Alexa
শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

ঢাকা

ওভারব্রিজে উঠতে চান না নগরের পথচারীরা

আপডেট : ০১ জুলাই ২০২২, ১১:৩৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের সামনের ফুটওভারব্রিজটি দীর্ঘদিন ধরে অযত্নে পড়ে থাকায় মাদকসেবীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে।  ছবি: ওমর ফারুক কাজের সূত্রে প্রতিদিন পরীবাগের পদচারী সেতু হয়ে রাস্তা পারাপার হতে হয় বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত তুলিকা বসুকে। সকালে সমস্যা না হলেও রাতে এই সেতু পার হতে আতঙ্কে থাকেন তিনি। তুলিকা বলেন, ‘এই রাস্তা এমনিতেই একটু নির্জন। অফিস থেকে ফেরার পথে কিছুটা সময় বাঁচানোর জন্য রাতে এই ওভারব্রিজ ব্যবহার করি। এখানে লাইট নেই, দুই ধারে মানুষ শুয়ে-বসে থাকে। এই ব্যাপারটা আমার কাছে আতঙ্কের।’

রাজধানীর এমন অনেক পদচারী সেতু আছে, যেগুলোতে আলো না থাকায় সন্ধ্যার পরে সেগুলো ব্যবহার করতে চান না পথচারীরা। আবার কিছু পদচারী সেতুর অবস্থা বেহাল হওয়ায় ব্যবহার করতে চান না অনেকেই। বিমানবন্দর সড়কের বিজয় সরণি সিগন্যালের পাশের পদচারী সেতুর অনেক স্থানে জং ধরে ভেঙে গেছে এবং সিঁড়িগুলো পিচ্ছিল হওয়ায় পথচারীরা ওঠেন না বললেই চলে। পথচারী মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, ‘এই পদচারী সেতু ব্যবহার করতে ভয় লাগে অনেক সময়। সিঁড়িগুলো কিছুটা ছোট। কিছু জায়গায় জং ধরে ফুটো হয়ে গেছে। এ জন্য পারতপক্ষে এড়িয়ে চলি।’

ফার্মগেটের মূল পদচারী সেতু ভেঙে ফেলায় তেজগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশের পদচারী সেতুতে চাপ বেড়েছে। আবার অনেককে ভিক্ষাবৃত্তি করতেও দেখা যায়। অনেক সেতুতে বখাটেরাও আড্ডা মারে। এতে অনেকে পদচারী সেতু এড়িয়ে মূল রাস্তার দিয়েই পারাপার হন। আবার কিছু গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নেই কোনো পদচারী সেতু। যার জন্য অহরহ ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

নগর পরিকল্পনাবিদ আদিল মোহাম্মাদ খান বলেন, ‘রাজধানীর পদচারী সেতুর অধিকাংশই সঠিক জায়গায় হয়নি। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে, এমন জায়গায় করা হয়েছে, যেখানে পথচারীরা যেতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না। কেননা ইন্টার সেকশন থেকে ওভারব্রিজগুলো বেশ দূরে। এর পরেও আমরা পথচারীদের নিতে পারতাম, যদি আমাদের ট্রাফিক আইনটা মানানো যায়।’

যেখানে রাস্তা অনেক বড়, জনসমাগম বেশি, সেখানেই পদচারী সেতু বানানো হয় এবং এর তত্ত্বাবধানে দৃষ্টি রাখা হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা বলেন, যখন যেটা প্রয়োজন, সেটা সংস্কার করা হচ্ছে। যেসব পদক্ষেপ নেওয়া দরকার, সিটি করপোরেশন তা নিচ্ছে। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে হকারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাহী পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ পদচারী সেতুগুলো চিহ্নিত করে সেগুলো সংস্কার করা হচ্ছে। নিউমার্কেটের পদচারী সেতুটি সংস্কার করে এস্কেলেটর লাগানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। হকারমুক্ত রাখার জন্য গুলিস্তান ও নিউমার্কেটকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে বলেও জানান ফরিদ আহমেদ।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    পঠিতসর্বশেষ

    এলাকার খবর

     
     

    বস্তাপ্রতি ২৫০ টাকা বাড়ল চালের দাম

    রুট পারমিট ছাড়া চলছে বাস, দুর্ঘটনা বাড়ছে

    আমন চাষের শুরুতেই বাড়তি খরচের বোঝা

    তিন দিনে আ.লীগ নেতার ৩ ঘেরে বিষ দিল দুর্বৃত্তরা

    পাঁচ দিনে চিনির দাম বাড়ল ৭ টাকা

    তরুণের মৃত্যুদণ্ড ও কিছু কথা

    রুট পারমিট ছাড়া চলছে বাস, দুর্ঘটনা বাড়ছে

    বস্তাপ্রতি ২৫০ টাকা বাড়ল চালের দাম

    ধর্ষণের অভিযোগে খুবি শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার

    প্রথম দক্ষিণ এশীয় হিসেবে ‘মিলেনিয়াম লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন স্থপতি মেরিনা

    মাদারগঞ্জে গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা

    আর্জেন্টিনায় উগ্র সমর্থকদের ক্ষোভের আগুনে পুড়ে ছাই ফুটবলারদের গাড়ি