Alexa
রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 

বেড়া দিয়ে স্কুলমাঠ দখল

আপডেট : ২৪ মে ২০২২, ১৬:৫৭

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার শিয়ালকান্দা বহুমুখী আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ের মাঠ বেড়া দিয়ে ঘিরে দখল করা হয়েছে। ছবি: আজকের পত্রিকা দুই পক্ষের বিবাদে বিদ্যালয়ের মাঠের ১৫ শতক জায়গা দখল করার অভিযোগ উঠেছে এক পক্ষের বিরুদ্ধে। সেখানে রোপণ করা হয়েছে গাছের চারা। প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে পাকা দোকানঘর নির্মাণের। এতে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলাসহ বিদ্যালয়ের বিভিন্ন কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে।

মাঠ দখলের ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউনিয়নের শিয়ালকান্দা বহুমুখী আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ের মাঠে।

জানা গেছে, বিদ্যালয়টি ১৯৯৩ সালে ৯৮ শতক জমির ওপর স্থাপিত হয়। স্থাপনকালে প্রতিষ্ঠাতা জমিদাতা ফজলুল হক মেম্বার প্রতিবেশী মীর মতিয়ার রহমান নামে একজনের কাছ থেকে ৩২ শতক জমি রেওয়াজ বদল করে বিদ্যালয়টিতে দেন।

র মধ্যে ১৫ শতক জমি বিদ্যালয়ের নামে লিখে দেওয়া হলেও ১৭ শতক জমি লিখে দেওয়া হয়নি। এই ১৭ শতক জমির বদলি হিসেবে যে জমিটি মতিয়ার রহমান ২৭ বছর ভোগদখল করে আসছিলেন, ওই জমিটি গত বছর দখল করে নেন বিদ্যালয়ের জমিদাতা ফজলুল হকের স্বজনেরা। ফলে রেওয়াজ বদলের ১৭ শতক জমি না পেয়ে স্কুল মাঠে অবস্থিত রেজিস্ট্রি না করে দেওয়া ১৭ শতক জমি দখলে নিয়েছে মতিয়ারের ছেলে মীর শাহ আলম। ফলে বন্ধ হয়ে গেছে স্কুল মাঠে শিশুদের বিনোদন ও খেলাধুলা।

এ বিষয়ে মীর শাহ আলম বলেন, ‘স্কুলের জমিদাতারা আমার বাবার কাছ থেকে জমি নিয়ে বদলি হিসেবে যে জমি দিয়েছেন তা লিখে দেননি। ফলে জমিদাতার মৃত্যুর পর তাঁর স্বজনেরা ওই জমি দখলে নিয়েছেন। এ নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে ধরনা দিয়েও জমি না পেয়ে এই কাজ করতে বাধ্য হয়েছি।’

প্রধান শিক্ষক মুহা. জালাল উদ্দিন সরকার বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা না করেই হঠাৎ করে স্কুল মাঠের ১৫ শতক জমি নেট দিয়ে ঘেরাও করে নিয়েছেন মীর শাহ আলম। সেখানে তাঁরা ৬০টি গাছের চারা রোপণ করেছেন। দোকানঘর করার জন্য ইট ফেলে নির্মাণকাজ শুরু করেছেন। পরে পুলিশ এসে কাজ বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি সমাধানে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।’

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাফিজ আল আসাদ সুমন বলেন, ‘একটি পক্ষ উসকানি দিয়ে এই কাজটি করেছে। আমরা দ্রুত এর সমাধানের চেষ্টা করছি।’

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবক মো. জাহাঙ্গীর ও আব্দুল জব্বার জানান, স্কুল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা ও একগুঁয়েমির কারণে এই অপ্রীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। যাঁরা জমি দখল করে আছেন তাঁরা ১৭ শতক জমি পাবেন। তাঁদের জমি বুঝিয়ে দিলে এই অবস্থার সৃষ্টি হতো না। তাঁরা চান মাঠের পরিবেশ দ্রুত ফিরিয়ে আনা হোক।

শিয়ালকান্দা ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম জানান, স্কুলে গোপনভাবে পরিচালনা কমিটি গঠন ও তিনজনকে নিয়োগ দেওয়াকে কেন্দ্র করে জমিদাতা ও এলাকাবাসীর মধ্যে বিরোধকে কেন্দ্র করে এই পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে। সবাই মিলে বসে এটার সমাধান করা দরকার।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর আহম্মেদ মাছুম বলেন, বিদ্যালয়টির মাঠ দখল করে ঘর নির্মাণের খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে তা বন্ধ করা হয়েছে। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার এত বছর পর মাঠের জমি দাবি করার পেছনের কারণ ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ছাড়া দ্রুত এ সমস্যা সমাধানে উপজেলা চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে নাগেশ্বরী থানার ওসি নবিউল হাসান জানান, জমির দাবিদার মতিউর রহমানের লোকজনকে কাজ বন্ধ রাখার জন্য বলা হয়েছে। বিষয়টি ভূমি কার্যালয়ে জানানো হয়েছে। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ২২ দিনের মধ্যে পরিবারের তিনজনের মৃত্যু

    জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

    আগাম আমন রোপণের ধুম

    গিনেস বুকে নাফিস

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা

    ব্রহ্মপুত্র গিলে খাচ্ছে বসতভিটা

    শিক্ষক হত্যা ও লাঞ্ছনার প্রতিবাদে কোম্পানীগঞ্জে মানববন্ধন

    ২২ দিনের মধ্যে পরিবারের তিনজনের মৃত্যু

    জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

    আগাম আমন রোপণের ধুম

    গিনেস বুকে নাফিস

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা