Alexa
রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 

মাছের ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

আপডেট : ২৪ মে ২০২২, ০৯:২০

বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের বৈরাগী সিংগেরকাছ-গোয়াহরি সড়ক বন্যার পানির তোড়ে ভেঙে গেছে। ছবি: আজকের পত্রিকা বন্যার কারণে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ১১টি উপজেলার মৎস্যচাষি ও খামারিদের। চলমান বন্যার পানিতে ভেসে গেছে ২ হাজার ৩০৫.৫৭ টন মাছ। পাশাপাশি জেলার ১১টি উপজেলার ২ হাজার ২৯৬.৭ হেক্টর আয়তনের ১৮ হাজার ৭৪৯টি পুকুর, দিঘি ও খামার প্লাবিত হয়েছে। এর ফলে মৎস্য খামারিদের প্রায় ২২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এদিকে মাছচাষিরা ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সরকারের কাছে প্রণোদনা দাবি করেছেন।

সিলেট জেলা মৎস্য অফিস সূত্র জানা গেছে, এবার বন্যায় মৎস্য খাতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে জৈন্তাপুর, জকিগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, বিশ্বনাথ, গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাট উপজেলায়। প্রায় ৫৩ হাজার পুকুর, খামার, হ্যাচারি ও দিঘিতে মাছ চাষ করা হয়েছিল। তবে বন্যায় জেলার ১১টি উপজেলার ১৮ হাজার ৭৪৯টি পুকুর, খামার ও হ্যাচারি তলিয়ে যায়। এতে ২ কোটি ১৩ লাখ মাছের পোনা এবং ২ হাজার ৩০৫ টন মাছ ভেসে গেছে।

মৎস্য অফিসের তথ্যানুসারে, জৈন্তাপুর উপজেলায় ২ হাজার ১০০টি খামার ভেসে গিয়ে ক্ষতি হয়েছে ৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। জকিগঞ্জ উপজেলায় ৬ হাজার ৩৫০টি খামার প্লাবিত হয়ে ক্ষতির পরিমাণ ৬ কোটি ২২ লাখ টাকা। বিয়ানীবাজারে ১ হাজার ৪০২টি খামার তলিয়ে ২ কোটি ১৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বনাথ উপজেলায় ২ হাজার ১৫০টি খামার বানের জলে ভেসে গিয়ে ১ কোটি ৫৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। গোয়াইনঘাটে ভেসে গেছে ২ হাজার ৫৯২টি খামার, ক্ষতি হয়েছে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা। কানাইঘাটে তলিয়ে যাওয়া খামারের সংখ্যা ২ হাজার ৩৫০টি, ক্ষতির পরিমাণ ৬৪ লাখ টাকা। এর বাইরে গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ৮৪৫টি, সদরে ৫৩৫টি, দক্ষিণ সুরমায় ২১০টি, কোম্পানীগঞ্জে ১৪৫টি ও বালাগঞ্জ উপজেলায় ৭০টি খামার তলিয়ে যায়।

এদিকে ক্ষতিগ্রস্ত মাছচাষিরা বলছেন, বন্যায় তাঁদের যে ক্ষতি হয়েছে তা কাটিয়ে উঠতে সরকারের প্রণোদনা প্রয়োজন। কারণ অনেকে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করেছিলেন। অনেকে নিজের মূলধন ভেঙে মাছ চাষ করেছেন। তাঁদের অবস্থা বেশি খারাপ। ক্ষতিগ্রস্তদের প্রণোদনা দেওয়া না হলে তাঁরা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন না।

সিলেট জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, বন্যায় ১৫ হাজার ১৬৩ জন মাছচাষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে ক্ষতির পরিমাণ অন্তত ২১ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। ক্ষতিগ্রস্তদের বিষয়ে ঊর্ধ্বতন মহলকে জানানো হয়েছে। এখন প্রণোদনা দেওয়া হবে কি না, কর্তৃপক্ষ সেই সিদ্ধান্ত নেবে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ‘ম্যানেজ করে’ মাছ শিকার

    ময়লা-আবর্জনায় বাড়ছে পানিবাহিত রোগ

    গরুর চর্মরোগ, দুশ্চিন্তা খামারির

    রেলক্রসের ওভারপাসে বরাদ্দ বাড়ল ১৫০ কোটি টাকা

    বয়সে ছোট আঁচলের মানবতার দৃষ্টান্ত

    মসলা চাষে ১২০ কোটির প্রকল্প

    ২২ দিনের মধ্যে পরিবারের তিনজনের মৃত্যু

    জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

    আগাম আমন রোপণের ধুম

    গিনেস বুকে নাফিস

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা

    ব্রহ্মপুত্র গিলে খাচ্ছে বসতভিটা