Alexa
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

হাতিয়ায় জোয়ারের তোড়ে বেড়িবাঁধ ভেঙে নতুন এলাকা প্লাবিত

আপডেট : ১৪ আগস্ট ২০২২, ১৪:৫৫

পূর্ণিমার জোয়ারে বেড়িবাঁধের কয়েকটি অংশ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ছবি: আজকের পত্রিকা মৌসুমি আবহাওয়ার কারণে সৃষ্ট জোয়ারে নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার সোনাদিয়া, তমরদ্দি ও চরকিং ইউনিয়নের বেড়িবাঁধের কয়েকটি অংশ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া বেড়িবাঁধ না থাকায় প্রবল জোয়ারে প্লাবিত হয়েছে চানন্দীর দুটি, নলচিরার একটি ও নিঝুম দ্বীপের সবগুলো ওয়ার্ড। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে ইউনিয়নগুলোর কয়েক হাজার মানুষ।

আজ রোববার সকালের প্লাবিত হয় এলাকাগুলো। এর আগে গতকাল শনিবার প্রচণ্ড বাতাস ও জোয়ারে কারণে সোনাদিয়া ইউনিয়নের মাইচরা, পশ্চিম সোনাদিয়া, তমরদ্দি ইউনিয়নের ক্ষিরোদিয়া, চরইশ্বর ইউনিয়নের তালুকদার গ্রাম ও চরকিং ইউনিয়নের চরবগুলা গ্রামের বেড়িবাঁধের কিছু অংশ ভেঙে গিয়ে পানি ঢুকে যায়। এ ছাড়া চতুর্থ দিনেও জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয় দ্বীপের নলচিরা, ডালচর ও চরগাসিয়ার নিম্নাঞ্চল। আজও ওই সব এলাকার বাসিন্দারা পানিবন্দী হয়ে আছেন। ফলে প্লাবিত এলাকাগুলোর যোগাযোগব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেলসহ ছোটখাটো কয়েকটি যানবাহন চললেও পানিতে ডুবে সেগুলো বিকল হয়ে যাচ্ছে।

পূর্ণিমার জোয়ারে বেড়িবাঁধের কয়েকটি অংশ ভেঙে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ছবি: আজকের পত্রিকা এর আগে গত বুধবার থেকে প্রতিদিন দিনে ও রাতে দুবার করে ওই সব এলাকা জোয়ারে প্লাবিত হচ্ছে। রাতের অন্ধকারে ঘরের মধ্যে পানি ঢুকে যাওয়ায় নির্ঘুম রাত কাটাতেন নিচু এলাকায় বসবাসকারী লোকজন। একবার জোয়ার এলে চার-পাঁচ ঘণ্টা তলিয়ে থাকে। আবার ভাটার সময় নেমে যায়। 

এ বিষয়ে নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. দিনাজ উদ্দিন বলেন, ‘নিঝুম দ্বীপে জোয়ারে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমন ধানের বীজতলা। কিছুদিন আগে লাগানো বীজতলা চার-পাঁচ ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। কোথাও কোথাও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে খেতে থাকা ধানের চারা। নিঝুম দ্বীপে বেড়িবাঁধ না থাকায় অতিরিক্ত জোয়ার হলেই মাঠঘাট ডুবে যায়।’

জোয়ারের পানি ঘরের মধ্যে ঢুকে গেছে। ছবি: আজকের পত্রিকা  হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম হোসেন বলেন, পূর্ণিমার কারণে জোয়ারের পানিতে অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বিশেষ করে নিঝুম দ্বীপ, নলচিরা ইউনিয়নের বেড়িবাঁধের বাইরের এলাকা ও চরাঞ্চল তিন-চার ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে। আমরা সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বের করে তালিকা দেওয়ার জন্য বলেছি। পরে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে কথা বলে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে সহযোগিতা দেওয়া হবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার হাতে বড় ভাই খুন 

    তদন্তে গিয়ে ভাত খাওয়া কর্মকর্তারা ৪ মাসেও প্রতিবেদন দেয়নি

    কক্সবাজারে পৃথক হত্যা মামলায় ৩ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড 

    আয়াত হত্যাকাণ্ড: ‘আবির আমার মেয়েকে অনেক কষ্ট দিয়ে মেরেছে’

    বিএসএফের হাতে নিহত বাবার মুখটাও দেখতে পেল না তাঁর ৪ কন্যা

    কুমিল্লায় ডাকাতিকালে গৃহবধূকে হত্যা, ৬ জনের যাবজ্জীবন

    স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার হাতে বড় ভাই খুন 

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    পোল্যান্ডকে নিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনা

    অর্থায়ন কমায় রোহিঙ্গাদের দক্ষতা উন্নয়নে জোর

    এনডিটিভির মালিকানা চলে গেল আদানির হাতেই

    সম্মেলনের আগেই উৎসবে আ. লীগ নেতা-কর্মীরা

    ফুটবল বিশ্বকাপ

    ফ্রান্সকে হারিয়েও শেষ ষোলোয় যাওয়া হলো না তিউনিসিয়ার