Alexa
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

নারী ও সংখ্যালঘুদের অধিকার সমুন্নত রাখতে হবে, তালেবানকে ইইউ

আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০২২, ০৯:৪০

আফগানিস্তানে নারী ও সংখ্যালঘুদের অধিকার সংকুচিত হয়েছে। ছবি: টুইটার আফগানিস্তানে ক্ষমতাসীন তালেবান সরকারকে আচরণ পরিবর্তন করার আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। একই সঙ্গে নারী ও সংখ্যালঘু জনগণের অধিকার সমুন্নত রাখতে বলেছে। দেশটিতে ইসলামপন্থী গোষ্ঠী তালেবানের ক্ষমতা গ্রহণের এক বছরপূর্তিতে এ আহ্বান জানাল ইইউ। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

স্থানীয় সময় সোমবার আফগানিস্তানে তালেবান গোষ্ঠীর ক্ষমতা গ্রহণের এক বছর পূর্তি হয়েছে। এক বছর আগে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতিতে আফগানিস্তান ছেড়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা। সেই সময়ে ক্ষমতাগ্রহণ করে তালেবান। তখন অনেকেই আশা করেছিলেন, আফগানিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতি হবে। কিন্তু গত এক বছরে ক্ষুধা, দারিদ্র্য, অপুষ্টি ও নারী স্বাধীনতা সংকুচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে দেশটির ভবিষ্যৎ আরও বিপর্যস্ত হয়েছে। 

কট্টরপন্থী তালেবানরা যখন মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশি বাহিনী ও তাদের আফগান মিত্রদের বিরুদ্ধে লড়াই করছিল, তখনকার নিরাপত্তা পরিস্থিতির চেয়ে এখনকার পরিস্থিতি কিছুটা নিরাপদ হলেও দেশটির ওপর অর্থনৈতিক চাপ বেড়েছে। কারণ বিদেশি সরকারগুলো তালেবান সরকারকে এখনো স্বীকৃতি দেয়নি। ফলে দেশটি আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে অনেকটাই বিচ্ছিন্ন হয়ে পেড়েছে। 

যেসব বিদেশি উন্নয়ন সহায়তার ওপর আফগানিস্তান নির্ভরশীল ছিল, সেসব সহায়তা তুলে নেওয়া হয়েছে। কারণ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় মনে করে, তালেবান সরকার নারীদের শিক্ষা ও কর্মের অধিকার হ্রাস করেছে। 

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতির প্রধান জোসেপ বোরেল এক টুইটার পোস্টে বলেছেন, ‘তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার এক বছর পর মানবিক পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে এবং ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন বেড়েছে। বিশেষ করে নারী, মেয়ে ও সংখ্যালঘুদের অধিকার ক্ষুণ্ন হয়েছে সবচেয়ে বেশি। আমি তালেবানর সরকারের প্রতি এসব অগ্রহণযোগ্য সিদ্ধান্ত ও আচরণ পরিবর্তন করার আহ্বান জানাই।’ 

আফগানিস্তানের প্রায় ২৫ লাখ মানুষ এখন দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করছেন। জাতিসংঘ অনুমান করছে, দেশটির অর্থনীতি স্থবির হয়ে পড়ায় ৯ লাখ মানুষ চাকরি হারাতে পারে। 

আফগানিস্তানের জাতিসংঘ মিশন জানিয়েছে, তালেবান ক্ষমতারোহণের পর দেশটিতে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সংকুচিত হয়েছে। সুশীল সমাজের অনেক ব্যক্তি দেশ ছেড়ে গেছেন। ভিন্নমত দমনের অংশ হিসেবে অনেক মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক ও বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করেছে তালেবান সরকার। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    রাশিয়ার সঙ্গে সার্বিয়ার বিশেষ চুক্তিতে পশ্চিমা বিশ্বের উদ্বেগ

    রিজার্ভ থেকে সেনা আহ্বান ভুল ছিল: ক্রেমলিন

    জাপানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের শেষকৃত্য সম্পন্ন

    কংগ্রেস সভাপতির লড়াই থেকে ছিটকে গেলেন অশোক গেহলট

    ফ্লোরিডা উপকূলে ধেয়ে যাচ্ছে শক্তিশালী হারিকেন ইয়ান

    স্নোডেনকে নাগরিকত্ব দিলেন পুতিন

    চোখ ওঠা নিয়ে বিদেশ ভ্রমণ না করার অনুরোধ

    ‘ভার্চুয়াল অ্যাকাউন্ট ফর পেমেন্ট’ সল্যুশন চালু করল স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড

    ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ লাইনে ছিদ্র, অভিযোগের আঙুল রাশিয়ার দিকে

    ইস্টার্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনায় টিএমএসএসের জন্য ১,২২৪ মিলিয়ন টাকা সংগ্রহ

    সাফজয়ী দলকে সংবর্ধনা দিল বাংলাদেশ সেনাবাহিনী 

    বছরের প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় বাংলাদেশের