Alexa
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

সেকশন

epaper
 

সাক্ষাৎকার

সময়টা অনুধাবন করে সহনশীল হতে হবে

আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০২২, ১৩:২৫

নিয়াজ মোর্শেদ এলিট। ছবি: সংগৃহীত বাংলাদেশের যুবরাজনীতি, বাণিজ্য ও ক্রীড়া সংগঠন এবং উদীয়মান উদ্যোক্তাদের আইডল নিয়াজ মোর্শেদ এলিট। ১৯৮৩ সালের ১৩ অক্টোবর চট্টগ্রামের মিরসরাই থানার মসজিদিয়া গ্রামে তাঁর জন্ম। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যোগ দেন। বর্তমানে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য।

সম্প্রতি জ্বালানি তেল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি সম্পর্কে পরিবহন মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক ও নগদের নির্বাহী পরিচালক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট আজকের পত্রিকার সঙ্গে কথা বলেন।

আজকের পত্রিকা: হঠাৎ করে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণাকে কীভাবে দেখেন?

নিয়াজ: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি তো মোটেও সুখকর নয়। এটা অবশ্যই সব মানুষের ওপর প্রভাব ফেলবে। কিন্তু আমাদের বুঝতে হবে, এ ছাড়া আর কোনো উপায় এই মুহূর্তে ছিল না। আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির দামের সঙ্গে ভারসাম্যপূর্ণ না থাকলে আমরা নানা রকম সমস্যায় পড়ব। ফলে দামটা বাড়াতেই হতো। তবে হ্যাঁ, এটা কয়েক ধাপে বাড়ালে আরেকটু সহনীয় হতো নাগরিকদের জন্য।

আজকের পত্রিকা: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জনজীবনে এর প্রভাব কী হতে পারে?

নিয়াজ: জ্বালানির দাম বাড়া মানে সব পণ্যের দামের ওপর এর প্রভাব পড়বে। কৃষিপণ্য থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনীয় সব পণ্যের দাম বাড়বে। এই সুযোগে কেউ যেন অতিরিক্ত দাম বাড়াতে না পারে, সেটা নিশ্চয়ই সরকার দেখবে। বিশ্বজুড়ে যে কষ্টের সময়টা যাচ্ছে, সেটার সঙ্গে নিজেদের একটু মানিয়ে নিতে হবে।

আজকের পত্রিকা: জ্বালানি তেলের সঙ্গে পরিবহনের সম্পর্ক। পরিবহন সেক্টরে এর প্রভাব কীভাবে সামলানোর কথা ভাবছেন?

নিয়াজ: পরিবহন সেক্টরে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। যদিও তা পরিবহন নেতাদের দাবিমতো হয়নি। তার পরও ভাড়া বেড়েছে। যাত্রীদের কষ্ট হবে, এটা অবশ্যই স্বীকার করতে হবে। একই সঙ্গে মনে রাখতে হবে, পরিবহনমালিকেরাও কিন্তু স্বস্তিতে নেই। পরিবহন ব্যয় অনেক বেড়ে গেছে। সবাইকে আসলে কষ্ট করতে হবে এই সময়টাতে।

আজকের পত্রিকা: পরিবহনের ভাড়া বাড়ানোর সঙ্গে পণ্যের সম্পর্ক। বাজারে এর প্রভাব কীভাবে দেখছেন?

নিয়াজ: অবশ্যই বাজারে এর প্রভাব পড়বে। আমাদের লক্ষ রাখতে হবে, এই প্রভাবের কথা বলে কোনো অসাধু ব্যক্তিরা যেন সুবিধা নিতে না পারে। যতটুকু ব্যয় বেড়েছে, তা তো সমন্বয় করতেই হবে।

আজকের পত্রিকা: আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। এ কথা কতটুকু যৌক্তিক?

নিয়াজ: এ কথাটা যৌক্তিক। শুধু আন্তর্জাতিক বাজারে দর ওঠানামা দেখে এটা বোঝা যাবে না। আমাদের দেশে সরকার অনেক দিন ধরে জ্বালানির মূল্যে ভর্তুকি দিয়ে আসছিল। সেটা চালিয়ে যাওয়া কঠিন। সেই সঙ্গে পাশের দেশগুলোতে জ্বালানির দাম অনেক বেড়ে গেছে। সে ক্ষেত্রে আসলেই পাচারের একটা ভয় থাকে।

আজকের পত্রিকা: আপনাকে আজকের পত্রিকার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ।

নিয়াজ: আপনাকেও ধন্যবাদ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    এখন ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন-আতঙ্ক

    ঘরে বাবার লাশ রেখে পরীক্ষার হলে মাকসুদা

    ভাই হত্যার প্রতিশোধ নিতে আকাশকে খুন

    বিধিনিষেধে ধুঁকছে মোটরসাইকেল শিল্প

    বিচ্ছিন্ন জনপদ রামুক্যাছড়ি পৌঁছায় না সরকারি সুবিধা

    বিসিএসজট কাটাতে কোন পথে পিএসসি

    পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ে রাশিয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি

    সাগর-রুনি হত্যা: তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময় ৯২ বারের মতো পেছাল

    এখন ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন-আতঙ্ক

    ২৫ কিমি সড়কে খানাখন্দ

    ভোটে ‘লড়তে’ হচ্ছে আ.লীগের পিকুলকে

    ভোটে হেরে গিয়ে লেবু চাষ বুলবুলের বাজিমাত