Alexa
রোববার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

পদ্মাসেতু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গ্রেপ্তার যুবক, স্ত্রীর দাবি প্রতিহিংসা 

আপডেট : ১৩ আগস্ট ২০২২, ০৯:০৬

পদ্মাসেতু নিয়ে কটূক্তি পোস্ট দেওয়ায় গ্রেপ্তার তাজুল ইসলাম তপন। ছবি: আজকের পত্রিকা  ফেসবুকে পদ্মাসেতু ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত নোয়াখালীর হাতিয়ায় তাজুল ইসলাম তপনকে প্রতিহিংসার কারণে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তাঁর স্ত্রী। তপনের সঙ্গে তাঁর বড় ভাই বেলাল উদ্দিন কামালের জমি নিয়ে বিরোধ ছিল বলে দাবি করেছেন তপনের স্ত্রী সোনিয়া পিংকি। 

তপনের পরিবারের দাবি জমি নিয়ে বিরোধের জেরে কামালের ছেলে কামরুল হাসানের পরিকল্পনা অনুযায়ী তপনকে লোকজন দিয়ে আটকের পর পুলিশে সোপর্দ করে কামালের ছেলে কামরুল। তপনের স্ত্রী সোনিয়া পিংকি জানান, ঢাকার একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন তপন। গত বুধবার চাকরিতে যোগদানের উদ্দেশ্যে ছুটির শেষ দিন মঙ্গলবার তপনসহ তিনি ঢাকা যাওয়ার জন্য হাতিয়ার তমরদ্দি ঘাটে যান। ঘটে পৌঁছামাত্র কামরুলের লোকজন তাদের আটক করে। তারপর, তপন ফেসবুকে সরকারবিরোধী বিভিন্ন পোস্ট দেয়—এমন তথ্য দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করে তাঁরা। 

সোনিয়া পিংকি আরও বলেন, ‘৬ ভাইয়ের মধ্যে তপন সবার ছোট। তপনের সঙ্গে ৮ শতাংশ জমি নিয়ে তাঁর বড় ভাই বেলাল উদ্দিন কামালের সঙ্গে বিরোধ ছিল। জমিটুকু তপনের হলেও তা নিজেদের বলে দাবি করে আগেও কয়েকবার তপনের সঙ্গে ঝামেলা করে কামালের ছেলে কামরুল হাসান। ওই বিরোধের জেরেই কামরুল পরিকল্পনা করে তপনকে পুলিশে ধরিয়ে দিয়ে পরদিনই ওই জমিতে ধান চাষ করে ফেলেছে।’ ব্যক্তিগত শত্রুতাকে পুঁজি করে তার স্বামী তপনকে ফাঁসানো হয়েছে বলে তিনি তাঁর মুক্তি দাবি করেন। 

হাতিয়া থানা সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক তথ্য পাওয়ায় ফৌজধারী কার্যবিধির ৫৪ ধারায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। 

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন বলেন, ‘স্থানীয় লোকজন তপনকে থানায় সোপর্দ করার পর তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। তাঁর ব্যবহৃত মোবাইলটি পরীক্ষার জন্য ঢাকায় সিআইডির ফরেনসিকে পাঠানো হয়েছে। আটকের পরদিন বুধবার ৫৪ ধারায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে হাতিয়া কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’ 

উল্লেখ্য, এর আগে হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন বলেছিলেন, ‘আটক তপন ঢাকায় একটি ব্যাংকে চাকরি করার সুবাদে ঢাকায় থাকেন। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আগে ও পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পদ্মা সেতু নিয়ে তাঁর ফেসবুকে কটূক্তিমূলক একাধিক পোস্ট করেন। আমরা তাঁর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি জব্দ করার পর অনেকগুলো সরকারবিরোধী পোস্ট পেয়েছি। তাঁর এই পোস্টগুলো হাতিয়ার লোকজনের নজরে আসে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    মরীচিকা পড়া সেতুর কাজ পুনরায় শুরু, অনিয়ম নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ 

    এক জেলা পরিষদেই বিনা ভোটে নির্বাচিত হচ্ছেন চেয়ারম্যানসহ ৭ জন

    যাবজ্জীবনের প্রথম রায় দিলেন বান্দরবান নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব‍্যুনাল

    আশুলিয়া থেকে ঈশ্বরদী গিয়ে ধর্ষণের শিকার ২ তরুণী, গ্রেপ্তার ৪

    বাবুল আক্তারের করা দুটি আবেদনই খারিজ

    মেলান্দহে তথ্য কর্মকর্তা ও তাঁর স্ত্রীকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ 

    হাসপাতালে চিকিৎসকের অপেক্ষায় থেকে শিশু মৃত্যুর অভিযোগ, চিকিৎসকসহ আটক ২ 

    মেয়ের জিম্মায় বাড়ি ফিরলেন রহিমা বেগম

    টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, নেই তাসকিন

    স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওয়ার্ড বয়ের বিরুদ্ধে রোগীকে ধর্ষণের অভিযোগ

    ‘উপাত্ত সুরক্ষা আইন’ ঢেলে সাজানোর দাবি টিআইবির

    মরীচিকা পড়া সেতুর কাজ পুনরায় শুরু, অনিয়ম নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ