Alexa
রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 

১০০ মে. টন আম যাবে বিদেশে

আপডেট : ২৪ মে ২০২২, ১৬:৩০

বিদেশে পাঠানোর জন্য গাছে থাকা আমের বাড়তি যত্ন নেওয়া হচ্ছে। ছবি: আজকের পত্রিকা চলতি মৌসুমে নওগাঁ থেকে ১০০ মেট্রিক টন আম বিদেশে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কৃষি বিভাগ। এ জন্য কৃষি বিভাগ মৌসুমের শুরু থেকেই বেশ কিছু বাগান নির্ধারণ করে দিয়েছে। এসব বাগানমালিকদের নিরাপদ আম উৎপাদনের জন্য প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, জেলা থেকে এবার আম্রপালি, বারি ফোর, ব্যানানা ম্যাংগো, গৌড়মতিসহ বিভিন্ন জাতের আম এবার ইংল্যান্ড, জার্মানি, ইতালি, ফ্রান্স ও ডেনমার্কে রপ্তানি করা হবে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে জেলায় ২৯ হাজার ৪৭৫ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের আমের চাষ করা হয়েছে। প্রতি হেক্টর জমিতে আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ৫০ মেট্রিক টন। সে হিসাবে এবার আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৮৪৫ মেট্রিক টন। এর মধ্যে রপ্তানির জন্য আমচাষিদের প্রশিক্ষণ ও নিরাপদ আম প্রস্তুতের জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সেসব বাগান থেকেই আম রপ্তানি করা হবে।

কৃষি বিভাগ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন সাপাহার বরেন্দ্র এগ্রো পার্কের উদ্যোক্তা আমচাষি সোহেল রানা। এ বছর তিনি ৭০ বিঘা জমিতে আমের চাষ করছেন। আম্রপালি, বারি-৪, গৌড়মতি, ব্যানানা ম্যাংগো, কাটিমন, ল্যাংড়া, হিমসাগর, ফজলি, মিয়াজিকিসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জাতের আম রয়েছে তাঁর বাগানে। এ বছর তিনি আম্রপালি, বারি-৪, গৌড়মতি, ব্যানানা ম্যাংগো ও কাটিমন জাতের আম রপ্তানির আশা করছেন।

সোহেল রানা বলেন, গত বছর ৮ মেট্রিক টন আম ইংল্যান্ড ও কাতারে রপ্তানি করেছেন তিনি। ভালো দামও পেয়ে এ বছর জার্মানি, ফিনল্যান্ড, দুবাই, ইংল্যান্ড, কাতার, সুইডেন ও ওমানে আম রপ্তানির চিন্তা করছেন তিনি।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, প্রশাসনের বেঁধে দেওয়া সময় অনুযায়ী আগামী ২৫ মে থেকে গুঁটি জাতের আম পাড়া শুরু হবে। এরপরে গোপালভোগ ৩০ মে ও ক্ষীরশাপাতি বা হিমসাগর ৫ জুন, নাগ ফজলি ৮ জুন, ল্যাংড়া ও হাঁড়িভাঙ্গা ১২ জুন, ফজলি আম ২২ জুন ও আম্রপালি ২৫ জুন থেকে পাড়া হবে। সর্বশেষ ১০ জুলাই থেকে পাড়া যাবে আশ্বিনা, বারী-৪ ও গৌরমতি জাতের আম।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শামসুল ওয়াদুদ বলেন, এবার জেলা থেকে ১০০ মেট্রিক আম বিদেশে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ জন্য তাঁরা শুরু থেকেই কিছু বাগান নির্ধারণ করেন। এসব বাগান মালিকদের ফ্রুট ব্যাগিং, ফেরমেন ট্র্যাপ ও নিরাপদ আম প্রস্তুতের জন্য প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    কামারপাড়ায় বেড়েছে ব্যস্ততা

    ৩০ মণ ওজনের ‘সেকেন্দার’

    চাহিদার চেয়ে পশু বেশি

    অবৈধ যানে বাড়ছে দুর্ঘটনা

    সম্প্রসারণ কাজে ধীরগতি, দুর্ভোগ

    প্রাচীন গ্রাম বটগোহালী

    জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

    আগাম আমন রোপণের ধুম

    গিনেস বুকে নাফিস

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা

    ব্রহ্মপুত্র গিলে খাচ্ছে বসতভিটা

    ফুটবলে চতুর্থ জার্সির উত্থানের নেপথ্যে অ্যাডিডাস