Alexa
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২

সেকশন

epaper
 

নতুন করে স্পিন-শিক্ষা

আপডেট : ১২ এপ্রিল ২০২২, ১২:২১

ম্যাচের পরিস্থিতি না বুঝেই বাউন্ডারি মারতে চেয়েছিলেন লিটন দাস। কিন্তু বলে ব্যাটই ছোঁয়াতে পারেননি, বরং স্টাম্পিংয়ের হাত থেকে বাঁচতে ঝাঁপ দিলেন, তাতেও হয়নি শেষ রক্ষা। লিটনের এই অসহায়ত্বই দ্বিতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের বিপর্যস্ত ব্যাটিংয়ের প্রতীকী ছবি হয়ে থাকল। গতকাল পোর্ট এলিজাবেথে। ছবি: টুইটার বাংলাদেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে আলোচিত কোচদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় সবার ওপরে থাকবে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের নাম। মুমিনুল হক অফ স্পিন খেলতে পারেন না, এই যুক্তিতে ২০১৭ সালে হাথুরু মুমিনুলকে টেস্ট থেকে বাদ দিয়েছিলেন। ব্যাপারটা নিয়ে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছিলেন হাথুরুসিংহে।

হঠাৎ হাথুরুসিংহকে মনে করার কারণ আছে। টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে বিপর্যস্ত হওয়ার পর দলের প্রতিনিধি হয়ে স্বাভাবিকভাবেই গতকাল দলের অধিনায়ক হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে এসেছেন মুমিনুল। সিরিজজুড়ে স্পিনের বিপক্ষে ভুগেছেন বাংলাদেশ ব্যাটাররা। ব্যর্থতার মিছিলে সামনের সারিতে থাকবেন মুমিনুল। চার ইনিংসের তিনটিতেই স্পিনের বিপক্ষে পরাস্ত বাংলাদেশ অধিনায়ক।

ডারবান আর পোর্ট এলিজাবেথ, দুই টেস্টের চতুর্থ ইনিংসে বাংলাদেশের ২০ উইকেটের সব কটিই নিয়েছেন দুই প্রোটিয়া স্পিনার সাইমন হারমার আর কেশব মহারাজ। দুই টেস্টের সিরিজে ১৬ উইকেট নিয়ে সিরিজ-সেরা হয়েছেন মহারাজ। মূলত এ বাঁহাতি স্পিনারই দুই টেস্টে বাংলাদেশকে ধসিয়ে দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে নতুন করে স্পিন শিক্ষার কথা যেন শোনা গেল মুমিনুলের কণ্ঠে। তাঁর সরল স্বীকারোক্তি, ‘আমরা স্পিনে খুব বেশি ভালো না। দু-একজন ছাড়া কেউ-ই স্পিনে ভালো নয়। স্কয়ার অব দ্য উইকেটে উন্নতি করতে হবে।’

নতুন করে স্পিন-শিক্ষা উপমহাদেশের একটি দলের অধিনায়কের এই ব্যাখ্যা শুনে অবাক না হয়ে উপায় নেই! মোহাম্মদ রফিক, এনামুল হক মনি, এনামুল হক জুনিয়রদের পথ ধরে পরে সাকিব আল হাসান, তাইজুল ইসলাম—বাঁহাতি স্পিনারের ‘আঁতুড়ঘর’ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া বাংলাদেশ দলের ব্যাটাররা এশিয়ার বাইরে স্পিন বিশেষ করে বাঁহাতি স্পিন খেলতে পারছেন না। দেশের স্বনামধন্য স্পিন বোলিং কোচ ওয়াহিদুল গনি বিষয়টি বিশ্লেষণ করলেন এভাবে, ‘আমাদের ব্যাটারদের এখানে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার ছিল। তারা সেটা পারেনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে উইকেটে পেস কিংবা স্পিন, যেটারই সহায়তা থাকুক, খুব একটা ভালো খেলি না। আমরা নিজেদের স্বাচ্ছন্দ্যের জায়গায় ভালো খেলতে পারি, যেখানে বোলারদের জন্য তুলনামূলক কম সহায়তা থাকে।’

সংবাদ সম্মেলনে স্পিনারদের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণে ব্যাখ্যায় মুমিনুল সামনে এনেছেন সাইড আর ওভার স্পিন-প্রসঙ্গ। সাবেক বাঁহাতি স্পিনার এনামুল হক মনি বিষয়টি দেখছেন এভাবে, ‘দেশের মাঠে তারা বেশির ভাগ সময় খেলে মন্থর আর নিচু উইকেটে। আমাদের ব্যাটাররা পেছনের পায়ে খেলতেও দক্ষ নয়। ওখানে এ ধরনের বল পেছনের পায়েই বেশি খেলতে হয়। আমাদের ব্যাটাররা সামনের পায়ে খেলেই বেশি উইকেট দিয়েছে। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটাররা দুই পায়ে খেলতেই দক্ষ।’

এই ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠতে আরেক বাঁহাতি স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বেশি খেলার ওপর জোর দিচ্ছেন, ‘আমাদের স্পিন খেলার অভ্যস্ততা ধীরে ধীরে কমে গেছে। খেলোয়াড়েরা এখন এত ব্যস্ত থাকে আন্তর্জাতিক সিরিজ নিয়ে, ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির লিগে খেলা বাড়াতে হবে, উইকেটগুলো পেসের পাশাপাশি স্পিন সহায়কও করতে হবে।’

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     

    চোটাঘাতে শীর্ষে প্রিমিয়ার লিগ

    র‍্যাঙ্কিংয়ে উন্নতিই মূল লক্ষ্য সালমা-জাহানারাদের

    সাহিত্যবিশারদের বাড়িতে

    নেত্রীদের যত মধু ৯০ কক্ষের অন্দরে

    বুড়িমারীতে ৯ দিন বন্ধ থাকবে আমদানি-রপ্তানি

    বিদ্যালয়ে নলকূপের পানি পানে অসুস্থ ৪০ শিক্ষার্থী

    রাশিয়ার পকেটে ইউক্রেনের ১৫ শতাংশ, কোন দিকে যাচ্ছে যুদ্ধ

    চাকরিজীবী ছাত্রলীগ নেতা হলে থাকেন এসি লাগিয়ে

    পুতিনের সমালোচনায় বিদ্ধ পশ্চিমা মূল্যবোধ

    দলের লাগাম থাকছে গান্ধী পরিবারের হাতেই 

    রাশিয়ার কাছে ৪ অঞ্চল হারানোর দিনে ন্যাটোর সদস্য হতে ইউক্রেনের আবেদন 

    ৯ মাস ধরে নিখোঁজ ছায়েদ