Alexa
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

সেকশন

epaper
 

বিতর্কে বিভক্ত ঢাকাই সিনেমা

অভিনেত্রী মাহির দাবি, সরকারের কাছ থেকে প্রযোজক জেনিফার ৬০ লাখ টাকা অনুদান পেলেও খরচ করেছেন ২৫ লাখ টাকা। বাকি টাকা নিজের কাজে ব্যবহার করেছেন।

আপডেট : ২০ আগস্ট ২০২২, ০৯:০১

রোশান ও মাহিয়া মাহি ছবি: সংগৃহীত ঢাকাই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির সাম্প্রতিক চেহারা দেখে যে কারোরই মনে হতে পারে, সিরিয়ালের ড্রইংরুমের ‘ঝগড়া’ বুঝি এসে পড়েছে বাস্তবে! শিল্পী-নির্মাতা-প্রযোজকদের মুখোমুখি অবস্থানে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন সিনেমাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

‘আশীর্বাদ’ সিনেমার কথাই ধরা যাক। মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত সরকারি অনুদানের সিনেমাটি মুক্তির কথা ছিল ১৯ আগস্ট। পরবর্তী সময়ে পিছিয়ে ২৬ আগস্ট নেওয়া হয়েছে। গত সপ্তাহে ‘আশীর্বাদ’-এর সংবাদ সম্মেলন ডাকেন প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস। পরিচালক সেখানে থাকলেও ছিলেন না সিনেমাটির প্রধান দুই মুখ মাহিয়া মাহি ও রোশান। কেন নেই তাঁরা—এমন প্রশ্নের উত্তরে মাহি ও রোশানের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ হাজির করেন প্রযোজক জেনিফার। এর জবাব দিতে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন ডাকেন রোশান ও মাহি।

সেখানে প্রযোজকের বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ আনেন মাহি। অভিনেত্রী দাবি করেন, সরকারের কাছ থেকে প্রযোজক জেনিফার ৬০ লাখ টাকা অনুদান পেলেও খরচ করেছেন ২৫ লাখ টাকা। বাকি টাকা নিজের কাজে ব্যবহার করেছেন।

সিনেমাটির অভিনয়শিল্পীদের অনেককেই পারিশ্রমিক দেননি প্রযোজক, এমন অভিযোগও তুলেছেন মাহি।

 মাহিয়া মাহি ছবি: সংগৃহীত অভিনেতা রোশান বলেন, ‘প্রযোজক টাকা বাঁচানোর জন্য গ্রামের অংশের শুটিংয়ে যাকে পেয়েছেন, তাকে ধরে নিয়ে পাকিস্তানি আর্মি বানিয়ে দিয়েছেন।’ এ ছাড়া শুটিংয়ে দুর্ব্যবহার, পরিচালকের কাজে হস্তক্ষেপ, ঠিকমতো খাবার, পানি না পাওয়াসহ প্রযোজকের বিরুদ্ধে অভিযোগের কমতি ছিল না রোশান-মাহির। তাঁদের এই তর্ক-বিতর্কের রেশ এখানেই শেষ হবে, সেটা হলফ করে বলা যাচ্ছে না। রোশান-মাহির অভিযোগের জবাব দিতে প্রযোজক আরেকটি সংবাদ সম্মেলনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে তুমুল বাগ্‌যুদ্ধে জড়িয়েছেন খল অভিনেতা মিশা সওদাগর ও অনন্ত জলিল। তাঁদের পাল্টাপাল্টি মন্তব্যে কয়েক দিন আগপর্যন্ত উত্তাল ছিল ঢাকাই সিনেমাপাড়া। মিশা যেমন একদিকে অনন্তের উদ্দেশে বলেছেন, ‘উচ্চারণ ঠিক নাই, নাচতে পারে না, ফাইট পারে না। মিথ্যুক। ‘‘দিন: দ্য ডে’’ যে ১২০ কোটি টাকার ছবি, এটা কেউ বিশ্বাস করবে না।’ অন্যদিকে মিশার উদ্দেশে অনন্ত বলেছেন, ‘মিশার দ্বারা ইন্ডাস্ট্রির কোনো উপকার হয়নি।’ এমনকি মিশার নানা কর্মকাণ্ডের সমালোচনাও করেছেন অনন্ত জলিল।

মাহিয়া মাহি ছবি: সংগৃহীত তাঁদের এই বাগ্‌যুদ্ধ যখন একটু স্তিমিত হয়ে এসেছে, তখনই অনন্ত জলিল নতুন বিতর্কে জড়িয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ‘দিন: দ্য ডে’ সিনেমার পরিচালক মুর্তজা আতাশ জমজম। বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে মুর্তজা অভিযোগ করেন, এই সিনেমার শুরুতে যেসব চুক্তি ছিল, তার কিছুই রক্ষা করেননি অনন্ত জলিল। এ অভিযোগ অস্বীকার করে অনন্ত বলছেন, ‘চুক্তিতে যেভাবে যা কিছু উল্লেখ ছিল, সে অনুযায়ীই আমি কাজ করেছি। যদি আমার কাছে তিনি ১০০ টাকাও পাওনা থাকতেন, তাহলে তিনি কী আমাকে সিনেমার সম্পূর্ণ ফুটেজ দিতেন?’

এসব আলোচনা-সমালোচনা-তর্ক-বিতর্কের কারণে একদিকে যেমন সিনেমা নির্মাণ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে, বিতৃষ্ণা জমছে দর্শকের মনেও। ইন্ডাস্ট্রির স্বার্থে কাদা-ছোড়াছুড়ি বন্ধ করে সহযোগিতামূলক মন নিয়ে কাজ করা উচিত বলে মত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ভুয়া ও মৃত জেলেদের নামে চাল আত্মসাৎ চেয়ারম্যানের

    বালু উত্তোলন বন্ধই হচ্ছে না

    ভুয়া ও মৃত জেলেদের নামে চাল আত্মসাৎ চেয়ারম্যানের

    আটক ১৭ জেলেকে ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

    ঘরে ঘরে চোখ ওঠা রোগী সুযোগে বাড়ল ড্রপের দাম

    একুয়ানের ইতালি যাওয়া হলো না, লাশ হয়ে ফিরলেন বাড়ি

    আবারও বলছি, খবর আছে: বিএনপিকে কাদের

    কার্যকর গণতন্ত্রের জন্য চাই দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট সংসদ: ড. তোফায়েল

    তোয়াব খানের মৃত্যুতে আইজিপি ও র‍্যাব প্রধানের শোক

    কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচার শুরু

    বিশ্ববিদ্যালয়ে ই-নথি ব্যবস্থা জোরদারের আহ্বান

    জ্যোতিদের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা দেখছেন পাপন