Alexa
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 

অস্বাভাবিক জোয়ারে ৫০ গ্রাম প্লাবিত বরগুনায়

আপডেট : ১৬ মে ২০২২, ১৩:২৪

 অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে সমুদ্র উপকূলীয় বরগুনা জেলার প্রায় অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পাউবো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জেলার বিষখালী নদীর পানি বিপৎসীমার ৩১ সেন্টিমিটারের ওপর দিয়ে বইছে। এ ছাড়া বুড়িশ্বর ও বলেশ্বরেও জোয়ারের পানি বেড়েছে।

গতকাল রোববার বরগুনার পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, জেলায় বেলা ১টা পর্যন্ত জোয়ারের মোট উচ্চতা ছিল ৩ দশমিক ১৬ মিটার, যা বিপৎসীমার ৩১ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। এতে বরইতলা-বাইনচটকী ও পুরাকাটা-আমতলী দুটি ঘাটে ফেরি ও খেয়া চলাচল তিন ঘণ্টা বন্ধ ছিল।

বাইনচটকী ফেরিঘাট এলাকার বাসিন্দা আবদুল হক বলেন, ‘ফেরিতে ওঠার সংযোগ সড়ক পানিতে তলিয়ে থাকায় উভয় পাড়ে শতাধিক যানবাহন ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করেছে। বেলা ১টার দিকে ভাটিতে পানি নামার পর সেসব যানবাহন পারাপার হয়েছে।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পানির অস্বাভাবিক চাপে বরগুনা সদর উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের ডেমা গুলিশাখালী, মাঝেরচর, পাতাকাটা, এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের, ছোট বালিয়াতলী, পালের বালিয়াতলী, নলটোনা ইউনিয়নের পদ্মা, সোনাতলা, আমতলা ও নিশানবাড়িয়া, ঢলুয়া ইউনিয়নের ডালভাঙা, লতাবাড়িয়া, গোলবুনিয়া, মাঝখালী, উত্তর ডালভাঙা, দক্ষিণ ডালভাঙা গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

পাথরঘাটায় ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে বলেশ্বর নদের পানি ঢুকে তলিয়ে গেছে চরদোয়ানি, কাঁঠালতলী, জ্ঞানপাড়া, পদ্মা, রুহিতা, জিনতলা, বাদুরতলা, কোরালিয়া, নিজ লাঠিমারা, ছোট টেংরা, গাববাড়িয়া এলাকা।

বেতাগী উপজেলার বিষখালী নদীসংলগ্ন উত্তর বেতাগী, ঝিলবুনিয়া, ছোপখালী, ঝোপখালী, ভোলানাথপুর, জগাইখালী, কালিকাবাড়ি, গাবতলী, আলিয়াবাদ, জোয়ার করুনা, গ্রোমর্দন ভাসছে জোয়ারের পানিতে। এ ছাড়া ঝুঁকিতে রয়েছে বেতাগী শহর রক্ষা বাঁধ।

বুড়িশ্বর নদের জোয়ারের পানিতে আমতলী উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকে তলিয়ে গেছে বৈঠাকাটা, ঘটখালী, বেতমোর, চন্দ্রা, উত্তর কান্দা ও বালিয়াতলী। সেই সঙ্গে পৌরসভার আমুয়ার চরসহ ঝুঁকিতে রয়েছে আমতলী শহর রক্ষা বাঁধ।

এ ছাড়া বেড়িবাঁধের বাইরে পায়রা নদীসংলগ্ন তালতলী উপজেলার নিম্নাঞ্চলের খোট্টার চর, নলবুনিয়ার চর, আশার চর ও তেঁতুলবাড়িয়ার চর জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে। এসব এলাকায় বেড়িবাঁধ না থাকায় জোয়ারের পানিতে দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নুরুল ইসলাম বলেন, মূলত স্বাভাবিক জোয়ারে বরগুনার বিভিন্ন নদ-নদীতে ২ দশমিক ৮৫ মিটারের নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। কিন্তু গতকাল রোববার জোয়ারের পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এটা মূলত পূর্ণিমার জোয়ারের প্রভাব বলে তিনি জানান। আরও দু-এক দিন এভাবে পানি বাড়তে পারে বলেও তিনি জানান।

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    ৮-১০ ঘণ্টাই থাকে না বিদ্যুৎ

    পিয়ন ছাড়া কেউ নেই অপেক্ষায় সেবাপ্রার্থী

    এখন ব্যস্ততা কামারদের

    সড়কের বুকে ভয়ংকর ক্ষত

    ঘন ঘন লোডশেডিং অতিষ্ঠ জনজীবন

    ‘নতুন কাপড় তো দূরের কথা, পুরান সবই গেছে নষ্ট অইয়া’

    বিএম ডিপো থেকে পণ্যভর্তি অক্ষত কনটেইনার সরানো শুরু

    পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনাল চালু হচ্ছে এ মাসেই

    কিশোরী নেতৃত্ব এবং কর্মশালাবিষয়ক সেমিনার

    পুলিশের গুলিতে নিহত জেল্যান্ড ওয়াকারের মরদেহে পরানো হয়েছিল হাতকড়া

    পাবনায় স্বামীর বিরুদ্ধে ছুরিকাঘাতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

    সিলেটে ব্লগার অনন্ত হত্যা: বেঙ্গালুরুতে গ্রেপ্তার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ফয়সাল