Alexa
শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

জন্মনিবন্ধনে গাছ উপহার

প্রচারের অভাবে গতি নেই

আপডেট : ০৭ মে ২০২২, ১২:৩২

প্রচারের অভাবে গতি নেই বড় মেয়ে উম্মে সারাকে স্কুলে ভর্তি করার সময় জন্মনিবন্ধনের প্রয়োজন হয়েছিল। তাই উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মহাখালী আঞ্চলিক কার্যালয়ে গিয়েছিলেন বাবা মাহবুব হাসান জয়। বড় মেয়ের সঙ্গে তার দেড় বছর বয়সী ছেলে হুজাইফা বিন মাহবুবেরও জন্মনিবন্ধন করিয়ে নেন। ছোট ছেলের জন্মনিবন্ধন করানোয় তাকে একটি গাছের চারা উপহার দেওয়া হয়।

মহাখালী এলাকার ভাড়াটে মাহবুব হাসান বলেন, ‘নবজাতকে গাছ উপহার দেওয়া হয়, এটা আগে জানতেন না। জন্মনিবন্ধন করাতে গিয়ে শুনেছি।’

শুধু হুজাইফা নয়। ডিএনসিসিতে ছয় বছর কিংবা তার কম বয়সী শিশুর জন্মনিবন্ধন করালে উপহার দেওয়া হচ্ছে ফলদ ও ঔষধি গাছের চারা। গত বছরের ৬ অক্টোবর ‘জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবসে’ ডিএনসিসির মেয়র আতিকুল ইসলাম ঘোষণা দিয়েছিলেন, দুই বছর পর্যন্ত বয়সের শিশুদের জন্মনিবন্ধন সনদের সঙ্গে একটি করে গাছের চারা উপহার দেওয়া হবে। ওই বছর নভেম্বর থেকে ডিএনসিসির পাঁচটি আঞ্চলিক কার্যালয়ে এই কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু প্রচার না থাকায় এ কার্যক্রম তেমন গতি পায়নি।

লংকাবাংলা ফিন্যান্সের অর্থায়নে ডিএনসিসি পাঁচ বছর মেয়াদি এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে। প্রথম দিকে জন্মের দুই বছরের মধ্যে জন্মনিবন্ধন করালে গাছের চারা উপহার দেওয়া হতো। কম বয়সী শিশুদের জন্মনিবন্ধনের হার অনেক কম হওয়ায়, এখন ছয় বছর বয়সের মধ্যে জন্মনিবন্ধন করালে গাছের চারা উপহার দেওয়া হচ্ছে। লংকাবাংলা থেকে ডিএনসিসি গত পাঁচ মাসে ১ হাজার ৫৭০টি চারা পেয়েছে, তার মধ্যে এ পর্যন্ত ১ হাজার ২০৭টি চারা উপহার হিসেবে দেওয়া হয়েছে।

লংকাবাংলা ফিন্যান্সের সিএসআর সমন্বয়কারী আল ফাহাদ বলেন, ‘প্রকল্প শুরুর প্রথম দুই মাসে ফিডব্যাক বেশি পেয়েছি। তবে কার্যক্রম নিয়ে খুব একটা প্রচার নেই। এ কারণে মানুষজন ততটা জানে না।’

গত বৃহস্পতিবার ডিএনসিসির আঞ্চলিক কার্যালয় (কারওয়ান বাজার)-৫ ও আঞ্চলিক কার্যালয় (মহাখালী)-৩ ঘুরে কথা হয়েছে জন্মনিবন্ধন-সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে। ডিএনসিসির মহাখালী কার্যালয়ে গাছের চারা বিতরণের কার্যক্রম দৃশ্যমান থাকলেও, কারওয়ান বাজার কার্যালয়ে তা নেই। কারওয়ান বাজার কার্যালয়ের নিবন্ধন সহকারী আব্দুল মান্নান জানান, প্রথম দিকে কিছু চারা বিতরণ করা হয়েছে। জায়গার সংকটে অনেক গাছ মারা গেছে। তাই এখন চারা বিতরণ বন্ধ রয়েছে।

ডিএনসিসি মহাখালী কার্যালয়ের সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আজিজুন নেছা বলেন, ‘শহরে জায়গার অভাবে অনেকে গাছ নিতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। আবার কেউ কেউ চেয়ে নিচ্ছেন।’ এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান, তাঁর কার্যালয় ১৩০টি চারা পেয়েছে, তার মধ্যে ১০৮টি উপহার হিসেবে বিতরণ করেছেন।

ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সেলিম রেজা বলেন, ‘হাজার হাজার মানুষ নার্সারি থেকে গাছ কিনছেন, আর আমরা ফ্রি দিচ্ছি। তারপরও গাছ নেওয়ার বিষয়ে অনেকে উৎসাহ দেখান না। আমরা প্রকল্পটি পর্যবেক্ষণ করব, এই কার্যক্রমকে আরও জনপ্রিয় করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    জগদ্ধাত্রী একাই এক শ

    বোনদের নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা অক্ষয়ের

    তারেক মাসুদ ছিলেন স্বপ্নের নায়ক

    নতুন পরিচয়ে সোহানা সাবা

    বস্তাপ্রতি ২৫০ টাকা বাড়ল চালের দাম

    ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে রুট পারমিট ছাড়া চলছে বাস, বাড়ছে দুর্ঘটনা

    আষাঢ়ে নয়

    তুইও মরবি, আমাদেরও মারবি

    নতুন পরিচয়ে সোহানা সাবা

    তারেক মাসুদ ছিলেন স্বপ্নের নায়ক

    বোনদের নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা অক্ষয়ের

    জগদ্ধাত্রী একাই এক শ