বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪

সেকশন

 

চারঘাটে বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা

আপডেট : ২৪ আগস্ট ২০২২, ১২:৫২

প্রতীকী ছবি রাজশাহীর চারঘাটে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনায় বাড়ছে উদ্বেগ। উপজেলায় দুই সপ্তাহের মধ্যে শিশু, প্রতিবন্ধী নারীসহ চারজন ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সদস্যরা গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

পুলিশ ও ভুক্তভোগীদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, দুই সপ্তাহে দুজন মানসিক প্রতিবন্ধী, একটি শিশু ও একজন তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়। চারটি ঘটনার দুটিতে ইতিমধ্যে মামলা হয়েছে।

৯ আগস্ট ৮ বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়। এ ঘটনায় শিশুর পরিবার থানায় অভিযোগ দিতে চাইলেও স্থানীয় নেতারা সমঝোতার মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

১৯ আগস্ট এক মানসিক প্রতিবন্ধী নারীকে (৩০) রশিদ কালু নামের এক ব্যক্তি ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় করা মামলায় পুলিশ কালুকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

এক দিন পর ২০ আগস্ট আরেক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারীকে (৩১) ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়। এ ঘটনায় একরাম হোসেন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

দুই দিন পর ২২ আগস্ট এক তরুণী (২০) আকবর আলী ফকির নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণের অভিযোগ করেন। এ অভিযোগ তদন্ত করছে পুলিশ।
একের পর এক ধর্ষণের পেছনে সামাজিক অস্থিরতা, ইন্টারনেটের অবাধ ব্যবহার, বিচারহীনতা ও বিকৃতি মানসিকতাকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম চারঘাট উপজেলার সভাপতি ফজিলাতুন নাহার বলেন, ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উপজেলায় নারীদের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়েছে। তাই সামাজিক ও মনোজাগতিক পরিবর্তন জরুরি হয়ে পড়েছে। নারীর মর্যাদা নিশ্চিত করতে হবে পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে। বিচারের দীর্ঘসূত্রতা থেকে বেরিয়ে এসে ধর্ষকদের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করতে পারলেই এ ধরনের অপরাধ সমাজ থেকে অনেকটা কমে যাবে।

   ধর্ষণ রোধে প্রশাসনের কঠোর নজরদারির পাশাপাশি সামাজিকভাবে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত।

   আব্দুল লতিফ, চারঘাট মডেল থানার ওসি

সম্প্রতি ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন চারঘাট শাখার সভাপতি সাইফুল ইসলাম বাদশা বলেন, এসব ঘটনার পেছনে বিচারের দীর্ঘসূত্রতা, ক্ষমতার অপপ্রয়োগ ও সামাজিক সমস্যা দায়ী।

সাইফুল জানান, বছরখানেক আগে উপজেলায় পাঁচ বছর বয়সী দুই শিশু ধর্ষণের শিকার হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আসামি জামিনে বের হয়ে এসে এখন পলাতক। কাজেই এসব জঘন্য অপরাধের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করতে না পারলে অপরাধ কমবে না।

এ বিষয়ে চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ বলেন, দুজন প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করে আসামিদের তাৎক্ষণিক আটক করা হয়েছে। ধর্ষণ রোধে প্রশাসনের কঠোর নজরদারির পাশাপাশি সামাজিকভাবে সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     

    দুদিনেও উইকেটের দেখা পাননি শান্তরা

    সাক্ষাৎকার

    আগে থেকেই পরিকল্পনা ছিল ‘তুফান টু’ বানানোর

    সামিটের এলএনজি টার্মিনাল সিঙ্গাপুরে, গরমে বাড়বে লোডশেডিং

    ঈদের চতুর্থ দিনের টিভি আয়োজন

    আবারও টালিউড সিনেমায় তারিন

    মারজুকের সঙ্গে আলী হাসানের ‘নানা-নাতি’

    বন্ধুর গোপনাঙ্গ কেটে নিজেরও কাটলেন তরুণ, হাসপাতালে মৃত্যু

    এবারও চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা, নাকি অন্য কেউ

    বিদেশি ফলে ভরছে দেশের মাঠ, ৫টির চাষ সবচেয়ে বেশি

    বাংলাদেশের সুপার এইটের ম্যাচ দেখবেন কোথায় 

    রোহিঙ্গাদের কারণে এনআইডি পেতে ৩২ উপজেলার মানুষের ভোগান্তি

    রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২