Alexa
রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২

সেকশন

epaper
 
ফ্যাক্টচেক

মৃতদেহ পানিতে পড়ে যাওয়ার ভিডিওটি টিভি নাটকের দৃশ্য

আপডেট : ১১ জুন ২০২২, ১০:০০

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে একটি মৃতদেহ পানিতে পড়ে যাওয়ার ভিডিও। ছবি: ফেসবুক থেকে স্ক্রিনশট সম্প্রতি ফেসবুকে অনেকেই একটি ভিডিও পোস্ট করছেন, যেখানে দেখা যাচ্ছে, কিছু মানুষ একটি খাটিয়ায় মৃতদেহ নিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন। অকস্মাৎ বাতাসের ধাক্কায় ওই মৃতদেহ একটি পুকুরে পড়ে যায়।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, এ সময় অতি সূক্ষ্ম অদৃশ্য কোনো কিছু খাটিয়ার সঙ্গে থাকা মানুষদের বাধা দিয়ে ঠেলে পেছনে সরিয়ে দেয় এবং এ কারণেই ওই মৃতদেহ পানিতে পড়ে যায় বলে দাবি করা হচ্ছে ফেসবুক পোস্টগুলোতে। মৃতদেহকে পুকুরে পড়ে যেতে দেখে আশপাশের সবাই আহাজারি করতে থাকেন।

ফেসবুকে এ-সংক্রান্ত কয়েক হাজার পোস্ট দেখা গেছে। ফেসবুকের পোস্ট ও কমেন্ট পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, অধিকাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারী ভিডিওটিকে সত্য ঘটনার বলে বিশ্বাস করেছেন।

ফ্যাক্টচেক
ফ্যাক্টচেকের জন্য বিশেষায়িত প্রযুক্তি ব্যবহার করে সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির অনুরূপ ভিডিও ইউটিউবে খুঁজে পাওয়া যায়। এমএনসি টিভি নামের একটি ভেরিফায়েড ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৮ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত ওই ভিডিও থেকে জানা যায়, এটি মূলত জালিম (Dzolim) নামের একটি ধারাবাহিক নাটকের দৃশ্য।

এমএনসি টিভির অফিশিয়াল ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টেও ২০১৮ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ভিডিওটি পোস্ট করতে দেখা যায়। ট্রেলার হিসেবে আপলোড করা এই পোস্টে ইন্দোনেশিয়ান ভাষায় লেখা ক্যাপশন অনুবাদ করে জানা যায়, এটি এমন এক ব্যক্তির গল্প, যে জীবদ্দশায় বিভিন্ন অন্যায় করত। মৃত্যুর পরে তার কেমন শাস্তি হবে, সে বিষয়েই জলিম নামের ধারাবাহিকের এই পর্ব। প্রচার হয়েছে সেদিন বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটে।

https://www.instagram.com/accounts/login/?next=/p/BoDiMf5n8i8/

তবে, ফেসবুকে যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, সেটি ইউটিউব বা ইনস্টাগ্রামে প্রচারিত ওই ভিডিও থেকে সরাসরি নেওয়া হয়নি। ভিডিওর সকল উপাদান পর্যবেক্ষণ করা দেখা যায়, ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি সেই নাটকের শুটিং-এর সময় কেউ ধারণ করেন এবং পরে সেটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

ফেসবুকে ভিডিওটি অসংখ্য আইডি থেকে শেয়ার হয়েছে। ছবি: ফেসবুক থেকে স্ক্রিনশট উইকিপিডিয়ায় জালিম (Dzolim) নিবন্ধ থেকে জানা যায়, এটি একটি ধর্মীয় ধারাবাহিক নাটক বা সোপ অপেরা। এর প্রতিটি পর্ব একজন করে ব্যক্তিকে কেন্দ্র করে নির্মাণ করা হয়, যিনি জীবদ্দশায় অনেক অন্যায় করেছেন। পরবর্তীকালে তাঁর পাপের শাস্তির প্রতীকী রূপ দেখানো হয় এর একেকটি পর্বে।

সিদ্ধান্ত
ফেসবুকে মৃতদেহ পানিতে পড়ে যাওয়ার যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, সেটি সত্য ঘটনার নয়। এটি ইন্দোনেশিয়ার টিভি চ্যানেল এমএনসি টিভিতে ২০১৮ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রচারিত একটি সোপ অপেরার দৃশ্য।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, সংবাদমাধ্যম বা যেকোনো মাধ্যমে প্রচারিত কোনো ছবি, ভিডিও বা তথ্য বিভ্রান্তিকর মনে হলে তার স্ক্রিনশট বা লিংক কিংবা সে সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য আমাদের ই-মেইল করুন। আমাদের ই-মেইল ঠিকানা—[email protected]

 

আরও পড়ুন ফ্যাক্টচেক:

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
 
    সব মন্তব্য

    ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

    এলাকার খবর

     
     
    ফ্যাক্টচেক

    পদ্মা সেতু: লড়তে হয়েছে গুজবের সঙ্গেও

    ফ্যাক্টচেক

    মঞ্চ ভেঙে শিল্পী অদৃশ্য: কোক স্টুডিও বাংলা কনসার্টে নয়

    ফ্যাক্টচেক

    পুরোটাই গুজব: পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান স্থগিত

    ফ্যাক্টচেক

    ওই সাত শিশু এক মায়ের নয়

    ফ্যাক্টচেক

    আইয়ুব আলীর কি সত্যিই সবুজ নামে ছেলে আছে

    ফ্যাক্টচেক

    ‘যে মাদক অফার করে, সে কখনো বন্ধু হতে পারে না’

    ২২ দিনের মধ্যে পরিবারের তিনজনের মৃত্যু

    জড়িতদের গ্রেপ্তার দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

    আগাম আমন রোপণের ধুম

    গিনেস বুকে নাফিস

    কাউনিয়ার ৩৭ মণের সুলতান দাম ১২ লাখ টাকা

    ব্রহ্মপুত্র গিলে খাচ্ছে বসতভিটা