Alexa
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

সেকশন

epaper
 

ঢামেকে চলছে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি, শনাক্ত হয়নি কেউ

আপডেট : ১২ আগস্ট ২০২২, ১৯:২০

ফাইল ছবি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের শিক্ষানবিশ (ইন্টার্ন) চিকিৎসককে মারধরের ঘটনায় এখনো কাউকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে এ ঘটনার প্রতিবাদে ঢামেকের ২০০ ইন্টার্ন চিকিৎসক কর্মবিরতি শুরু করেন। দোষীদের বিচারের আওতায় আনা না হলে এ কর্মবিরতি চলমান থাকবে বলেও তাঁরা জানান। 

গত সোমবার ডা. এ কে এম সাজ্জাদ হোসেনকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পরিচয় দিয়ে দলবদ্ধ হয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ছয়-সাত জনের বিরুদ্ধে। গত ৮ আগস্ট রাত ১০টায় মারধরের এ ঘটনায় ৯ আগস্ট রাতে শাহবাগ থানায় অজ্ঞাতনামা ছয়-সাতজনের কথা উল্লেখ করে শাহবাগ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হলেও এখনো কাউকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে যত দিন পর্যন্ত অপরাধীদের শনাক্ত করে বিচারের মুখোমুখি করা না হবে, তত দিন কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে ঢামেকের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদ (ইচিপ)। 

ইচিপ সভাপতি ডা. মো. মহিউদ্দিন জিলানি বলেন, ‘আমাদের কর্মবিরতি চলমান রয়েছে। এখনো কোন ধরনের অগ্রগতি না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছি। আগামীকাল (১৩ আগস্ট) আমরা ঢাকা মেডিকেলের পরিচালক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও প্রক্টর এবং পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করব। তাঁদের সাথে আলোচনা করার পরও যদি দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ না দেখি, তাহলে আমরা আরও কঠোর কর্মসূচির দিকে এগোব।’ 

প্রসঙ্গত, গত সোমবার (৮ আগস্ট) রাতে শহীদ মিনারে বসেছিলেন ডা. সাজ্জাদ। ঢাবির লোগো সংবলিত টিশার্ট পরা ৬-৭ জনের একটি দল তাঁর কাছে এসে আইডি কার্ড দেখতে চান। কিন্তু তিনি আইডি মেডিকেলে রেখে আসার কথা জানান। এরপরই তাঁকে ব্যাপক মারধর শুরু করেন ওই শিক্ষার্থীরা। তাঁর কান ও নাক থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। 

শহীদ মিনার এলাকা পরিদর্শন ও পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ডা. সাজ্জাদকে যেখানে মারধর করা হয়েছে, সেই এলাকায় কোনো ধরনের সিসিটিভি নেই। 

এ বিষয়ে ডা. সাজ্জাদ আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘শহীদ মিনার এলাকায় কারা অপরাধের সাথে জড়িত, তা পুলিশের জানার বাইরে নয়। পুলিশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখলে এত দিনে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ আমরা দেখতে পেতাম।’ 

শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) মো. মাহফুজুল হক ভূঞা আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ওই এলাকাটা সিসিটিভির আওতার বাইরে। তারপরও আশপাশের সিসিটিভি ফুটেজগুলো আমরা দেখেছি। এখনো পর্যন্ত আমরা কাউকে শনাক্ত করতে পারিনি। আমাদের কাজ চলছে। আশা করি দ্রুত অপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পারব।’ 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। আমরা সার্বিক বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনকে সহযোগিতা করব।’ 

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘ঘটনাটি খুবই অনাকাঙ্ক্ষিত। কে বা কারা এই অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত তা খুঁজে দেখার জন্য আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর একই সঙ্গে পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করেছি।’ 

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুত হাওলাদার আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘আমরা বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করেছি। তবে সুনির্দিষ্ট কাউকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। আমাদের তদন্তের কাজ চলছে। দু-এক দিনের মধ্যে আমরা অপরাধীদের শনাক্ত করতে পারব বলে আশা করছি।’ 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    রাজধানীতে বাসা থেকে নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

    শিবালয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশ নিহত

    পরিত্যক্ত সিনেমা হলে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেপ্তার ২ 

    গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইআরডিএফবি’র আত্মপ্রকাশ

    রাজধানীর খিলগাঁওয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে বালতির পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু

    রাজধানীতে বাসা থেকে নারীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

    এই সুন্দর মুখ দেখতে চাই, এমপিকে কটাক্ষ করে ওবায়দুল কাদের

    শিবালয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় গ্রাম পুলিশ নিহত

    আবারও বলছি, খবর আছে: বিএনপিকে কাদের

    কার্যকর গণতন্ত্রের জন্য চাই দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট সংসদ: ড. তোফায়েল

    তোয়াব খানের মৃত্যুতে আইজিপি ও র‍্যাব প্রধানের শোক