Alexa
মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

প্যানেলভিত্তিক নিয়োগের দাবিতে গণ-অনশনের এক মাস

আপডেট : ০৪ জুলাই ২০২২, ১৬:৪৯

প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন নিয়োগবঞ্চিত বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারীরা। ছবি: আজকের পত্রিকা প্যানেলভিত্তিক নিয়োগসহ তিন দফা দাবিতে টানা ৩০তম দিনের মতো গণ-অনশন কর্মসূচি পালন করছেন নিয়োগবঞ্চিত বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারীরা। গত ৫ জুন সকালে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এই কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর থেকে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা। 

আজ সোমবার অনশন কর্মসূচি পালনকালে প্যানেলপ্রত্যাশী নিবন্ধিত শিক্ষক সংগঠনের সভাপতি আমির হোসেন বলেন, ‘বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) আমাদের যে সনদটা দিয়েছে, এটা কোনো একাডেমিক সনদ নয়। এটা চাকরির সনদ। তাহলে আমরা কেন চাকরি পাব না?’ 

অনশনকারীদের অভিযোগ, এনটিআরসিএ ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয়হীনতা আধুনিক সময়োপযোগী একটি শিক্ষক নিয়োগ পদ্ধতিকে জটিল থেকে জটিলতর করে তুলেছে। একটা অংশ আদালতে গেলে আটকে যাচ্ছে আরেকটা অংশের নিয়োগ। এ জন্য প্যানেলভিত্তিক নিয়োগের বিকল্প নেই বলে জানান তাঁরা। 

বক্তারা বলেন, এনটিআরসিএর দ্বিমুখী নীতির কারণে কেউ ৪০ নম্বর পেয়ে চাকরি করছেন, কেউ ব্লক পোস্ট পেয়ে চাকরিতে যোগদান করছেন, আবার অবৈধ সনদ দিয়েও চাকরি করছেন। অথচ বৈধ সনদধারীরা অযোগ্য হচ্ছেন। নিয়োগ সুপারিশের প্রলোভন দেখিয়ে এনটিআরসিএ হাজার হাজার আবেদনের বিপরীতে নিয়োগপ্রত্যাশীদের সর্বস্বান্ত করে তুলছে। 

প্যানেলপ্রত্যাশী নিবন্ধিত শিক্ষক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জি এম ইয়াছিন বলেন, এনটিআরসিএ ইনডেক্সধারীদের এমপিও হওয়ার পর সনদ রহিতকরণের পরিবর্তে বারবার প্রতিষ্ঠান বদল করার সুযোগ দিচ্ছে। এতে তাদের গণবিজ্ঞপ্তি নামক ব্যবসা দিনকে দিন জমে উঠছে। একদিকে যেমন শিক্ষকের সংকট তৈরি হচ্ছে, অন্যদিকে সদ্য উত্তীর্ণরা চাকরির আশায় গণবিজ্ঞপ্তির জন্য লাফাচ্ছেন। এনটিআরসিএ এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ইনডেক্স ধারীসহ সবাইকে যুদ্ধক্ষেত্রে নামিয়ে দিচ্ছে। ইনডেক্সধারীদের সনদ রহিতকরণে হাইকোর্টের রায় থাকা সত্ত্বেও এনটিআরসিএ দায়িত্ব নিয়ে এদেরই গণবিজ্ঞপ্তির অন্তরালে বদলির সুযোগ করে দিচ্ছে। 

অনশনরত নিবন্ধনধারী শিক্ষকদের তিন দফা দাবি হলো—এনটিআরসিএর নিবন্ধিত সনদধারীদের প্যানেলভিত্তিক নিয়োগ দিতে হবে, বৈধ সনদধারী চাকরিপ্রত্যাশীদের নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত নিবন্ধন পরীক্ষা স্থগিত রাখতে হবে, ইনডেক্সধারীদের প্যানেলে অন্তর্ভুক্ত না করে আলাদা বদলির ব্যবস্থা করতে হবে। 

অনশনকারীরা বলেন, এক মাস রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে তাঁরা অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁদের চাওয়া প্রধানমন্ত্রী এই হাজার হাজার নিয়োগপ্রত্যাশীর আকুতিটা জানুক এবং তাঁদের দাবি পূরণে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে বলে জানান তাঁরা। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    দৌলতদিয়া যৌনপল্লিতে মা ও শিশুদের জন্য ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প

    ১৬ কেজির পদ্মার পাঙাশ, বিক্রি হলো ২১ হাজারে

    পার্বত্য চট্টগ্রামে সামরিক শাসন চলছে: সন্তু লারমা

    অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড হাতিয়ে উপবৃত্তির টাকা হাপিস

    ঢামেক হাসপাতালে অন্তঃসত্ত্বার মৃতদেহ রেখে পালিয়েছে ২ নারী

    সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন র‍্যাব কর্মকর্তার মৃত্যু

    হারের হতাশার মধ্যেই বাংলাদেশকে আইসিসির শাস্তি

    জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি, বাসের বদলে যাত্রীর চাপ বাড়ছে ট্রেনে 

    ধীর লয়ের সেই তর্জনী আর উঠবে না কোনো দিন

    সবুজ আপেল

    হাতিয়ায় বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবি: জীবিত উদ্ধার ৪, নিখোঁজ ১৩ জেলে

    উধুনিয়া বিলে নৌকায় মিনি ক্যাসিনো, আটক ৪