Alexa
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

সেকশন

epaper
 

সরকারের মুখে মধু অন্তরে বিষ: ঢাবি সাদা দল 

আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৮:২৭

অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘বিদ্যুৎ খাতে বিপর্যয় এবং জ্বালানি ও দ্রব্য মূলের অস্বাভাবিক বৃদ্ধির প্রতিবাদে’ মানববন্ধন করে সাদা দল। ছবি: আজকের পত্রিকা    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের সাবেক আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারের মুখে মধু অন্তরে বিষ রয়েছে।’ 

আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘বিদ্যুৎ খাতে বিপর্যয় এবং জ্বালানি ও দ্রব্য মূলের অস্বাভাবিক বৃদ্ধির প্রতিবাদে’ এক মানববন্ধনে এ মন্তব্য করেন তিনি। 

প্রধানমন্ত্রীর আন্দোলনের সুযোগ দেওয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘কয়েক দিন আগে সরকার বলেছে এখন যারা আন্দোলন করতে চায় তাদের আন্দোলন করতে দেওয়া হোক। আন্দোলন করলে আমরা আপত্তি করব না। প্রয়োজনে তারা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও করলেও তাদের চায়ের দাওয়াত দেওয়া হবে। এই সমস্ত মুখে মধু রেখে অন্তরে বিষ। চট্টগ্রামের ভাষায় একটা কথা আছে, “মধু হই হই আরে বিষ খাওয়াইলা” ব্যাপারটা সেরকম। মুখে মুখে মধু দিচ্ছে অন্তরে ষোলো আনাই বিষ ৷ ভোলায় মিছিল হয়েছে, ছাত্রদলের সভাপতি মারা গেছে, তাদেরকে মধু খাওয়াইছে নাকি বিষ খাওয়াইছে সেটা হচ্ছে দেখার বিষয়। সুতরাং আন্দোলন করলে কিছু করা হবে না, এ সমস্ত ভণ্ড কথা বাদ দেওয়া উচিত।’ 

অধ্যাপক ড. ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘২০০৯ সালে এই সরকার মঈনুদ্দিন-ফখরুদ্দিনের সহযোগিতায় ক্ষমতায় আসে। তখন তাদের স্লোগান ছিল দিন বদলের স্লোগান। দিন বদলের স্লোগান দিয়ে, বাংলাদেশকে সিঙ্গাপুর বানানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে তারা ক্ষমতার মসনদে বসেছিল। তখন বলা হয়েছিল দশ টাকা কেজি দরে চাল খাওয়াবে। ওই সময় সতেরো টাকা চালের কেজি ছিল। সেই টাকা এখন কত গুণ হয়েছে সেটা নামতা পড়লে পাওয়া যাবে। বর্তমানে চালের দাম আশি টাকা।’

ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘পেঁয়াজের যখন দাম বাড়ে শেখ হাসিনা তখন মাঝে মাঝে বলেন পেঁয়াজ না খেলে কি হয়, আবার বলেন, বেগুনি না খেলে কি হয়, কুমড়া দিয়ে কামড়ানি খেলেই তো হয়। যখনই কোন কিছুর দাম বেড়ে যায় তখন এই ধরনের কিছু কিছু তত্ত্ব সামনে নিয়ে উনি ফতোয়া দেন আর সেই ফতোয়াগুলো শুনে জাতি বিভ্রান্ত হয়, আমরা বিভ্রান্ত হই। আজকে তারই প্রতিবাদে সাদা দল আমরা এখানে দাঁড়িয়েছি।’ 

সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে ও অ্যাকাউন্টিং ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আল আমিনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. এমরান কাইয়ুম, অধ্যাপক ড. আব্দুস সালাম, ফিন্যান্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী প্রমুখ। 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সরকার সবকিছুর দাম বাড়িয়ে জনগণের নাভিশ্বাস তৈরি করেছে। বিদ্যুৎখাতসহ সবখাত এখন দুর্নীতির আখড়াতে পরিণত হয়েছে। ব্রিজ আর ফ্লাইওভার করে দিলেই উন্নয়ন হয় না। তার আগে মানুষের গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার দরকার বলে মন্তব্য করেন বক্তারা ৷ একই সঙ্গে আগামীর নির্বাচনে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার ফিরিয়ে নিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা সাধারণ জনগণের সঙ্গে মিলেমিশে আন্দোলন করে অধিকার ফিরিয়ে আনবে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকেরা। 

সভাপতির বক্তব্যে মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাতির বিবেক, মুক্তবুদ্ধি চর্চার কেন্দ্র। বাংলাদেশ এবং এই জাতির যেকোনো ক্রান্তিলগ্নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রীরা জাতিকে সব সময় দিকনির্দেশনা দিয়েছে এবং জাতিকে সেই ক্রান্তিকাল থেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। বর্তমানেও বাংলাদেশের যে পরিস্থিতি সেটি জাতির একটি ক্রান্তিলগ্ন। স্বাধীনতার পর এ রকম ক্রান্তিলগ্ন আর এ দেশের মানুষ দেখেনি। আমরা জনগণের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবেকবান শিক্ষকেরা এখানে দাঁড়িয়েছি।’ 

লুৎফর রহমান আরও বলেন, ‘বিদ্যুৎ খাতের বিপর্যয় একদিনে ঘটেনি। এটা অনেক দিনের, অনেক বছরের সমন্বিত প্রভাব। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ খাতের অব্যবস্থাপনা, চুরি-ডাকাতি, রেন্টাল এবং কুইক রেন্টালের নামে টাকা পয়সা যে পাচার করা হয়েছে কিংবা দিয়ে দেওয়া হয়েছে বিভিন্ন নামে তারই সমন্বিত প্রভাব আজকের এই বিদ্যুৎ খাতের বিপর্যয়। এবং এই বিপর্যয়ের ফলেই দেশের যে উৎপাদন, সেটাতে প্রভাব পড়েছে। যেটি জনগণের দুর্ভোগে পরিণত হয়েছে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    কিশোরগঞ্জের পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেল প্রায় ৪ কোটি টাকা

    রাজধানীতে বাসা থেকে নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

    শিবালয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশ নিহত

    পরিত্যক্ত সিনেমা হলে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেপ্তার ২ 

    গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইআরডিএফবি’র আত্মপ্রকাশ

    রাজধানীর খিলগাঁওয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    টেকনাফে আবারও এক কৃষককে অপহরণ করেছে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা

    কিশোরগঞ্জের পাগলা মসজিদের দানবাক্সে পাওয়া গেল প্রায় ৪ কোটি টাকা

    রাজধানীতে বাসা থেকে নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

    এই সুন্দর মুখ দেখতে চাই, এমপিকে কটাক্ষ করে ওবায়দুল কাদের

    শিবালয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশ নিহত

    আবারও বলছি, খবর আছে: বিএনপিকে কাদের