীর্ষক এই ভার্চুয়াল সভায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার, ইভিএমসহ বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা করেন বক্তারা। 

সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন টিআইবির গবেষণা ও পলিসি বিভাগের পরিচালক মো. রফিকুল হাসান। তাঁর মতে, যদি সব দলের আস্থা সৃষ্টির মাধ্যমে তাদের নির্বাচনে নিয়ে আসতে আইনগত পরিবর্তন-সংস্কার প্রয়োজন হয়, তাহলে নির্বাচন কমিশনকে সে কথা স্পষ্টভাবে সরকারকে জানিয়ে দিতে হবে। চলমান আইনি কাঠামোর বিভিন্ন ঘাটতি, যা নির্বাচনকে সুষ্ঠু, অবাধ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক করার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের সক্ষমতা সৃষ্টিতে বাধা দেয়, সেগুলো দূর করার জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করা ইসির প্রাতিষ্ঠানিক ও নৈতিক দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। 

রফিকুল হাসান আরও বলেন, ‘এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশন ঘোষণা করেছে যে ভোটগ্রহণের জন্য এবার সর্বোচ্চ ১৫০টি আসনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। তবে এই সিদ্ধান্তে বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা এসেছে। অনেকেই এটিকে নতুন নির্বাচন কমিশনের ওপর জনগণের আস্থা সৃষ্টির ক্ষেত্রে গুরুতর নেতিবাচক একটি পদক্ষেপ বলে মনে করছেন। টিআইবি মনে করে ইসির এই সিদ্ধান্ত অত্যন্ত বিতর্কিত এবং তা উল্লেখযোগ্যসংখ্যক রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজ ও অংশীজনদের উদ্বেগকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করেছে।’

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান মনে করেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রয়োজন নেই, সাংবিধানিকভাবে এটি সম্ভব নয়।’ ইফতেখারুজ্জামান আরও বলেন, ‘আমরা কোনো অবস্থায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা বলছি না। এটির প্রয়োজন নেই, আমরা মনে করি, এটি সাংবিধানিকভাবে সম্ভব নয়।’ 

সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা মূল উদ্বেগের জায়গা জানিয়ে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, সেটি করার ক্ষেত্রে কিছু প্রতিবন্ধকতা আছে। ভোটের সময়ে সরকারের ভূমিকা কতটা নিরপেক্ষ হবে, স্বার্থের দ্বন্দ্ব কতটা হবে—সেটি নিশ্চিত করার জন্য আইনি সংস্কারের প্রয়োজন রয়েছে।
 
ইভিএমের ক্ষেত্রে বিতর্ক আছে জানিয়ে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, ইসির উচিত হবে এর রাজনৈতিক, কারিগরি ও অর্থনৈতিক দিক বিবেচনা করে দেখা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ‘ভোটের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের ভয়ের ঊর্ধ্বে গিয়ে কাজ করতে হবে’

    আরপিও সংশোধন: তিন চিঠির পর আইন মন্ত্রণালয়ের সাড়া পেল ইসি

    মুক্ত গণতান্ত্রিক পরিবেশ ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে ইইউর তাগিদ 

    আগামী নির্বাচনে নৌকার জন্য ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

    পুলিশ নয়, নির্বাচনে ভারসাম্য তৈরি করবে রাজনৈতিক দল: সিইসি

    নির্বাচনে স্বচ্ছতা আওয়ামী লীগের আন্দোলনের ফসল: শেখ হাসিনা

    নেত্রকোনায় ‘জমি নিয়ে বিরোধের’ জেরে ভাইকে কুপিয়ে জখম, বড় ভাই গ্রেপ্তার

    ফুটবল তারকাদের চুলের ছাঁট

    নামমাত্র সড়ক সংস্কার করে প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

    সাভারে চালককে অচেতন করে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের চেষ্টা

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    নেইমার সারা রাত কেঁদেছিলেন

    বাংলাদেশকে পাশে চায় কাতার