Alexa
রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 

জনশুমারির যত চ্যালেঞ্জ

আপডেট : ২৩ মে ২০২২, ১১:০৩

জনশুমারির যত চ্যালেঞ্জ এক মাসেরও কম সময়ের মধ্যে দেশে শুরু হবে ষষ্ঠ জনশুমারি। এ সময় দেশের প্রকৃত জনসংখ্যার তথ্য ও আর্থ সামাজিক অবস্থান জানতে প্রতিটি খানা থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)। জনশুমারি আগামী ১৫ জুন শুরু হয়ে চলবে ২১ জুন পর্যন্ত। প্রথমবারের মতো ডিজিটাল পদ্ধতিতে হবে এবারের জনশুমারি।

জনশুমারি নিয়ে ইতিমধ্যে প্রচার-প্রচারণা শুরু হয়েছে। পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেওয়ার পাশাপাশি মোবাইল ফোনে মেসেজের মাধ্যমে বার্তা দেওয়া শুরু হয়েছে। জনশুমারি প্রকল্পের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘জনশুমারির খবর সব মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে ব্যাপক প্রচারের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। মোবাইল ফোনে কলার টোন থাকবে। টিভিতে জিঙ্গেল যাবে। ইসলামি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দুই জুমায় মসজিদে মসজিদে বলা হবে। হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে মন্দিরে মন্দিরে প্রচার করা হবে।

এবার একদম নতুন পদ্ধতিতে শুমারি হওয়ার কারণে চ্যালেঞ্জও আছে বলে মানছেন সবাই। খানা জরিপের সময় সঠিক তথ্য সংগ্রহ করতে পারা এবং কত দ্রুত তা প্রকাশ করা সম্ভব হবে, এটা বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ দেশের মানুষ কর্মসূত্রে এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি ছড়িয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম বলেন, ‘বিবিএস এই জনশুমারির জন্য চার বছর আগে তারা একটা মাস্টারপ্ল্যান করেছিল। ওটা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে পারলে এত দেরি হতো না।’ তিনি বলেন, ‘অতীতের অভিজ্ঞতার আলোকে যেন নির্ভুল শুমারি হয়। কারণ এই শুমারির তথ্য দিয়ে দেশের উন্নয়ন পরিকল্পনা করা হয়। তাই তথ্যে ভুল থাকলে পরিকল্পনা বাধাগ্রস্ত হবে।’

প্রচারের বিষয়ে প্রকল্পের কর্মকর্তারা বলছেন, ‘আগে থেকে বেশি প্রচার হলে মানুষ বিরক্ত হয়ে যাবে, আবার বাজেটের বিষয়ও রয়েছে। তবে এটা সত্য, না জানলে সব মানুষকে গণনায় আনা কঠিন হবে। কিন্তু আমাদের প্রত্যাশা হচ্ছে সব মানুষ তথ্য দিয়ে রাষ্ট্রীয় পরিকল্পনায় অংশ নেবে।’

বাংলাদেশে প্রথম আদমশুমারি হয়েছে ১৯৭৪ সালে। পরের বার শুমারি হয় ১৯৮১ সালে। এরপর থেকে দশ বছর পর পর হয়ে আসছে। ১৯৯১ সাল, ২০০১ সাল, ২০১১ সাল এবং সবশেষ ২০২১ সালে হওয়ার কথা থাকলেও হচ্ছে ২০২২ সালে। জানা গেছে, জনশুমারির জন্য এর আগে তিন দফা সময় দিয়েও পরে পিছিয়েছে বিবিএস। এর অন্যতম কারণ ছিল করোনা মহামারি এবং ট্যাব কেনা নিয়ে জটিলতা। তবে এর সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তারা বলছেন, জনশুমারি শেষে তাঁরা ছয় মাসের মধ্যে তথ্য প্রকাশ করার চেষ্টা করবেন।

এবারের জনশুমারিতে কোনো চ্যালেঞ্জ রয়েছে কিনা জানতে চাইলে বিবিএসের মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘এবার দেশে প্রথমবারের মতো ডিজিটাল শুমারি হবে। চ্যালেঞ্জ তো সব সময় থাকবে। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।’ 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    অব্যবস্থাপনায় নষ্ট হচ্ছে হাতিরঝিলের পরিবেশ

    বিপজ্জনক পণ্য পরিবহন করছে না শিপিং এজেন্টরা

    মহাসড়কে মোটরসাইকেল বন্ধের সিদ্ধান্ত আসছে

    দক্ষিণের বাসভাড়া বাড়ল এক্সপ্রেসওয়ের টোলে

    অজ্ঞান পার্টি ও ছিনতাই চক্রের ২৬ সদস্য গ্রেপ্তার

    ‘পাঠকসমাজে স্থান করে নিয়েছে আজকের পত্রিকা’

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা

    ব্রহ্মপুত্র গিলে খাচ্ছে বসতভিটা

    ফুটবলে চতুর্থ জার্সির উত্থানের নেপথ্যে অ্যাডিডাস

    বাবা-মায়ের ওপর অভিমানে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

    ইস্টার্ন ব্যাংকের এএমডি হলেন আহমেদ শাহীন

    মাজারের পুকুর থেকে দেহবিহীন মাথা উদ্ধার