Alexa
শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

সেকশন

epaper
 

ড্রেন নির্মাণের কাজ শেষের আগেই চূড়ান্ত বিল প্রদান!

আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০২২, ২১:৫৭

চরখালী-তুষখালী-মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটা সড়কের পিরোজপুর অংশে ড্রেনের নির্মাণকাজ (মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারকে চূড়ান্ত বিল দেওয়া হয়েছে। সড়ক বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী আলী আকবর, উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মো. অহিদুজ্জামান ও নির্বাহী প্রকৌশলী (বর্তমানে বরিশাল সড়ক বিভাগে আছেন) মাসুদ মাহমুদ সুমন এ বিল দিয়েছেন। ফলে এখন আরসিসি ড্রেন নির্মাণের কাজ যেনতেনভাবে করা হচ্ছে। এতে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 

জানা গেছে, পিরোজপুরের চরখালী-তুষখালী-মঠবাড়িয়া-পাথরঘাটা সড়কের মঠবাড়িয়া অংশে ১ দশমিক ৬৬ কিলোমিটার রিজিড (রাস্তা ঢালাইকরণ) পেভমেন্ট, ২ দশমিক ৪০ কিলোমিটার আরসিসি ড্রেন নির্মাণকাজ (মঠবাড়িয়া বাজার অংশ) ও বরগুনা অংশে ০ দশমিক ৬২৫ কিলোমিটার রিজিড পেভমেন্ট এবং ২০ দশমিক ৩৭ কিলোমিটার বর্ধিত ও মজবুত করণসহ কার্পেটিং কাজের (ডিবিএস বেস কোর্স কাজ) ৩৬ কোটি ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যয় ধরে দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্রে অংশ নিয়ে হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড-ওয়েষ্টার কন্সট্রাকশন অ্যান্ড শিপিং কোম্পানি লিমিটেড জেভি (জয়েন্ট ভেঞ্চার) ৩০ কোটি ৮৭ লাখ টাকায় কাজটি পায়। এ কাজের মধ্যে ১০ কোটি ৮১ লাখ টাকার ড্রেন নির্মাণকাজ রয়েছে। কিন্তু এ কাজ শেষ করার আগেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে গত বছরের ২৯ জুন চূড়ান্ত বিল দেওয়া হয়েছে। 

বর্তমানে যেনতেনভাবে করা হচ্ছে কাজ। কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মাটি মিশ্রিত পাথর। এরই মধ্যে যার ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। আলী রেজা রঞ্জু নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি তার ফেসবুক আইডিতে কাজে মাটি মিশ্রিত পাথর ব্যবহারের ছবি ভাইরাল করেছেন। 

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আরিফ উল হক বলেন, বর্ষার দিনে বাজার অংশে থাকা সড়কে পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হতো। লোকজনের চলাচলে দুর্ভোগের সৃষ্টি হতো। আমরা জলাবদ্ধতা দূরীকরণের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। সরকার এ সড়ক সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণের অর্থ বরাদ্দ দিল। কিন্তু কাজ শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে চূড়ান্ত বিল দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ড্রেন নির্মাণকাজ চলছে পিঁপড়ার গতিতে। মানও খারাপ হচ্ছে। 

সহসভাপতি দাবি করে বলেন, অনৈতিক সুবিধা ছাড়া প্রকৌশলীরা এ বিল দেননি। 

ড্রেনের নির্মাণের কাজ শেষ হওয়ার আগেই ঠিকাদারকে দেওয়া হয়েছে চূড়ান্ত বিল। ছবি: আজকের পত্রিকা মঠবাড়িয়ার সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর জনসংযোগ কর্মকর্তা আলী রেজা রঞ্জু বলেন, ড্রেন নির্মাণে কাদামাটি মিশ্রিত পাথর ব্যবহার করার সময়ের ছবি আমি ফেসবুকে ভাইরাল করেছি। মঠবাড়িয়া বাজার অংশে ড্রেন না থাকার কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে মানুষের ভোগান্তি হতো। এ জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য অনেক কষ্ট করে এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ আনেন। সেখানে যদি এই অবস্থা হয় তাহলে এটি খুবই দুঃখজনক। 

কাজ শেষের আগেই বিল দেওয়ার বিষয়ে প্রকৌশলী আলী আকবরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিল দেওয়া হয়নি। পরে ২০২১ সালের ২৯ জুন চূড়ান্ত বিল দিয়েছেন বলে প্রমাণ আছে জানালে তিনি আর কোনো কথা বলেননি। 

এ বিষয়ে জানতে পিরোজপুর সড়ক বিভাগের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী (বর্তমানে বরিশাল সড়ক বিভাগে আছেন) মাসুদ মাহমুদ সুমনের মোবাইলে কল করা হলেও তিনি ধরেননি। 

সড়ক বিভাগের বরিশাল জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম আজাদুর রহমান জানান, অল্প কয়েক দিন হল বরিশালে যোগদান করেছেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে পিরোজপুর জেলা অফিসে যোগাযোগ করার কথা বলে কৌশলে এড়িয়ে যান প্রকৌশলী। 

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     
    সুখবর

    স্বাস্থ্য সেবায় দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে দেবীপুর কমিউনিটি ক্লিনিক

    লক্ষ্মীপুরে বিএনপির সমাবেশ ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ

    বাড়ির চারদিকে দেয়াল তুলে ৩ পরিবারের যাতায়াত বন্ধের অভিযোগ

    পিরোজপুরে বিএনপির সমাবেশে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ 

    ছেলের জন্য ওষুধ কিনতে বের হয়ে ৩ দিনেও ফেরেননি ব্যবসায়ী

    ১২ লাখ টাকা নিয়েও চাকরি দেননি, ভুক্তভোগীর লাশ নিয়ে অভিযুক্তের বাড়িতে স্বজনদের অবস্থান

    আষাঢ়ে নয়

    তুইও মরবি, আমাদেরও মারবি

    নতুন পরিচয়ে সোহানা সাবা

    তারেক মাসুদ ছিলেন স্বপ্নের নায়ক

    ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে রুট পারমিট ছাড়া চলছে বাস, বাড়ছে দুর্ঘটনা

    বস্তাপ্রতি ২৫০ টাকা বাড়ল চালের দাম

    ধর্ষণের অভিযোগে খুবি শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার