বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১

সেকশন

 

ভিক্ষাবৃত্তি বেছে নেননি আসাদ

আপডেট : ২৩ আগস্ট ২০২১, ১১:৫৩

‘স্যার মাস্ক লাগবে, মাস্ক? মাত্র ৫ টাকায় মাস্ক। প্রতিবন্ধী বলে কোনো বাড়তি টাকা চাই না। একটা মাস্ক নেন স্যার।’ এভাবেই ডেকে ডেকে মাস্ক বিক্রি করছেন প্রতিবন্ধী আসাদুল ইসলাম মোল্লা (৩১)। তিনি উপজেলার যন্ত্রাইল ইউনিয়নের আ. সালাম মোল্লার ছেলে।

শারীরিক অক্ষমতার কারণে আর দশজন মানুষের মতো ঘরে বসে থাকা বা ভিক্ষাবৃত্তিকে বেছে নেননি আসাদ। নবাবগঞ্জ এতিমখানা মাদ্রাসায় কিছুদিন লেখাপড়া করে এখন সেখানে থাকেন আসাদ। থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা থাকলেও নিজের চাহিদা মেটাতে তাঁকে নামতে হয়েছে জীবনযুদ্ধে।

আসাদ বলেন, ‘আমি চাইলেই ভিক্ষা করতে পারতাম। কিন্তু আমি ভিক্ষা করব না। মাস্ক বিক্রি করে নিজের চাহিদা পূরণ করছি।’

প্রতিদিন ভোর ৬টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত হুইলচেয়ারে বসে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে মাস্ক বিক্রি করেন আসাদ।

সেবা নিতে আসা শেখ তন্ময় বলেন, আমাদের উচিত তাঁর থেকে মাস্ক কেনা।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

    কবুতরের সঙ্গে দিন কাটছে ইব্রাহীমের

    সেতু পুনর্নির্মাণের দাবি

    পোকার আক্রমণে বিবর্ণ ধান

    ধনু নদীর রুদ্র রূপ

    শেরপুরে ১৭ জামায়াত নেতা-কর্মী আটক

    ইসলামপুরে টিকা নিতে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত

    উসকানিমূলক ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগে বদরুন্নেসার শিক্ষক রুমা আটক 

    বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

    গোমস্তাপুরে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের হামলায় দুধ বিক্রেতা নিহত

    আশুগঞ্জে সৎ মায়ের বিরুদ্ধে শিশু হত্যার অভিযোগ

    ওবায়দুল কাদের মিথ্যুক: কাদের মির্জা

    আওয়ামী লীগ দেশের প্রভু হয়ে থাকতে চায়: মির্জা ফখরুল