Alexa
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

সেকশন

epaper
 

অভয়নগরে রকিবুল হত্যার গুলি উদ্ধার, ২ ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৬

আপডেট : ২২ মে ২০২২, ১৮:২৯

রকিবুল হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আসামি মেহেদী হাসান ও উদ্ধার করা তাজা গুলি ও পিস্তলের খালি ম্যাগাজিন। ছবি: আজকের পত্রিকা যশোরের অভয়নগরে ফুলতলা বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার রকিবুল ইসলাম খুনের ঘটনায় পাঁচ রাউন্ড তাজা গুলি ও পিস্তলের খালি ম্যাগাজিন উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রোববার সকালে উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের দত্তগাতী গ্রামের একটি বাগান এসব উদ্ধার করা হয়। হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে দুই ইউপি সদস্যসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

উদ্ধারকৃত গুলির মধ্যে তিন রাউন্ড ১২ বোর তাজা কার্তুজ (শটগানের গুলি), দুই রাউন্ড পিস্তলের তাজা গুলি ও পিস্তলের একটি খালি ম্যাগাজিন রয়েছে। 

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন, উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের দত্তগাতী গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য সাইফুল আলম, একই ইউনিয়নের দামুখালী গ্রামের বর্তমান ইউপি সদস্য মিলন হাওলাদার, একই গ্রামের সুব্রত মন্ডল, তুহিন হাওলাদার, পিয়ুজ মন্ডল ও খুলনার ফুলতলা উপজেলার জামিরা গ্রামের মেহেদী হাসান সবুজ। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা অভয়নগর থানার ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল জানান, গ্রেপ্তারকৃত সাবেক ইউপি সদস্য সাইফুল আলম ওরফে আলম মেম্বারের স্বীকারোক্তি নেওয়া হয়। সে অনুযায়ী যশোর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতায় মেহেদী হাসান সবুজ নামে এক যুবককে রোববার ভোরে ফুলতলার জামিরা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। মেহেদী হাসান সবুজ জামিরা গ্রামের মৃত শফিকুল ইসলামের ছেলে। তাঁর স্বীকারোক্তি ও দেখানো স্থান উপজেলার দত্তগাতী গ্রামের আজিজ মোল্যার বাগানের ঝোপঝাড়ের মধ্য থেকে তিন রাউন্ড ১২ বোর কার্তুজ (শটগানের গুলি), দুই রাউন্ড পিস্তলের গুলি ও পিস্তলের একটি খালি ম্যাগাজিন উদ্ধার করা হয়। মামলার তদন্তের স্বার্থে এর বেশি কিছু না জানিয়ে তিনি হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি। 

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ১২ মে (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় খন্দকার রকিবুল ইসলাম ও তাঁর স্ত্রী বর্ষা বেগম ফুলতলা থেকে মোটরসাইকেলে করে অভয়নগরের দত্তগাতী গ্রামে সাবেক মেম্বার সাইফুল আলম ওরফে আলম মেম্বারের বাড়িতে দাওয়াত খেতে যান। দাওয়াত খাওয়া শেষে রাতে ফুলতলায় ফেরার পথে দত্তগাতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কে পৌঁছালে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন খন্দকার রকিবুল ইসলাম। এ সময় রকিবুলের স্ত্রীও আহত হন। হত্যাকাণ্ডের পরদিন শুক্রবার নিহত রকিবুলের মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি দেখিয়ে অভয়নগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরদিন শনিবার অভয়নগর থানা-পুলিশ উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের দত্তগাতী গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য সাইফুল আলম ওরফে আলম মেম্বার ও একই ইউনিয়নের দামুখালী গ্রামের বর্তমান ইউপি সদস্য মিলন হাওলাদারকে গ্রেপ্তার করেন। এরপর দামুখালী গ্রামের সুব্রত মন্ডল, তুহিন হাওলাদার ও পিয়ুজ মন্ডলকে খুলনা পিটিআই মোড় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    নির্বাচনে দায়িত্ব পেতে টাকা দিতে হয়েছে ভিডিপি সদস্যদের

    প্রধান শিক্ষকের কক্ষে পেটে ছুরি ঢুকিয়ে যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা

    মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবাকে কুপিয়ে হত্যা, বাবা-ছেলের ফাঁসি

    ঝিকরগাছায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় কিশোর নিহত

    খুলনায় শিক্ষক মুনজীরকে হত্যার দায়ে দুজনের যাবজ্জীবন

    ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যায় জড়িতদের ফাঁসির দাবি 

    বন্যাকবলিত এলাকায় আলোক হেলথ কেয়ারের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প

    ব্যাংক এশিয়ার ৫৮তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠান

    খেলা শেষে নদীতে গোসলে নেমে ২ কিশোরের মৃত্যু

    সরকারি খাতে ঋণ বাড়িয়ে বেসরকারিতে কমাল বাংলাদেশ ব্যাংক

    সাংবাদিকের প্রেমে পড়ে স্ত্রীকে ছেড়েছেন বায়ার্ন কোচ

    কলম্বো বন্দরের সরকারি টার্মিনালে অগ্রাধিকার পাবে বাংলাদেশি জাহাজ